স্বচ্ছতা নিশ্চিতে ৯ ধরণের তথ্য চায় বাংলাদেশ ব্যাংক

0
80

স্টাফ রিপোর্টার : আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর (এনবিএফআই) স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে চায় বাংলাদেশ ব্যাংক। এ জন্য সঠিক ও ত্রুটিমুক্ত বিবরণীর পাশাপাশি নির্ভুল তথ্য পাঠাতে ৯ ধরনের তথ্য চেয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পরিসংখ্যান বিভাগ থেকে বুধবার এ বিষয়ে সার্কুলার জারি করা হয়েছে। সব আর্থিক প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহীর কাছে পাঠানো হয়েছে নির্দেশনা।

সার্কুলারে বলা হয়, আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো তিন মাস পরপর এনবিএফআই-২ ও এনবিএফআই-৩ বিবরণী দাখিল করে আসছে। বিবরণীগুলোকে সঠিক ও ত্রুটিমুক্ত করার জন্য পরিসংখ্যান বিভাগ থেকে নয়টি সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।

গ্রাহকের নতুন হিসাব খোলার সময় এনবিএফআই-২ ও এনবিএফআই-৩ রিপোর্টিং ফরমটি পূরণসহ হিসাব খোলার ফরমের সঙ্গে সংযুক্ত আকারে সংরক্ষণ করতে হবে।

প্রতি তিন মাসের এনবিএফআই-২ (আমানত) ও এনবিএফআই-৩ (অগ্রিম) বিবরণী পরবর্তী মাসের ২০ তারিখের মধ্যে ওয়েবসাইটে আপলোড করতে হবে।

ব্যবস্থাপনা পরিচালকের সই অথবা তার অনুপস্থিতিতে দায়িত্বপ্রাপ্ত সর্বোচ্চ কর্মকর্তাসহ দুজন কর্মকর্তার সইয়ে পরিসংখ্যান বিভাগে ফরোয়াডিং লেটারসহ সারসংক্ষেপ দাখিল করতে হবে।

শাখা ও প্রধান কার্যালয়ে কর্মরত অভিজ্ঞ ও দক্ষ কর্মকর্তার মাধ্যমে অ্যাকাউন্ট ও পেনিং ফরম পূরণ এবং যথাসময়ে তা নির্ভুলভাবে দাখিলের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে। প্রতি মাসের আমানত ও আগামের সুদ, মুনাফা হারের বিবরণী পরবর্তী মাসের ১০ তারিখের মধ্যে আপলোড করতে হবে।

বাংলাদেশ ব্যাংকে বিবরণী দাখিলের সময় নতুন শাখার কার্যক্রম চালু হলে সাত কর্মদিবসের মধ্যে শাখা কোডের জন্য আবেদন করতে হবে। প্রতি বছর ৩১ ডিসেম্বর ভিত্তিক শাখার তালিকা জানুয়ারি মাসের ১০ তারিখের পাঠাতে হবে।

প্রয়োজনে পরিসংখ্যান বিভাগ থেকে গাইডলাইনস টু ফিল ইন দ্য এনবিএফআই রিটার্নস-১, ২ ও ৩ (দ্বিতীয় সংস্করণ) সংগ্রহ করতে হবে।

সরকারি ও বেসরকারি আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর ধরণ পরিবর্তন বা রূপান্তরের ক্ষেত্রে যথার্থ ডকুমেন্ট চিঠির মাধ্যমে অবিলম্বে কেন্দ্রীয় ব্যাংককে জানাতে হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here