পুঁজিবাজারে বছরের নেতিবাচক বক্তব্য

0
336

সিনিয়র রিপোর্টার : ইতিবাচক ধারায় ২০১৯ সালের শুরু থেকে পুঁজিবাজারে লেনদেন শুরু হয়। এরপর জানুয়ারি মাসের ২৭ তারিখ থেকে বাংলাদেশ ব্যাংকের মুদ্রানীতির ঘোষণাকে কেন্দ্র করে শুরু হয় সূচক পতন। তার সঙ্গে যোগ হয় দুর্বল কোম্পানির শেয়ার পুঁজিবাজার থেকে তালিকাচ্যুত করার উদ্যোগ।

এরপর লাফিয়ে লাফিয়ে দাম বৃদ্ধি হয় জেড ক্যাটাগরির এমন কয়েকটি কোম্পানিকে তালিকাচ্যুত করার প্রক্রিয়া শুরু হয়। আর তার নেতিবাচক প্রভাব পড়ে পুঁজিবাজারে। শুরু হয় ডিএসইর ওপর নিয়ন্ত্রক সংস্থার চাপ। তার সঙ্গে নতুন করে যোগ হয় পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ করতে সব বিনিয়োগকারীদের টিআইএন নম্বর বাধ্যতামূলক করবে এনবিআর।

এরপর অর্থমন্ত্রী বললেন, পুঁজিবাজারের অবস্থাকে আমি খারাপ বলবো না। এটা ঠিক আছে, ভালো আছে। পুঁজিবাজারে এখন কোনো প্রবলেম নেই। আমি তো পুঁজিবাজারের অবস্থা ঠিকই আছে দেখলাম।

তিনি পুঁজিবাজার নিয়ে বলেন, পুঁজিবাজারে কাউকে জোর করে আনতে পারবেন না। কেউ আসতে চাইলে আসবে। না আসলে নাই। মার্কেট খারাপ আমরা দেখি না। এখানে মার্কেট চলে আপনাদের দ্বারা। আপনারাই চালাচ্ছেন। আপনারা যেভাবে চালান মনে হয় যেনো বাজারই নেই।

যেভাবে একে (অঙ্কন করে) দেখান তাতে মনে হয় বাংলাদেশে শেয়ার মার্কেটেই নেই। কি যে একে দেখান তা আমি বুঝিনা। এমন বক্তব্যের পর বাজারে আরও বেশি দরপতনে নিমজ্জিত হয়।

এগুলো কাটিয়ে উঠতে না উঠতেই আসে ২০১৯-২০ অর্থ বছরের বাজেট ঘোষণা। অর্থমন্ত্রী এবং জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান বিনিয়োগকারীদের আশ্বস্ত করেন বাজেটে পুঁজিবাজারের জন্য বিশেষ প্রণোদনা দেওয়া হবে। এরপর বাজেট ঘোষণাতে বেশ কিছু প্রণোদনাও দেওয়া হয়। কিন্তু বাজেটে কোনো কোম্পানির বোনাস শেয়ার লভ্যাংশ দিলে কোম্পানিগুলোকে ১৫ শতাংশ কর প্রদান করতে হবে এমন প্রস্তাবের পর আবারও শুরু হয় দরপতন।

ঠিক এই সময়ে অর্থমন্ত্রী আবারও বলেন, পুঁজিবাজার ছাগল ও সিংহের বাজার। এখানে ছোট বিনিয়োগকারীদের ছাগল আর বড় বিনিয়োগকারীদের সিংহের সঙ্গে তুলনা করে তিনি বলেন, এই বাজারে ৫০ কোটি নয় আরও ৫ লাখ কোটি টাকা দিলেও খেয়ে ফেলবে। এখানে ৫-১০ লাখ কোটি টাকার দিয়ে কোনো লাভ নেই। অর্থমন্ত্রীর এই বক্তব্যের পর শুরু হয় দরপতন।

তার সঙ্গে যোগ হয় নতুন করে বকেয়া পাওনা গ্রামীণফোনের সঙ্গে সরকারি প্রতিষ্ঠান বিটিআরসির দ্বন্দ্ব। আর এই দ্বন্দ্বের ফলে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের শেয়ার ছাড়ার হিড়িক পড়ে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here