বিশেষ তহবিলের টাকায় কেনা যাবে ১৮৭টি কোম্পানির শেয়ার

0
1626

সিনিয়র রিপোর্টার : পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত তালিকাভুক্ত যেসব কোম্পানি শেষ তিন বছরে কমপক্ষে ১০ শতাংশ হারে লভ্যাংশ দিয়েছে বিশেষ তহবিলের টাকা দিয়ে শুধু ওই কোম্পানির শেয়ার কেনা যাবে। তিন বছরের মধ্যে এক বছরও যদি কোনো কোম্পানি ১০ শতাংশের কম লভ্যাংশ দেয়, তাহলে ওই কোম্পানির শেয়ার কেনা যাবে না।

বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে তালিকাভুক্ত ব্যাংকগুলোকে শেয়ারবাজারে বিনিয়োগের জন্য ২০০ কোটি টাকার বিশেষ তহবিল গঠনের সুযোগ দেয়ায় বিনিয়োগকারীদের আস্থা বাড়ে। ফলে বাজারে টানা ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা দেখা দিয়েছে। এতে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান মূল্য সূচক সাড়ে ৬ হাজার পয়েন্ট পৌছে।

অব্যাহত পতনের মধ্যে গত ১০ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে কিছু শর্তসাপেক্ষ ব্যাংকগুলোকে ২০০ কোটি টাকা করে বিশেষ তহবিল গঠনের সুযোগ দেয়া হয়। নিজস্ব উৎস অথবা ট্রেজারি বিল বন্ডের মাধ্যমে বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে ব্যাংকগুলো এ তহবিলের অর্থ সংগ্রহ করতে পারবে। বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে ৫ শতাংশ সুদে এ তহবিলের অর্থ সংগ্রহ করতে পারবে ব্যাংকগুলো, যা পরিশোধের সময় হচ্ছে পাঁচ বছর। আর ব্যাংকগুলো সর্বোচ্চ ৭ শতাংশ সুদে এই তহবিল থেকে ঋণ দিতে পারবে।

নীতিমালা হিসেবে বিনিয়োগযোগ্য শেয়ারের জন্য সংশ্লিষ্ট কোম্পানির শেয়ার ৭০ শতাংশের বেশি ফ্রি ফ্লোট হবে না। অর্থাৎ কোনো কোম্পানির ফ্রি ফ্লোট (লেনদেনযোগ্য) শেয়ারের সংখ্যা মোট শেয়ারের ৭০ শতাংশের বেশি হলে বিশেষ তহবিলের অর্থ দিয়ে ওই শেয়ার কেনা যাবে না।

ফলে বিশেষ তহবিলের টাকা দিয়ে তালিকাভুক্ত ১৮৭টি কোম্পানির শেয়ার কেনার সুযোগ থাকছে। এর মধ্যে ব্যাংক খাতের ২৭টি, আর্থিক খাতের ১৩টি, প্রকৌশলের ২৩টি, খাদ্যের ৭টি, বিদ্যুৎ ও জ্বালানির ১৪টি, বস্ত্রের ২৩টি, ওষুধের ১৯টি, সেবা ও আবাসনের ৪টি, সিমেন্টের ৬টি, আইটির ৩টি, চামড়ার ৪টি, সিরামিকের ৩টি, বিমার ৩৪টি, বিবিধ ৪টি এবং টেলিযোগাযোগ, ভ্রমণ ও পাটের একটি করে প্রতিষ্ঠান রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here