মোবাইল ব্যাংকিংয়ের লেনদেনে গতি আরো বেড়েছে

0
196

স্টাফ রিপোর্টার : প্রতিদিনই বাড়ছে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের গ্রাহক ও লেনদেনের পরিমাণ। লেনদেনের সঙ্গে নতুন নতুন সেবা যুক্ত হওয়ায় অল্প সময়েই অনেক জনপ্রিয়তা পেয়েছে মোবাইল ব্যাংকিং।

অক্টোবরে মোবাইল ব্যাংকিংয়ে দৈনিক লেনদেন এক হাজার ২১৮ কোটি টাকা ছাড়িয়েছে। একই সঙ্গে অক্টোবরের শেষে দেশে গ্রাহক সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৭ কোটি ৭৩ লাখ ৯৫ হাজার। মোবাইল আর্থিক হিসাব (এমএফএস) নিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের সর্বশেষ প্রকাশিত পরিসংখ্যানে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী, বিদায়ী ২০১৯ সালের নভেম্বরে প্রায় ৩৮ হাজার কোটি টাকা লেনদেন হয়েছে। যা আগের অক্টোবর মাসের তুলনায় ১৫৭ কোটি টাকা বেশি।

মোবাইল ব্যাংকিংয়ে লেনদেনের সঙ্গে বিদ্যুৎ, গ্যাস, পানির বিল প্রদান যুক্ত হওয়ার জনপ্রিয়তা আরো বেড়েছে। অর্থাৎ সেবা মূল্য পরিশোধ, কেনাকাটার বিল পরিশোধ, বেতন-ভাতা প্রদান, বিদেশ থেকে টাকা পাঠানো বা রেমিট্যান্স প্রেরণসহ বিভিন্ন সেবার কারণে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের জনপ্রিয়তা বাড়ছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য মতে, অক্টোবরে মোবাইল ব্যাংকিংয়ে মোট লেনদেন হয়েছে ৩৭ হাজার ৭৬২ কোটি টাকা। প্রতিদিন গড়ে আদান-প্রদান হয়েছে ১ হাজার ২১৮ কোটি টাকা।

প্রতিবেদন অনুযায়ী, অক্টোবর মাসজুড়ে মোবাইল ব্যাংকিং হিসাবগুলোতে টাকা জমা পড়েছে ১৩ হাজার ৬২৫ কোটি টাকা, যা আগের মাসের চেয়ে ৫ দশমিক ৯ শতাংশ বেশি। উত্তোলন করেছে ১২ হাজার ৬৪৫ কোটি টাকা, যা সেপ্টেম্বরের তুলনায় ৬ দশমিক ৩ শতাংশ বেশি

প্রাপ্ত তথ্য অনুসারে, নভেম্বর মাসে প্রায় সব ধরনের সেবায় লেনদেন হওয়ায় এর পরিমাণ বেড়েছে। এই সময়ে মোবাইল ব্যাংকিং হিসাবগুলোতে টাকা জমা পড়েছে ১৩ হাজার ৪০৮ কোটি টাকা। উত্তোলন করা হয়েছে ১২ হাজার ৬৯৮ কোটি টাকা। ব্যক্তি হিসাব থেকে ব্যক্তি হিসাবে অর্থ স্থানান্তর হয়েছে ৯ হাজার ৯৯ কোটি টাকা।

বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের বেতন-ভাতা বিতরণ হয়েছে ৮৭০ কোটি, সেবার বিল পরিশোধ ৪৬৫ কোটি এবং কেনাকাটার বিল পরিশোধ হয়েছে ৪৩৭ কোটি টাকা। সরকারি বিল পরিশোধ ২৯৪ কোটি টাকা। এছাড়া অন্যান্য হিসাবে লেনদেন হয়েছে ৬২১ কোটি টাকা।

তথ্য মতে, মাত্র পাঁচ বছর আগেও মোবাইল ব্যাংকিংয়ের লেনদেন ছিল একেবারেই কম। কিন্তু কয়েক বছরের ব্যবধানে পুরো চিত্রই বদলে দিয়েছে মোবাইল ব্যাংকিং। গত নভেম্বর শেষে মোবাইলের মাধ্যমে লেনদেন সেবার আওতায় নিবন্ধিত গ্রাহকের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭ কোটি ৮৫ লাখ। আর একক মাস হিসাবে এই মাসে লেনদেন হয়েছে ৩৭ হাজার ৯১৯ কোটি টাকা, যা এপ্রিল মাসের তুলনায় যা প্রায় ১ দশমিক ৪ শতাংশ বেশি।

প্রতিবেদন অনুযায়ী, বর্তমানে মোট ১৬টি ব্যাংক মোবাইল ব্যাংকিংয় সেবা দিচ্ছে। টানা তিন মাস একবারও লেনদেন করেনি এমন হিসাবকে নিষ্ক্রিয় হিসাব বলে গণ্য করে থাকে মোবাইল ব্যাংকিং সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলো। সেই হিসাবে নভেম্বর শেষে সক্রিয় গ্রাহক সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ কোটি ৫০ লাখ ৯২ হাজার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here