‘যুক্তরাষ্ট্রের সব কোম্পানি হুয়াওয়ের সঙ্গে ব্যবসা করতে পারবে’

0
173

ডেস্ক রিপোর্ট : চীনভিত্তিক হুয়াওয়ে ও যুক্তরাষ্ট্রের প্রযুক্তি কোম্পানিগুলোর মধ্যে ব্যবসা পরিচালনায় কোনো বাধা নেই। এখন থেকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রযুক্তি কোম্পানিগুলো হুয়াওয়ের কাছে সব ধরনের পণ্য বিক্রি করতে পারবে। শনিবার জাপানের ওসাকায় জি২০ সম্মেলনের সাইডলাইনে শি জিনপিংয়ের সঙ্গে বৈঠক শেষে এমন ঘোষণা দেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। খবর ব্লুমবার্গ, সিএনএস ও সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট।

জি২০ সম্মেলনে ডোনাল্ড ট্রাম্পের পক্ষ থেকে এমন ঘোষণা আসার আগে চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি। বৈঠকে হুয়াওয়ে ইস্যুতে কার্যকরী আলোচনা হয়েছে জানিয়ে ট্রাম্প বলেন, চীনের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে তার ‘চমৎকার’ সম্পর্ক রয়েছে। বৈঠকের ফল প্রত্যাশার চেয়ে বেশি ফলপ্রসূ হয়েছে।

হুয়াওয়ের ওপর আরোপিত বাণিজ্য নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার বিষয়ে বিস্তারিত না জানিয়ে তিনি বলেন, এখন থেকে যুক্তরাষ্ট্রের সব কোম্পানি হুয়াওয়ের সঙ্গে ব্যবসা কার্যক্রম পরিচালনা করতে পারবে। একই সঙ্গে হুয়াওয়ে যুক্তরাষ্ট্রের কোম্পানিগুলো থেকে প্রয়োজনীয় সব পণ্য কিনতে পারবে।

চীনের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে বৈঠক শেষে ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, প্রতিদ্বন্দ্বী নয়, চীন ও যুক্তরাষ্ট্র একে অন্যের ‘কৌশলগত অংশীদার’ হতে পারে। চীনের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের বাজার উন্মুক্ত ছিল এবং রয়েছে। কিন্তু চীনের বাজার যুক্তরাষ্ট্রের জন্য উন্মুক্ত নয়। এ সময় চীন থেকে যুক্তরাষ্ট্রে ৩০ হাজার কোটি ডলার মূল্যের আমদানীকৃত পণ্যে নতুন করে শুল্ক আরোপের ঘোষণাও প্রত্যাহার করে নেয়া হয়।

তিনি বলেন, হুয়াওয়েকে মার্কিন বাণিজ্য বিভাগের কালো তালিকা থেকে কবে বাদ দেয়া হবে, সে বিষয়ে পরবর্তী সময়ে বিস্তারিত জানানো হবে। বৈঠকে শুধু হুয়াওয়ে ইস্যু নিয়ে নয়, বৈশ্বিক অর্থনৈতিক মন্দা কাটিয়ে উঠতে যুক্তরাষ্ট্র-চীনের মধ্যে চলমান বাণিজ্য বিরোধ নিয়েও ইতিবাচক আলোচনা হয়েছে।

গত মাসে সাইবার গুপ্তচরবৃত্তির আশঙ্কায় দেশের বাইরের ঝুঁকিপূর্ণ কোম্পানির তৈরি টেলিযোগাযোগ সরঞ্জাম ক্রয়, সংযোজন অথবা ব্যবহার নিষিদ্ধ করে এক নির্বাহী আদেশে সই করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ওই আদেশে হুয়াওয়ের নাম সুনির্দিষ্টভাবে উল্লেখ না থাকলেও নির্বাহী আদেশটির লক্ষ্য যে চীনা কোম্পানিটি, তা পরবর্তী সময়ে স্পষ্ট হয়। এ আদেশবলে হুয়াওয়েকে কালো তালিকাভুক্ত করে মার্কিন বাণিজ্য বিভাগ।

এর ফলে নিজেদের পণ্য উন্নয়ন ও উৎপাদনের জন্য মার্কিন কোম্পানিগুলোর কাছ থেকে সফটওয়্যার ও হার্ডওয়্যারের পাশাপাশি সব ধরনের সেমিকন্ডাক্টর পণ্য ক্রয় করা হুয়াওয়ের জন্য অসম্ভব হয়ে ওঠে। বলা হয়, বাণিজ্য বিভাগের কালো তালিকাভুক্ত প্রতিষ্ঠান হিসেবে হুয়াওয়ে লাইসেন্স ছাড়া যুক্তরাষ্ট্রের কোনো কোম্পানির সঙ্গে ব্যবসা করতে পারবে না। এ অবস্থায় যুক্তরাষ্ট্রে হুয়াওয়ের বিদ্যমান গ্রাহকদের মাঝে সেবা অব্যাহত রাখাও কঠিন হয়ে দাঁড়ায়।

বাণিজ্য নিষেধাজ্ঞা আরোপের পর পরই যুক্তরাষ্ট্রে হুয়াওয়ের বিদ্যমান গ্রাহকদের কথা বিবেচনা করে তা ৯০ দিনের জন্য শিথিল করা হয়।

মার্কিন নিষেধাজ্ঞা মেনে শুরুতে গুগল, মাইক্রোসফট, ইন্টেল ও এআরএমের মতো প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলো হুয়াওয়ের সঙ্গে ব্যবসা কার্যক্রম স্থগিত করার ঘোষণা দেয়। অবশ্য পরবর্তী সময়ে সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসে এবং হুয়াওয়ের ওপর আরোপিত বাণিজ্য নিষেধাজ্ঞা যাতে প্রত্যাহার করে নেয়া হয়, সেজন্য ট্রাম্প প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের মাধ্যমে আলোচনা চালিয়ে যায়।

গত বছর হুয়াওয়ে যুক্তরাষ্ট্রের কোম্পানিগুলো থেকে ৭ হাজার কোটি ডলারের টেলিযোগাযোগ উপকরণ কিনেছে। এর মধ্যে ১ হাজার ১০০ কোটি ডলার কোয়ালকম, ইন্টেল করপোরেশন ও মাইক্রন টেকনোলজি ইনকরপোরেশনের মতো মার্কিন কোম্পানির পণ্য ক্রয়ে ব্যয় করে হুয়াওয়ে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here