আর্থিক দৈন্যদশার কারণে সংকটে শ্যামপুর সুগার মিলস

0
60

স্টাফ রিপোর্টার : রাষ্ট্রায়ত্ত চিনিকল শ্যামপুর সুগার মিলস আর্থিক দৈন্যদশার কারণে সংকটে। বছর গড়ার সঙ্গে সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে কোম্পানিটির লোকসান। সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, বর্তমানে মিলটির কার্যক্রম স্থগিত রয়েছে।

২০১৯-২০ অর্থবছরের নিরীক্ষিত হিসাব অনুযায়ী, শ্যামপুর সুগার মিলসের পুঞ্জিভূত লোকসান ৫০৫ কোটি টাকা। এক বছরের ব্যবধানে পুঞ্জিভূত লোকসান বেড়েছে ৬০.৬৯ কোটি টাকা অর্থাৎ ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরে শ্যামপুর সুগার মিলসের পুঞ্জিভূত লোকসান ছিল ৪৪৪.৮৩ কোটি টাকা।

তবে অন্যান্য ব্যয় চলমান থাকায় ২০২০-২১ সালে ৫০ কোটি টাকার বেশি লোকসান হয়েছে, যা কোম্পানিটির মোট আয়ের চেয়ে পাঁচগুণ বেশি লোকসান। পুরনো মেশিনারিজের মাধ্যমে আখ থেকে রস আহরণ ও আশানুরূপ চিনি উৎপাদন না হওয়ায় আয়-ব্যয়ের সামঞ্জস্য ধরে রাখতে পারছে না শ্যামপুর সুগার মিলস।

লোকসান কমাতে ২০২০-২১ অর্থবছরে মিলটিসহ আরও পাঁচটি চিনিকলে আখ মাড়াই স্থগিত করে বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্প কর্পোরেশন (বিএসএফআইসি)। বর্তমানে মিলটির উৎপাদন বন্ধ, যার কারণে শ্রমিকদের বেতন-ভাতাও বন্ধ। স্থায়ী কিংবা অস্থায়ী শ্রমিকদের প্রায় ছয়মাসের বেতন বকেয়া। সর্বশেষ মার্চ মাসের বেতন দিয়েছে মিলটি।

মিলটির বর্তমান অবস্থা খুবই খারাপ বলে জানান শ্যামপুর সুগার মিলসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আহসান হাবিব। তিনি বলেন, এমন সংকট কখনোই হয়নি। ছয়মাসের বেতন-ভাতা বকেয়া। সবমিলিয়ে প্রচণ্ড সংকটময় অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।

লোকসানের কারণ হিসাবে তিনি বলেন, “মেশিনারিজ অনেক পুরনো, লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী আখ থেকে রস ও চিনি আহরণ সম্ভব হচ্ছে না। তবে মিলটির অব্যবহৃত জমির পরিমাণ অনেক। এই জমির যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিতে কিছু বিকল্প প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।” মিলটির জমির সঠিক ব্যবহার নিশ্চিত করা গেলে একে লাভজনক করা সম্ভব বলে মনে করেন তিনি।

বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্প কর্পোরেশনের মাসিক ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেম (এমআইএস) প্রতিবেদন অনুযায়ী, ২০২০-২১ অর্থবছরে শ্যামপুর সুগার মিলসের আয় হয়েছে প্রায় ১২ কোটি টাকা। আর এই আয়ের বিপরীতে লোকসান হয়েছে ৫০.৪৫ কোটি টাকা। প্রতি মাসে গড়ে ৪ কোটি টাকা করে লোকসান করেছে শ্যামপুর সুগার মিলস।

মিলটির সবচেয়ে বেশি লোকসান হয়েছে ২০২০ সালে ডিসেম্বরে। এই মাসে কোম্পানিটির মোট আয় ছিল ৩০.৪২ লাখ টাকা। তবে লোকসান হয়েছে ৮.৫৪ কোটি টাকা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here