২৩৮ কোটি টাকা নিতে চায় ওমেরা পেট্রোলিয়াম

0
848

সিনিয়র রিপোর্টার : পুঁজিবাজার থেকে ২৩৮ কোটি ৪৩ লাখ টাকা তুলতে চায় ওমেরা পেট্রোলিয়াম লিমিটেড (ওমেরা এলপিজি)। বুকবিল্ডিং পদ্ধতিতে এই টাকা তোলার জন্য রোববার রাজধানীর র‌্যাডিসন হোটেলে রোড শো করবে প্রতিষ্ঠানটি।

ওমেরা এলপিজির প্রধান অর্থ কর্মকর্তা আক্তার হোসেন সান্নামাত বলেন, পুঁজিবাজার থেকে সংগ্রহ করা অর্থের মধ্যে ১৮৬ কোটি ৩২ লাখ টাকা দিয়ে সমুদ্রগামী নতুন জাহাজ কেনা হবে। বাকি ৪৬ কোটি ৭৫ লাখ টাকা ব্যয় করা ব্যাংক লোন পরিশোধে।

নিজেদের জাহাজ থাকলে বাইরে থেকে পণ্য আনতে সুবিধা হবে। জাহাজ ভাড়া দেয়ার তুলনায় খরচ কমবে। ফলে মুনাফায় এর ইতিবাচক প্রভাব পড়বে। ৩ হাজার ৮০০ মেট্রিক টন এলপিজি ধারণ ক্ষমতার জাহাজ কেনা হবে বলে জানান তিনি।

এলপিজি আমদানি করে বোতলজাত করে গৃহস্থালী এবং বাণিজ্যিক ব্যবহারের জন্য বিক্রি করে ওমেরা। পাঁচটি ভিন্ন আকারে এলপিজি বিক্রি করে প্রতিষ্ঠানটি। এগুলো হচ্ছে সাড়ে ৫ কেজি, ১২ কেজি, ২৫ কেজি , ৩৫ কেজি ও ৪৫ কেজি।

এছাড়াও শিল্পে ব্যবহারের জন্যে বাল্ক আকারে এলপিজি বিক্রি করে ওমেরা।

২০১৫ সালে ওমেরা পেট্রোলিয়াম এলপিজি খাতে যাত্রা শুরু করে। ওমেরা পেট্রোলিয়াম মবিল যমুনার সাবসিডিয়ারী কোম্পানি। ওমেরা পেট্রোলিয়াম লিমিটেডের ৬২ দশমিক ৪৯ শতাংশ শেয়ারের মালিক মবিল যমুনা বাংলাদেশ লিমিটেড।

ওমেরার রয়েছে ৯ হাজার ৫০ মেট্রিক টন এলপিজি ধারন ক্ষমতা সম্পন্ন ৫টি ট্যাংক। এছাড়া আছে ১ হাজার মেট্রিক টন ক্ষমতা সম্পন্ন ৩টি এলপিজি বহনকারী বার্জ; সেগুলো আভ্যন্তরীন নৌপথে এলপিজি পরিবহন করে থাকে।

ওমেরার রয়েছে ৩২ টি এলপিজি পরিবহনকারী রোড ট্যাংকার; যার প্রত্যেকটি ধারণ ক্ষমতা ১৭ মেট্রিক টন।প্রতিদিন এক শিফটে ৬০ হাজার সিলিন্ডার বোতলজাত করার সক্ষমতা রয়েছে প্রতিষ্ঠানটির।

বর্তমানে ২৫টি কোম্পানি এই খাতে তাদের ব্যবসা পরিচালনা করছে। এদের মধ্যে উল্লেখ্যযোগ্য হল-বসুন্ধরা, ওমেরা, যমুনা, বি এম ,লাফ্স, টোটাল, বেক্সিমকো, নাভানা, সেনা, পেট্রোমেক্স, ওরিয়ন এবং জে এম আই।

ওমেরায় বি বি এনার্জি এশিয়া পিটিই লিমিটেড, সিংগাপুর এবং নেদারল্যান্ডের আর্থিক প্রতিষ্ঠান এফ এম ও এর বিনিয়োগ রয়েছে।

বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় জ্বালানি কোম্পানিগুলোর মধ্যে বিবি এনার্জি ইউরোপের অন্যতম প্রধান কোম্পানি। প্রতিষ্ঠানিট তেল পরিশোধন, সরবরাহ, সংরক্ষন এবং অর্থায়নের অভিজ্ঞতা সম্পন্ন; যা বিশ্বজুড়ে কার্যক্রম পরিচালনা করছে।

অন্যদিকে এফ এম ও নেদারল্যান্ডের একটি সরকারি আর্থিক প্রতিষ্ঠান; যারা বিভিন্ন দেশে ব্যবসা, প্রকল্প এবং আর্থিক প্রতিষ্ঠানে অর্থায়ন করে থাকে।

ইন্ডিয়ান অয়েল কর্পোরেশনের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়ে ওমেরা পেট্রোলিয়াম আমদানি করা এলপিজি ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে বিশেষ করে ত্রিপুরায় রপ্তানি শুরু করেছে।

ওমেরা এলপিজির চেয়ারম্যান হচ্ছেন আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিম। পরিচালকদের মধ্যে রয়েছেন আজম জে চৌধুরী এবং তার ছেলে তানজিল চৌধুরী। আজম চৌধুরী ইস্ট কোস্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান। বেসরকারি প্রাইম ব্যাংকের চেয়ারম্যানও তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here