চলছে লুব-রেফের শেয়ারে প্রান্ত-সীমা মূল্য নির্ধারণে বিডিং

0
240

সিনিয়র রিপোর্টার : প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে তহবিল সংগ্রহে লুব্রিকেন্ট কোম্পানি লুব-রেফের শেয়ার প্রান্ত-সীমা মূল্য নির্ধারণে ১২ অক্টোবর বিকাল থেকে নিলাম শুরু হয়েছে। বিডিং কার্যক্রম চলবে ১৫ অক্টোবর বিকাল তিনটা পর্যন্ত।

নিলাম সোমবার বিকালে শুরু হয়েছে এবং যোগ্য বিনিয়োগকারীরা বৃহস্পতিবার বিকাল পর্যন্ত অংশ নিতে পারবেন।

দেশে নতুন একটি পণ্যের বিশাল সম্ভাবনা নিয়ে কাজ করছে প্রতিষ্ঠানটি। বিদেশি নয়, দেশি লুব্রিকেন্ট ব্যবহারের নিশ্চয়তা এবং ব্যবসার পরিধি বাড়াতেই তহবিল সংগ্রহ করছে লুব-রেফ।

পুঁজিবাজারের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি গত ২১ অগাস্ট লুব-রেফকে আইপিওর মাধ্যমে শেয়ার ছেড়ে পুঁজিবাজার থেকে ১৫০ কোটি টাকা সংগ্রহের প্রাথমিক অনুমোদন দেয়।

লুব-রেফ (বাংলাদেশ) লিমিটেড বিএসইসিকে জানিয়েছে, এই টাকা দিয়ে তারা নতুন যন্ত্রপাতি কিনে ব্যবসা সম্প্রসারণ করবে, ব্যাংক ঋণ পরিশোধ করবে এবং প্রথমিক গণ প্রস্তাবের খরচ নির্বাহ করবে।

লুব-রেফ (বাংলাদেশ) ২০০১ সালের ১৮ নভেম্বর ব্যবসায়িক নিবন্ধন পায় এবং ২০০৬ সালের ১৮ ডিসেম্বর কার্যক্রম শুরু করে। এ কোম্পানির প্রতিষ্ঠাতা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ ইউসুফ এবং চেয়ারম্যান রুবিয়া নাহার।

লুব্রিকেন্ট অয়েল মিশ্রণ ও পরিশোধন করে ‘বিএনও লুব্রিকেন্টস’ ব্র্যান্ড নামে বিক্রি করে লুব-রেফ। ইঞ্জিন অয়েল, গিয়ার লুব্রিকেন্ট, হাইড্রলিক অয়েল, ট্রান্সফর্মার অয়েল ও গ্রিজ তাদের প্রধান পণ্য।

২০১৯ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত অর্থবছরে ১৫৩ কোটি ৩৯ লাখ টাকার পণ্য বিক্রি করে লুব-রেফ ২০ কোটি ৭৬ লাখ টাকা মুনাফা করেছে।

চট্টগ্রামের বিসিক শিল্প এলাকায় প্রায় এক একর জমির উপরে প্রতিষ্ঠিত লুব-রেফের কারখানা

কোম্পানির এমডি মোহাম্মদ ইউসুফ সম্প্রতি সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে বলেন, বর্তমানে দেশের বাজারে লুব্রিকেন্ট চাহিদার প্রায় ১০ শতাংশের যোগান দিচ্ছে তার কোম্পানি। ২০২৫ সালের মধ্যে তারা বিক্রি দ্বিগুণ করার পরিকল্পনা করেছেন।

পেট্রোকেমিক্যাল ও লুব্রিকেন্ট শিল্পে আমাদের রয়েছে প্রায় চার দশকের অভিজ্ঞতা। স্থানীয় প্ল্যান্টে লুব্রিকেন্টস প্রস্তুত করে এরই মধ্যে আমাদের ব্র্যান্ড ‘বিএনও’ বাজারের আস্থা অর্জন করেছে।

এ খাতের বিপুল চাহিদার কথা বিবেচনা করে ভবিষ্যতে ১ হাজার ৫০০ কোটি টাকা বিনিয়োগ করে কর্ণফুলী নদীর তীরে একটি ইন্ড্রাস্ট্রিয়াল থিম পার্ক প্রতিষ্ঠার পরিকল্পনার কথাও বলেন ইউসুফ।

লুব-রেফের প্রধান অর্থ কর্মকর্তা (সিএফও) মোহাম্মদ মফিজুর রহমান বলেন, পুঁজিবাজার থেকে সংগ্রহ করা অর্থ দিয়ে ব্যবসা সম্প্রসারণের মাধ্যমে আমাদের উৎপাদন সক্ষমতা ও বিক্রি বাড়ানো সম্ভব হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here