ধাক্কা খেয়েও ব্র্যাক ব্যাংকের মুনাফা ১৩৮ কোটি টাকা

0
1094

স্টাফ রিপোর্টার : ২০২০ সালের এপ্রিলে আমানত ও ঋণের সুদহার নির্ধারণ করে দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। ৯ শতাংশ হারে সুদ ও পরবর্তীতে আমানতের ওপর লভ্যাংশের সীমা নির্ধারণ করে দেয়ায় পুরো ব্যাংকিং খাতের আয় কমে যাচ্ছে। তা সত্ত্বেও ব্র্যাক ব্যাংক নেট ইন্টারেস্ট আয়ে ৫৪ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে।

ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেড চলতি বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে এককভাবে ১৩৮ কোটি টাকা কর-পরবর্তী নিট মুনাফা করেছে। তবে সমন্বিতভাবে সাবসিডিয়ারিসহ কর-পরবর্তী নিট মুনাফা ১২৩ কোটি টাকা, যা আগের বছরের চেয়ে ১৪ শতাংশ কম।

তবে এককভাবে নিট মুনাফা করেছে ১৩৮ কোটি টাকা, যা আগের বছরের তুলনায় ৮ শতাংশ বেশি। অন্যদিকে আমানত কমেছে আমানত ৪ শতাংশ। ব্যাংকটির তৃতীয় প্রান্তিকের আর্থিক প্রতিবেদন শুক্রবার প্রকাশ করা হলে এমন চিত্র ফুটে ওঠে।

তৃতীয় প্রান্তিকের আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী, ব্যাংকটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে শূন্য দশমিক ৯৯ টাকা ও কনসোলিডেটেড ভিত্তিতে ১ দশমিক ০২ টাকা।

কৌশলগত সিদ্ধান্তের ওপর নির্ভর করে লোন ও অ্যাডভান্স ২০২০ সালের ডিসেম্বরের তুলনায় ৫ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হয়েছে। এ সময় রিটেইল ব্যবসা অর্জনে অগ্রগামী ছিল। করপোরেট ও কমার্শিয়াল বিজনেস কিছু কৌশলগত বিষয় বিবেচনায় নিয়ে লোন প্রদান কার্যক্রম পরিচালনা করেছে।

ব্যাংক কর্তৃপক্ষ জানায়, ফান্ডিং বেস যথার্থভাবে ব্যবহারের সিদ্ধান্তে ডিসেম্বর, ২০২০ এর তুলনায় আমানত ৪ শতাংশ কমেছে। কারেন্ট অ্যাকাউন্ট সেভিং অ্যাকাউন্ট (কাসা) মিক্স তৃতীয় প্রান্তিক শেষে ৫৯ শতাংশে উন্নীত হয়েছে, যা ২০২০ সালের ডিসেম্বরে ছিল ৫৩ শতাংশ।

নন-ফান্ডেড বিজনেস লক্ষণীয় প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে। একসেপটেন্স ৫০ শতাংশ, এলসি ইস্যুয়েন্স ৭০ শতাংশ ও বিল কালেকশন ১৯ শতাংশ বেড়েছে।

২০২০ সালের এপ্রিলে থেকে ঋণের সুদহার ৯ শতাংশে বেঁধে দেওয়া ও পরবর্তীতে আমানতের ওপর লভ্যাংশের সীমা নির্ধারণ করার পর থেকে পুরো ব্যাংকিং খাতের আয় কমে যাচ্ছে। তা সত্ত্বেও ব্র্যাক ব্যাংক নেট ইন্টারেস্ট আয়ে ৫৪ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here