ডিএসইতে প্রি-ওপেনিং-পোস্ট ক্লোজিং সেশন ১৯ নভেম্বর শুরু

0
268

স্টাফ রিপোর্টার : বিশ্বের অন্যান্য দেশের পুঁজিবাজারের ন্যায় এবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জেও (ডিএসই) ১৯ নভেম্বর (বৃহস্পতিবার) থেকে চালু হতে যাচ্ছে প্রি-ওপেনিং ও পোস্ট ক্লোজিং সেশন। বিভিন্ন দেশের পুঁজিবাজারে লেনদেনের এমন সুযোগ রয়েছে। এর আগে দেশের দ্বিতীয় পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) অনেক আগে থেকে এ পদ্ধতি চালু রয়েছে। আর এই একই সেশন ডিএসইতে চালু হলেও লেনদেন কিছু হলেও বাড়বে বলে বাজার সংশ্লিষ্টদের ধারণা।

তাদের মতে, এই পদ্ধতি শুরু হলে ট্রেডিং অ্যাকাউন্টকারীদের শেয়ার ক্রয় বা বিক্রয় করার ক্ষেত্রে তাদের হিসাবে ঋণাত্মক বা নেগেটিভ হিসাব হওয়ার সম্ভাবনা কমে আসবে।

মঙ্গলবার (১৭ নভেম্বর) ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ওয়েবসাইটে এ তথ্য জানানো হয়।

এদিকে এই পদ্ধতি চালু হলে স্বাভাবিক লেনদেনের সময়ের বাইরে অতিরিক্ত ২৫ মিনিট শেয়ার কেনাবেচার আদেশ প্রদান ও লেনদেন করার সুযোগ তৈরি হবে দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই)।

এ বিষয়ে নিয়ন্ত্রক সংস্থার সূত্র জানায়, ডিএসইর প্রি-ওপেনিং ও ওপেনিং সেশন হবে সকাল পৌনে ১০টা থেকে সকাল ১০টা। সকাল ১০টায় এ বাজারে স্বাভাবিক লেনদেন শুরু হয়। এ সেশনে বিনিয়োগকারীরা শুধু শেয়ার কেনা বা বেচার আদেশ দিতে পারবেন। এ সেশনে ক্রেতা ও বিক্রেতার ক্রয় ও বিক্রয় মূল্য মিলে গেলেও স্বাভাবিক লেনদেন সময় শুরুর আগে কোনো লেনদেন সম্পন্ন হবে না। সকাল ১০টায় লেনদেনের শুরুতে যেসব আদেশের দর মিলে যাবে, সেগুলোর শেয়ার স্বয়ংক্রিয়ভাবে হাতবদল হয়ে যাবে। বাকি সময় বর্তমানের মতো স্বাভাবিক লেনদেন হবে, যা শেষ হবে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত।

সূত্রটি আরো জানায়, দুপুর আড়াইটায় স্বাভাবিক লেনদেন শেষ হওয়ার পর শুরু হবে ক্লোজিং ও পোস্ট ক্লোজিং সেশন। এর ব্যাপ্তি হবে ১০ মিনিট। এ সময়ে বিনিয়োগকারীরা নতুন করে কোনো শেয়ারদর প্রস্তাব করতে পারবেন না। শুধু ক্লোজিং প্রাইসে শেয়ার কেনা বা বেচার সুযোগ পাবেন। এ সেশন শেষ হবে দুপুর ২টা ৪০ মিনিটে।

উল্লেখ্য, ডিএসই’র আবেদনের প্রেক্ষিতে ২২ অক্টোবর (বৃহস্পতিবার) নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) এ বিষয়ে অনুমোদন দিয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here