১৩টি প্রতিষ্ঠানের লাভ-ক্ষতির আর্থিক চিত্র

0
698

সিনিয়র রিপোর্টার : বাংলাদেশের পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ১৩টি প্রতিষ্ঠান তাদের বিভিন্ন প্রান্তিকে মুনাফা ও ক্ষতির আর্থিক বিবরণী প্রকাশ করেছে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ওয়েবসাইটে এ তথ্য প্রকাশ করা হয়।

সোনালী পেপার অ্যান্ড বোর্ড মিলস : কাগজ খাতের সোনালী পেপার ২০১৯-২০ অর্থবছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি-মার্চ) প্রতি শেয়ারে ৩২ পয়সা মুনাফা দেখিয়েছে। আগের বছর একই সময়ে প্রতি শেয়ারে তাদের মুনাফা হয়েছিল ১ টাকা ১৯ পয়সা।

নয় (জুলাই-মার্চ) মাসে তাদের প্রতি শেয়ারে মুনাফা হয়েছে ২ টাকা ৮ পয়সা, যা আগে ৩ টাকা ১৪ পয়সা মুনাফা ছিল।

সিঙ্গার বাংলাদেশ লিমিটেড : প্রকৌশল খাতের সিঙ্গার বাংলাদেশ লিমিটেড ২০২০ অর্থবছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (এপ্রিল-জুন) প্রতি শেয়ারে ৭৯ পয়সা মুনাফা দেখিয়েছে। আগের বছর একই সময়ে প্রতি শেয়ারে তাদের মুনাফা হয়েছিল ৩ টাকা ৯১ পয়সা।

ছয় (জানুয়ারি-জুন) মাসে তাদের প্রতি শেয়ারে মুনাফা হয়েছে ১ টাকা ৯১ পয়সা, যা আগে ৫ টাকা ১৪ পয়সা মুনাফা ছিল।

ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক : ব্যাংক খাতের ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক ২০২০ অর্থবছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (এপ্রিল-জুন) প্রতি শেয়ারে ১৮ পয়সা মুনাফা দেখিয়েছে। আগের বছর একই সময়ে প্রতি শেয়ারে তাদের মুনাফা হয়েছিল ৪১ পয়সা।

ছয় (জানুয়ারি-জুন) মাসে তাদের প্রতি শেয়ারে মুনাফা হয়েছে ৯০ পয়সা, যা আগে ৯৫ পয়সা মুনাফা ছিল।

ওয়ান ব্যাংক লিমিটেড : ব্যাংক খাতের ওয়ান ব্যাংক লিমিটেড ২০২০ অর্থবছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (এপ্রিল-জুন) প্রতি শেয়ারে ২০ পয়সা মুনাফা দেখিয়েছে। আগের বছর একই সময়ে প্রতি শেয়ারে তাদের মুনাফা হয়েছিল ২৩ পয়সা।

ছয় (জানুয়ারি-জুন) মাসে তাদের প্রতি শেয়ারে মুনাফা হয়েছে ১ টাকা ৩ পয়সা, যা আগে ৪৬ পয়সা মুনাফা ছিল।

আইডিএলসি ফাইন্যান্স লিমিটেড : ব্যাংক বহির্ভূত আর্থিক খাতের আইডিএলসি ফাইন্যান্স লিমিটেড ২০২০ অর্থবছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (এপ্রিল-জুন) প্রতি শেয়ারে ৯৯ পয়সা মুনাফা দেখিয়েছে। আগের বছর একই সময়ে প্রতি শেয়ারে তাদের মুনাফা হয়েছিল ১ টাকা ৩১ পয়সা।

ছয় (জানুয়ারি-জুন) মাসে তাদের প্রতি শেয়ারে মুনাফা হয়েছে ১ টাকা ৭৭ পয়সা, যা আগে ২ টাকা ৬৭ পয়সা মুনাফা ছিল।

সোস্যাল ইসলামী ব্যাংক : ব্যাংক খাতের কোম্পানি সোস্যাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড ২০২০ অর্থবছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (এপ্রিল-জুন) প্রতি শেয়ারে ১১ পয়সা মুনাফা দেখিয়েছে। আগের বছর একই সময়ে প্রতি শেয়ারে তাদের মুনাফা হয়েছিল ১০ পয়সা।

ছয় (জানুয়ারি-জুন) মাসে তাদের প্রতি শেয়ারে মুনাফা হয়েছে ৫০ পয়সা, যা আগে ৩৯ পয়সা ছিল।

দি সিটি ব্যাংক : ব্যাংক খাতের কোম্পানি দি সিটি ব্যাংক ২০২০ অর্থবছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (এপ্রিল-জুন) প্রতি শেয়ারে ৩০ পয়সা মুনাফা দেখিয়েছে। আগের বছর একই সময়ে প্রতি শেয়ারে তাদের মুনাফা হয়েছিল ১ টাকা ৬ পয়সা।

ছয় (জানুয়ারি-জুন) মাসে তাদের প্রতি শেয়ারে মুনাফা হয়েছে ১ টাকা ৫ পয়সা, যা আগে ১ টাকা ৮২ পয়সা ছিল।

প্রাইম ব্যাংক : ব্যাংক খাতের কোম্পানি প্রাইম ব্যাংক ২০২০ অর্থবছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (এপ্রিল-জুন) প্রতি শেয়ারে ৬ পয়সা মুনাফা দেখিয়েছে। আগের বছর একই সময়ে প্রতি শেয়ারে তাদের মুনাফা হয়েছিল ৫৩ পয়সা।

ছয় (জানুয়ারি-জুন) মাসে তাদের প্রতি শেয়ারে মুনাফা হয়েছে ৪৮ পয়সা, যা আগে ৯০ পয়সা ছিল।

রিলায়েন্স ইন্স্যুরেন্স : বীমা খাতের কোম্পানি রিলায়েন্স ইন্স্যুরেন্স ২০২০ অর্থবছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (এপ্রিল-জুন) প্রতি শেয়ারে ১ টাকা ২৭ পয়সা মুনাফা দেখিয়েছে। আগের বছর একই সময়ে প্রতি শেয়ারে তাদের মুনাফা হয়েছিল ১ টাকা ৬৮ পয়সা।

ছয় (জানুয়ারি-জুন) মাসে তাদের প্রতি শেয়ারে মুনাফা হয়েছে ২ টাকা ৪৯ পয়সা, যা আগে ২ টাকা ৬৯ পয়সা ছিল।

পিপলস ইন্স্যুরেন্স : বীমা খাতের কোম্পানি পিপলস ইন্স্যুরেন্স ২০২০ অর্থবছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (এপ্রিল-জুন) প্রতি শেয়ারে ৩৮ পয়সা মুনাফা দেখিয়েছে। আগের বছর একই সময়ে প্রতি শেয়ারে তাদের মুনাফা হয়েছিল ৪০ পয়সা।

ছয় (জানুয়ারি-জুন) মাসে তাদের প্রতি শেয়ারে মুনাফা হয়েছে ৮১ পয়সা, যা আগে ৮৫ পয়সা ছিল।

রেকিট অ্যান্ড বেনকিজার : ওষুধ খাতের কোম্পানি রেকিট অ্যান্ড বেনকাইজার ২০২০ অর্থবছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (এপ্রিল-জুন) প্রতি শেয়ারে ৩৩ টাকা ৪৭ পয়সা মুনাফা দেখিয়েছে। আগের বছর একই সময়ে প্রতি শেয়ারে তাদের মুনাফা হয়েছিল ২১ টাকা ৮২ পয়সা।

ছয় (জানুয়ারি-জুন) মাসে তাদের প্রতি শেয়ারে মুনাফা হয়েছে ৫৭ টাকা ৫১ পয়সা, যা আগে ৩৭ টাকা ২৮ পয়সা ছিল।

আনোয়ার গ্যালভানাইজিং : প্রকৌশল খাতের কোম্পানি আনোয়ার গ্যালভানাইজিং ২০১৯-২০ অর্থবছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জানুয়ারি-মার্চ) প্রতি শেয়ারে ৬৪ পয়সা মুনাফা দেখিয়েছে। আগের বছর একই সময়ে প্রতি শেয়ারে তাদের মুনাফা হয়েছিল ৫৬ পয়সা।

ছয় (জানুয়ারি-জুন) মাসে তাদের প্রতি শেয়ারে মুনাফা হয়েছে ১ টাকা ৫০ পয়সা, যা আগে ৯৭ পয়সা ছিল।

পপুলার লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি : ২০২০ অর্থবছরের প্রথম প্রান্তিকে (জানুয়ারি-মার্চ) বীমা খাতের কোম্পানি পপুলার লাইফ ইন্স্যুরেন্সের আয় ১৫ কোটি টাকা বেড়েছে। আগের বছর একই সময়ে তাদের আয় ৪৫ কোটি ৭১ লাখ টাকা কমেছিল।

দ্বিতীয় প্রান্তিকে এপ্রিল-জুন সময়ে এ কোম্পানির আয় ৪৯ কোটি টাকা কমেছে। আগের বছর একই সময়ে তাদের আয় ২ কোটি ৯ লাখ টাকা বেড়েছিল।

সব মিলিয়ে ছয় মাসে (জানুয়ারি-জুন) তাদের আয় ৩৩ কোটি ৮০ টাকা কমেছে। আগের বছর একই সময়ে তাদের আয় ৪২ কোটি ৮৫ লাখ টাকা কমেছিল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here