শাহীনুর ইসলাম : কুমিল্পার রপ্তানি প্রক্রিয়াজাতকরণ (ইপিজেড) এলাকায় গত বছরের এপ্রিলের দ্বিতীয় সপ্তাহে আরএন স্পিনিং মিলস লিমিটেডের কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে দুটি ইউনিট পুড়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এতে কোম্পানির প্রায় ৬১২ কোটি ৩২ লাখ ৮১ হাজার ৯৮৯ টাকা ক্ষতি হয়েছে।

বন্ধ হওয়ার দীর্ঘ সময় পরে কারখানায় উৎপাদন কার্যক্রম শুরু করার প্রস্তুতি নিয়েছে কোম্পানির কর্তৃপক্ষ। একই সঙ্গে আরএন স্পিনিং কোম্পানিকে ক্ষতিপূরণ দিতে বিমাদাবি পূরণকারী প্রতিষ্ঠান ইউনিয়ন ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড ৩টি সার্ভেয়ার কোম্পানিকে নিয়োগ দিয়েছে। কোম্পানি ৩টি হলো- সিটিং ইন্সপেকশন, দি ইঞ্জিনিয়ার্স সার্ভে এসোসিয়েটস এবং ফেভারিট সার্ভেয়ার।

আগুনে কারখানার কি পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে তা নির্ধারণে কোম্পানি নিয়োগ দেয়া হয়েছে। কোম্পানিগুলো কুমিল্লা ইপিজেডে মালামাল সরিয়ে ক্ষতি নির্ধারণের চেষ্টা করছে বলে জানান ইউনিয়ন ইন্স্যুরেন্স কোম্পানির শীর্ষ কর্মকর্তা মি. আজহার।

তারা নির্ধারণ করলে বীমাদাবির বিষয়টি আসে। তারপরে পরিশোধের বিষয়টি নীতিনির্ধারণী কর্মকর্তাদের হাতে বলেন তিনি।

কুমিল্লার ইপিজেডে ১০০ থেকে ১০৭ এবং ১২৭ থেকে ১৩৪ প্লটের পুড়ে যাওয়া কোম্পানির সব কলকব্জা সরানো হচ্ছে জানান আরএন স্পিনিং মিলস লিমিটেডের কোম্পানি সেক্রেটারি হান্নান মোল্লা।

ইপিজেডে পুড়ে যাওয়া মালামাল

তিনি বলেন, ইউনিয়ন ইন্স্যুরেন্স ক্ষতি নির্ধারণ করতে তাদের সার্ভেয়ার দিয়ে কোম্পানির পোড়া মালামাল সরিয়ে নিচ্ছে। এরপরে কোম্পানির ক্ষতি নির্ধারণ করে পূরণ করা হলেই আমরা কোম্পানি চালু করবো। তারা যতো তাড়াতাড়ি বিমাদাবি পরিশোধ করবে ততো তাড়াতাড়ি আমরা কোম্পানির উৎপাদন চালু করতে পাববো। আমাদের সব ধরণের প্রস্তুতি রয়েছে।

শেয়ার হোল্ডারদের আমরা ্‌ইতোমধ্যে আর্থিক বিবরণীতে সে সব কথা প্রকাশ করেছি জানান তিনি। তবে বিমাদাবির টাকার পরিমাণ তিনি উল্লেখ করেননি।

২০১০ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভূক্ত আরএন স্পিনিং মিলের সুতার কারখানায় ২০১৯ সালের এপ্রিলে অগ্নিকাণ্ডে কারখানার মেশিনারিজ নষ্ট, সুতা পুড়ে যায় এবং স্থাপনার দেয়াল ধসে পড়ে। এতে কোম্পানির ক্ষতির পরিমাণ দাঁড়ায় প্রায় ৬১২ কোটি ৩২ লাখ ৮১ হাজার ৯৮৯ টাকা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here