নেপাল-বাংলাদেশ ব্যাংকের বিনিয়োগ আইএফআইসির প্রত্যাহার

0
135

স্টাফ রিপোর্টার : নেপালের যৌথ মালিকানার ব্যাংক নেপাল-বাংলাদেশ ব্যাংক লিমিটেডের (এনবিবিএল) প্রধান উদ্যোক্তা (Promoter) বাংলাদেশের প্রথম প্রজন্মের বেসরকারি ব্যাংক ইন্টারন্যাশনাল ফাইন্যান্স অ্যান্ড কমার্স ব্যাংক লিমিটেড (আইএফআইসি ব্যাংক)। ১৯৯৪ সালে এনবিবিএল তার কার্যক্রম শুরু করে।

প্রতিষ্ঠার প্রায় ২ যুগ পর ব্যাংকটির উদ্যোক্তা আইএফআইসি ব্যাংক তার বিনিয়োগ প্রত্যহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। মঙ্গলবার (১৩ জুলাই) আইএফআইসি ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদ এনবিবিএলে থাকা সব শেয়ার বিক্রি করে ওই অর্থ বাংলাদেশে ফিরিয়ে আনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। শেয়ারের প্রত্যাশিত দাম, ক্রেতার সঙ্গে সন্তুষজনক চুক্তি আর দুই দেশের সংশ্লিষ্ট নিয়ন্ত্রক সংস্থার অনুমোদনক্রমে এই সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে।

নেপাল-বাংলাদেশ ব্যাংক সম্পর্কে-

নেপাল-বাংলাদেশ ব্যাংক যৌথ উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত একটি বাণিজ্যিক ব্যাংক। ১৯৯৪ সালের ৬ জুন ব্যাংকটি বাণিজ্যিক কার্যক্রম শুরু করে। বর্তমানে ব্যাংকটির ৮৩টি শাখা রয়েছে। এনবিবিএল ইনভেস্টমেন্ট ও এনবিবিএল সিকিউরিটিজ নামে ব্যাংকটির দুটি সাবসিডিয়ারি কোম্পানি রয়েছে।

নেপাল-বাংলাদেশ ব্যাংকে আইএফআইসির শেয়ার সংখ্যা-

নেপাল-বাংলাদেশ ব্যাংক ১৯৯৫ সালে নেপাল স্টক এক্সচেঞ্জে তালিকাভুক্ত হয়। বর্তমানে নেপাল-বাংলাদেশ ব্যাংকের মোট শেয়ার সংখ্যা ৯ কোটি ৪৮ হাজার ২১২টি। এই ব্যাংকের ৪০ দশমিক ৯১ শতাংশ শেয়ারের মালিক আইএফআইসি ব্যাংক, সংখ্যা যা ৩ কোটি ৬৮ লাখ ২৭ হাজার ৪২৬টি।

শেয়ারের বাজারমূল্য-

মঙ্গলবার (১৩ জুলাই) নেপাল স্টক এক্সচেঞ্জে নেপাল-বাংলাদেশ ব্যাংকের শেয়ার ৪১৫ থেকে ৪৫৬ রুপি দরে বিক্রি হয়েছে। শেয়ারটির ক্লোজিং মূল্য ছিল ৪৩৯ রুপি। শেয়ারটির অভিহিত মূল্য ১০০ রুপি।

আইএফআইসির ধারণকৃত শেয়ারের মূল্য-

অভিহিত মূল্য হিসেবে নেপাল-বাংলাদেশ ব্যাংকে থাকা আইএফআইসি ব্যাংকের শেয়ারের মূল্য ৩৬৮ কোটি ২৭ লাখ রুপি; বাংলাদেশী মুদ্রায় যার পরিমাণ দাঁড়ায় ২৬১ কোটি ৪৭ লাখ টাকা (১ রুপি= ০.৭১ টাকা হিসেবে)। আর আজকের বাজার মূল্যের ভিত্তিতে ওই শেয়ারের মোট মূল্য দাঁড়ায় ১ হাজার ১৪৭ কোটি ৮৭ লাখ টাকা।

তবে আইএফআইসি ব্যাংক তার ধারণকৃত শেয়ারের মূল্য হিসেবে কত পাবে তা নির্ভর করবে কত দামে ওই শেয়ার বিক্রি হয়। বিধি অনুসারে, আইএফআইসি ব্যাংককে তার শেয়ার বিক্রির জন্য নেপাল-বাংলাদেশ ব্যাংকের অন্য উদ্যোক্তাদের কাছে আগে প্রস্তাব দিতে হবে। তাদের সাথে সমঝোতা না হলে অন্যদের কাছে তা বিক্রি করা যাবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here