ডিসেম্বরে শেষ এভিন্স টেক্সটাইলসের আইপিও প্রকল্প

0
1117

স্টাফ রিপোর্টার : নির্ধারিত সময় অর্থাৎ চলতি বছরের ডিসেম্বরের মধ্যেই শেষ হতে যাচ্ছে এভিন্স টেক্সটাইলসের আইপিও প্রকল্প। এরই মধ্যে ভবন ও স্থাপনা নির্মাণ কার্যক্রমের ৮৫ শতাংশ শেষ হয়েছে। এছাড়া যন্ত্রপাতি আমদানি ও স্থাপনের কাজ শেষ হয়েছে ৯৫ শতাংশ। প্রকল্পটি সম্পন্ন হলে কোম্পানির উৎপাদন, বিক্রি ও মুনাফায় ইতিবাচক প্রভাব পড়বে বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা।

এভিন্স টেক্সটাইলের প্রধান অর্থ কর্মকর্তা খায়রুল ইসলাম খান জানান, ২০১৭ সালের ডিসেম্বরের মধ্যেই আইপিও প্রকল্পের কার্যক্রম সম্পন্ন হবে। কারখানায় ডায়িং, রেপিং, সিজিং, ওয়েভিং ও ফিনিশিং এ পাঁচ ধাপে পণ্য উৎপাদন হয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হলে কোম্পানির উৎপাদন, বিক্রি ও মুনাফায় ইতিবাচক প্রভাব পড়বে।

আইপিও তহবিল ব্যবহার-সংক্রান্ত প্রতিবেদন অনুসারে, ২০১৬ সালের জুন থেকে চলতি বছরের আগস্ট পর্যন্ত ১৫ মাসে ভবন ও স্থাপনা নির্মাণ বাবদ ৬ কোটি ৬২ লাখ টাকা ৩৫ হাজার ৭১১ টাকা বা ৮৫ দশমিক ৪১ শতাংশ অর্থ ব্যয় হয়েছে। আর যন্ত্রপাতি আমদানি, স্থাপন, ইলেকট্রিক্যাল ফিটিংস ও পাইপিং কার্যক্রমে ৭ কোটি ৪০ লাখ ৫৮ হাজার ৬৭৭ টাকা বা ৯৫ দশমিক ২৫ শতাংশ অর্থ ব্যয় হয়েছে।

আগামী চার মাসে ভবন নির্মাণ খাতে ১ কোটি ১৩ লাখ ১৫ হাজার ৭৮৯ টাকা বা ১৪ দশমিক ৫৯ শতাংশ এবং যন্ত্রপাতি আমদানি ও স্থাপন বাবদ ৩৬ লাখ ৮৯ হাজার ৩২৩ টাকা বা ৪ দশমিক ৭৫ শতাংশ অর্থ ব্যয় করতে হবে কোম্পানিটিকে।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৫৬৯তম সভায় এভিন্স টেক্সটাইলসের আইপিও অনুমোদন হয়। ১০ টাকা অভিহিত মূল্যে বাজারে ১ কোটি ৭০ লাখ শেয়ার বিক্রি করে মোট ১৭ কোটি টাকা সংগ্রহ করার লক্ষ্যে ২০১৬ সালের ২-১২ মে আইপিওর চাঁদা গ্রহণ করে বস্ত্র খাতের কোম্পানি এভিন্স টেক্সটাইলস লিমিটেড। প্রসপেক্টাস অনুসারে, এ অর্থ মেশিনারিজ ক্রয়, ভবন নির্মাণ, চলতি মূলধন জোগান ও আইপিও প্রক্রিয়ার ব্যয় নির্বাহে খরচ করছে কোম্পানি।

এদিকে বুধবার অনুষ্ঠিত পর্ষদ সভায় ৩০ জুন সমাপ্ত ২০১৬-১৭ হিসাব বছরের জন্য ১০ শতাংশ স্টক লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে এভিন্স টেক্সটাইলস। ২০১৬ সালের জুলাই থেকে ২০১৭ সালের জুন পর্যন্ত কোম্পানিটি ১৮ কোটি ৫৬ লাখ টাকা কর-পরবর্তী মুনাফা করেছে। শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) দাঁড়িয়েছে ১ টাকা ২৮ পয়সা।

৩০ জুন শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য (এনএভিপিএস) ১৪ টাকা ৭৩ পয়সা এবং শেয়ারপ্রতি নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো (এনওসিএফপিএস) হয়েছে ২ টাকা ৭৮ পয়সা। রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ১২ অক্টোবর। আগামী ৩০ অক্টোবর বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে। তবে এজিএমের স্থান ও সময় পরে জানানো হবে।

কোম্পানিটির অনুমোদিত মূলধন ১৫০ কোটি ও পরিশোধিত মূলধন ১৪৪ কোটি টাকা। রিজার্ভ ৬১ কোটি ৬১ লাখ টাকা। বর্তমানে কোম্পানির মোট শেয়ারের ৩৬ দশমিক ৬৭ শতাংশ এর উদ্যোক্তা-পরিচালকদের কাছে। প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের হাতে ১৬ দশমিক ৮৮ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীর হাতে রয়েছে বাকি ৪৬ দশমিক ৪৫ শতাংশ শেয়ার।

বোনাস শেয়ার সমন্বয়ের পর সর্বশেষ নিরীক্ষিত ইপিএস ও বাজারদরের ভিত্তিতে এ শেয়ারের মূল্য আয় (পিই) অনুপাত ১৩ দশমিক শূন্য ৯, হালনাগাদ অনিরীক্ষিত মুনাফার ভিত্তিতে যা ১৪ দশমিক শূন্য ৯।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here