ইউনাইটেড এয়ারের পর্ষদ ভেঙে স্বতন্ত্র পরিচালক নিয়োগ

0
705

স্টাফ রিপোর্টার : ইউনাইটেড এয়ারের পরিচালনা পর্ষদ ভেঙে নতুন ৭ জন স্বতন্ত্র পরিচালককে দায়িত্ব দিয়েছে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এক্সচেঞ্জ কমিশন।

বিনিয়োগকারীদের স্বার্থেই এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে রোববার (২৮ ফেব্রুয়ারি) বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মোহাম্মদ রেজাউল করিম বিষয়টি জানিয়েছে।

বিএসইসির নির্দেশনায় বলা হয়েছে, ইউনাইটেড এয়ার ২০১০ সাল থেকে ১০ বছর ধরে বিনিয়োগকারীদের লভ্যাংশ দিচ্ছে না। চার বছর ধরে তাদের কার্যক্রম বন্ধ। উদ্যোক্তা পরিচালকরা ইউনাইটেড এয়ারের ৫ শতাংশের কম শেয়ার ধারণ করে আছেন।

এর আগে গত ১৩ জানুয়ারি ইউনাইটেড এয়ারকে মূল পুঁজিবাজারে থেকে সরিয়ে ‘ওভার দ্য কাউন্টার’ (ওটিসিত) এ পাঠিয়ে দিয়েছিল বিএসইসি। সেই নির্দেশনায় বলা হয়েছিল, ইউনাইটেড এয়ারের শেয়ারটি ঝুঁকিপূর্ণ এবং এই কোম্পানিটির ভিত্তি খুব দুর্বল।

এদিকে সাতজনের মধ্যে এভিয়েশন ও ভ্রমণ বিষয়ক সাময়িকী বাংলাদেশ মনিটর সম্পাদক কাজী ওয়াহিদুল আলমকে ইউনাইটেড এয়ারের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান করা হয়েছে।

এছাড়া পরিচালক করা হয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিন্যান্স বিভাগে অধ্যাপক ডা. সাদিকুল ইসলাম, মাকসুদুর রহমান সরকার, এটিএম নজরুল ইসলাম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের অধ্যাপক বদরুজ্জামান ভূঁইয়া, বাংলাদেশ চেম্বার অব ইন্ডাস্ট্রিজের পরিচালক মোহাম্মদ ইউনুস ও মোহাম্মদ শাহনেওয়াজকে।

নির্দেশনায় বিএসইসি জানায়, এই ৭ স্বতন্ত্র পরিচালকের বাইরে উদ্যোক্তা পরিচালক যারা, তারা বিএসইসির অনুমতি ছাড়া পরিচালনা পর্ষতে বসতে পারবে না। তাদের শেয়ার বিক্রি বা হস্থান্তরও করতে পারবেন না।

ইউনাইটেড এয়ারের কোনো সম্পদ বিএসইসির অনুমতি ছাড়া বিক্রি করা বা ভাড়া দেওয়া বা হস্থান্তর করা যাবে না। অপরিদেক ৭ স্বতন্ত্র পরিচালক কোনো দায় নেবে না বলে বিএসইসি জানায়।

উল্লেখ্য, ২০১০ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ইউনাইটেড এয়ারের শেয়ার বর্তমানে লেনদেন হচ্ছে ‘জেড’ ক্যাটাগরিতে। আর্থিক সঙ্কটের কারণে গত পাঁচ বছর ধরে ইউনাইটেড এয়ারওয়েজের বিমান উড্ডয়ন বন্ধ রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here