ইন্টারন্যাশনাল লিজিং টিকিয়ে রাখা কঠিন

0
483
বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি গভর্নর খন্দকার ইব্রাহিম খালেদ

সিনিয়র রিপোর্টার : বাংলাদেশ ব্যাংকের বিশেষ পরিকল্পনা (স্কিম) ছাড়া পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত আর্থিক প্রতিষ্ঠান ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্স সার্ভিস লিমিটেডকে টিকিয়ে রাখা কঠিন হবে বলে মনে করছেন খন্দকার ইব্রাহীম খালেদ।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক এই ডেপুটি গভর্নর হাই কোর্টের নির্দেশে ইন্টারন্যাশনাল লিজিংয়ের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করছেন।

আদালতের ডাকে সোমবার সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে উপস্থিত হয়ে কোম্পানির সার্বিক অবস্থা সম্পর্কে নিজের এই মতামত উপস্থাপন করেন ইব্রাহীম খালেদ।

তবে বাংলাদেশের ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক মো. শাহ আলম আদালতকে বলেছেন, বর্তমান পরিচালনা পর্ষদ ও ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ বিলোপ, অপসারণ, নতুন নিয়োগ বা পুনর্গঠন করা হলে হয়ত ওই কোম্পানি টিকিয়ে রাখা সম্ভব।

প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে তিন বিচারকের আপিল বেঞ্চে মঙ্গলবার তাদের বক্তব্য শোনেন। শুনানি শেষে আদালত বিষয়টি বুধবার আদেশের জন্য রাখে।

ইন্টারন্যাশনাল লিজিংয়ের এমডি পদ থেকে পি কে হালদারকে অপসারণ করে ইব্রহীম খালেদকে স্বাধীন পরিচালক ও চেয়ারম্যান নিয়োগ এবং ২০ কর্মকর্তার পাসপোর্ট জব্দ করতে হাই কোর্টের আদেশ বহাল থাকবে কি না, বুধবারই সে সিদ্ধান্ত দেবে আপিল বিভাগ।

এদিন আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম, বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী তানজিব-উল আলম। আর ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্স সার্ভিস লিমিটেডের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী আহসানুল করিম।

ইব্রহীম খালেদ আদালতে বলেন, ২০১৫ সাল পর্যন্ত ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্স সার্ভিস লিমিটড ভালোভাবেই চলছিল। ২০১৬ সাল থেকে অবস্থা খারাপ হতে থাকে। এর পেছনে মূল ব্যক্তি ছিলেন কোম্পানির এমডি প্রশান্ত কুমার হালদার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here