উত্থানে শুরু হলেও লেনদেনে ভাটা

0
78

স্টাফ রিপোর্টার : বেক্সিমকো লিমিটেডের বহুল আলোচিত তিন হাজার কোটি টাকার গ্রিন সুকুকের লেনদেন শুরুর দিন পুঁজিবাজারে সূচক কিছুটা বাড়লেও লেনদেন কমেছে। সুকুকেও খুব একটা লেনদেন হয়েছে এমন নয়, দিন শেষে হাতবদল হয়েছে ৩৩ কোটি টাকার বন্ড।

নতুন বছরের প্রথম সপ্তাহে পাঁচ কর্মদিবসই পুঁজিবাজারে সূচক বাড়লেও দ্বিতীয় সপ্তাহে দেখা গেছে ভিন্ন চিত্র। প্রথম দিন বড় পতন, তার পরদিন বড় উত্থান, এরপর আবার বড় পতন, শেষ দিনে আবার সূচক বৃদ্ধি।

সপ্তাহের শেষ কর্মদিবস বৃহস্পতিবার ওঠানামা করতে করতে সূচকে যোগ হয়েছে ২১ পয়েন্ট। তবে লেনদেন কমে গেছে ৪০০ কোটি টাকার বেশি।

এদিন লেনদেনে প্রধান আকর্ষণ ছিল সুকুক বন্ড। গত এক বছর ধরেই এই বন্ডটি নিয়ে তুমুল আলোচনা হচ্ছে। বন্ডটি যে লভ্যাংশের নিশ্চয়তা দিয়েছে, তা যেকোনো বিবেচনায় আকর্ষণীয়। তারপরেও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের এটি খুব একটা আকৃষ্ট করতে পেরেছে এমন নয়। পরে মূলত ব্যাংকগুলো এই বন্ডের ইউনিট কিনেছে।

বন্ডটি প্রতি বছর ন্যূনতম ৯ শতাংশ লভ্যাংশ দেবে, যার পুরোটাই করমুক্ত। আবার বেক্সিমকো লিমিটেডের লভ্যাংশ ১০ শতাংশের বেশি যতটুকু হবে, তার ১০ শতাংশ সুকুকের লভ্যাংশে যোগ হবে। প্রতি বছর সুকুকের ২০ শতাংশ টাকা তুলে নেয়া যাবে।

অথবা এই টাকার বিনিময়ে বেক্সিমকো লিমিটেডের শেয়ার নেয়া যাবে। সেই শেয়ার দেয়া হবে বাজারদরের ২৫ শতাংশ কম দামে। ফলে সেখানে ৩৩ শতাংশ বেশি মুনাফা হবে। এই বিষয়টি বিবেচনায় নিলে বছরে মুনাফা ১৬ থেকে ১৭ শতাংশ হবে নিশ্চিতভাবেই। এর চেয়ে বেশিও হতে পারে।

পুঁজিবাজারে লেনদেন শুরুর আগে সুকুকের লেনদেনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান হয়। সেখানে বক্তব্য রাখেন বেক্সিমকো লিমিটেডের ভাইস চেয়ারম্যান সালমান এফ রহমান। তিনি দেখান ব্যাংকে টাকা রাখার চেয়ে সুকুকে বিনিয়োগ করা লাভজনক।

পরে ১০০ টাকা অভিহিত মূল্যের প্রতিটি বন্ডের লেনদেন শুরু হয় ১১০ টাকায়। কিন্তু বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে দাম কমতে থাকে। দিন শেষে ১০১ টাকায় শেষ হয় এটি।

এই দিনটি বিনিয়োগকারীদের দিয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া। বেড়েছে ১৫৬টির কোম্পানির শেয়ারদর, কমেছে ১৭১টির। অপরিবর্তিত ছিল ৫৫টির।

বৃহস্পতিবার দিনভর পুঁজিবাজারে শেয়ারদরের উত্থান পতন দেখা গেছে। বছরের প্রথম কর্মদিবস ২ জানুয়ারি লেনদেন ছিল ৮৯৪ কোটি ১৭ লাখ ৮৪ হাজার টাকা। সেটি বাড়তে বাড়তে ১১ জানুয়ারি হয় ১ হাজার ৯৭৬ কোটি ৮৮ লাখ ৫৩ হাজার টাকা।

তবে এর পরের দুই দিনে কমতে কমতে সপ্তাহের শেষ দিন দাঁড়িয়েছে এক হাজার ২৪২ কোটি ৮৪ লাখ ১১ হাজার টাকা।

দিনটিতে সূচক এক দিনের ব্যবধানে আবার ৭ হাজার পয়েন্ট ছাড়িয়েছে। গত ৭ ডিসেম্বরের পর প্রথমবারের মতো তা এই ধাপ অতিক্রম করে ১১ জানুয়ারি। পর দিন আবার তা নিচে নেমে আসে। তার পরদিন তা ২১ দশমিক ১৬ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭ হাজার ১৭ পয়েন্টে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here