সিনিয়র রিপোর্টার : বাংলাদেশে ভূমিকম্প সহনশীল এবং সহজে স্থানান্তরযোগ্য ভবন নির্মাণ করছে ডমিনেজ স্টিল বিল্ডিং সিস্টেমস লিমিটেড। প্রি-ইঞ্জিনিয়ার্ড অর্থাৎ স্টিল স্ট্রাকচারড বিল্ডিং প্রস্তুতকারী কোম্পানিটি সম্ভাবনা অনেক বেশি। দিন বদলের গতীতে ইট-কাঠের ভবন ছেড়ে এখন সৌখিন এবং নিরাপত্তাদানকারী ভবনের দিকে মানুষ আগ্রহ প্রকাশ করছেন।

যে কারণে বাংলাদেশের এই পদ্ধতিতে ভবন নির্মাণকে প্রাধান্য দিচ্ছে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান। তাদের বাণিজ্যিক ভবন থেকে শুরু করে আবাসিক ভবনের ক্ষেত্রেও তাদের আগ্রহের শীর্ষে থাকছে। যে কারণে দিনে দিনে ব্যবসা বাড়ছে, জানালেন ডমিনেজ স্টিল বিল্ডিং সিস্টেমস লিমিটেডের প্রধান অর্থনৈতিক কর্মকর্তা (সিএফও) সন্তোষ চন্দ্র সাহা।

ঢাকার পল্টনে রোববার দুপুরে তিনি বলেন, স্টিলের প্রি-ইঞ্জিনিয়ার্ড বিল্ডিং কাঠামো আমরা নির্মাণ করছি। নিরাপত্তা, সৌখিনতা এবং সহজে স্থানান্তরযোগ্য এই ভবন। শুধু তাই নয়, আধুনিক ও দৃষ্টিনন্দন হওয়ায় গ্রাহক চাহিদা এখন শীর্ষে। সবার একই বাড়ি চাই, তবে তা যদি এমন সুবিধায় সমৃদ্ধ একটি ভবন হয়- তাহলে কেমন হয়?

দেশে সে চাহিদা একমাত্র আমরাই মেটাতে সক্ষম। প্রকৌশল এবং প্রযুক্তি আমাদের সম্পদ। সুনাম আমাদের প্রথম পুঁজি বলেন তিনি। সর্বোপরি এই সৃষ্টির মূলে বুয়েটের দুজন স্টুডেন্ট। তারা আমাদের কোম্পানির চেয়ার ও এমডি বলেন সন্তোস চন্দ্র।

আলোচনাকালে উপস্থিত ছিলেন বিডি ফাইন্যান্স ক্যাপিটাল হোল্ডিংস লিমিটেডের এ্যাসিসটেন্ট ম্যানেজার শহীদুল ইসলাম। তিনিও যোগ করেন, সবক্ষেত্রেই চাই প্রযুক্তির ছোঁয়া। তারই একটি নান্দনিক চিত্র তৈরি করছে ডমিনেজ স্টিল। দেশের অনেক প্রসিদ্ধ কোম্পানির সঙ্গে কাজ করার অভিজ্ঞতা তাদের রয়েছে। ব্যবসাও সমৃদ্ধ হচ্ছে বলে জানান তিনি।

২০০৭ সালে ব্যবসায়িক কার্যক্রম শুরু হওয়া কোম্পানিটির সাভারের আশুলিয়া ও নরসিংদীর পলাশে কারখানা রয়েছে। ভবন নির্মানে কাঁচামাল জাপান, চীন ও তাইওয়ান থেকে আমদানি করা হয়। দুটি কারখানার প্রতিমাসে ৫০০ টন প্রি-ফ্যাব্রিকেটেড স্টিলের পণ্য তৈরির সক্ষমতা রয়েছে বলে জানান সিএফও সন্তোষ চন্দ্র সাহা।

সম্প্রতি ডমিনেজ সম্পর্কে জানতে চাইলে ‘নির্মাণে চলে প্রযুক্তির খেলা’ বলেন ইস্যু ব্যবস্থাপক কোম্পানি শাহজালাল ইকুইটি ম্যানেজমেন্ট লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মহীউদ্দিন মোল্লা। বলেন, ‘এখানে সুবিধা ষোলআনা’।

ভুমিকম্প প্রবণ বিশ্বে এমন ভবন নির্মাণের পরিমাণ বাড়ছে। দেশের রাজধানীসহ অনেক শহরে স্টিল কাঠামোর ভবন নির্মাণে অনেকে এখন আগ্রহী হচ্ছেন। অনেক সুবিধার কারণে দ্রুত এই শিল্পের উন্নতি হবে বলে জানান তিনি।

প্রি-ইঞ্জিনিয়ার্ড অর্থাৎ স্টিল স্ট্রাকচারড বিল্ডিং প্রস্তুতকারী কোম্পানিটি প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে ৩০ কোটি টাকা উত্তোলন করবে।

আইপিওর মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে ৩০ কোটি টাকা মূলধন সংগ্রহ করবে। কোম্পানিটির আইপিও আবেদন আগামী ১৯ অক্টোবর শুরু হয়ে চলবে ২৫ অক্টোবর পর্যন্ত।

৩০ কোটি টাকা উত্তোলনে ১০ টাকা অভিহিত মূল্যে ৩ কোটি শেয়ার ইস্যু করবে প্রতিষ্ঠানটি। সংগৃহীত অর্থে ভবন নির্মাণ, বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম স্থাপন, যন্ত্রপাতি ক্রয় ও আইপিওর ব্যয় নির্বাহ খাতে খরচ করা হবে।

ডমিনেজের ৩০ জুন সমাপ্ত ২০১৯ হিসাব বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) ১ টাকা ৪৯ পয়সা। ২০১৯ সালের ৩০ জুন শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদমূল্য (এনএভিপিএস) দাঁড়ায় ১৯ টাকা ৮১ পয়সা।

গত পাঁচ হিসাব বছরের আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির কর-পরবর্তী নিট মুনাফার ভারীত গড়হারে ইপিএস ১ টাকা ৪৭ টাকা।

উল্লেখ্য, ইস্যু ব্যবস্থাপনায় রয়েছে শাহজালাল ইকুইটি ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here