ঋণমান ‘ট্রিপল এ’ খুলনা পাওয়ারের

0
613

স্টাফ রিপোর্টার : দীর্ঘমেয়াদে খুলনা পাওয়ার কোম্পানি লিমিটেডের (কেপিসিএল) ঋণমান ‘ট্রিপল এ’ ও স্বল্পমেয়াদে ‘এসটি-ওয়ান’। কোম্পানির ২০১৬ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত নিরীক্ষিত, ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন ও প্রাসঙ্গিক অন্যান্য তথ্য পর্যালোচনা করে এ প্রত্যয়ন করেছে ক্রেডিট রেটিং ইনফরমেশন অ্যান্ড সার্ভিসেস লিমিটেড (সিআরআইএসএল)।

২০১৫ সালের ১ জানুয়ারি থেকে ২০১৬ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত ১৮ মাসের জন্য মোট ৭৫ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছে খুলনা পাওয়ার। এর মধ্যে ২০১৫ সালের ৩১ পর্যন্ত এক বছরের জন্য ৪০ শতাংশ অন্তর্বর্তী নগদ লভ্যাংশ দিয়েছে বিদ্যুৎ খাতের তালিকাভুক্ত কোম্পানিটি।

সর্বশেষ নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুসারে, গেল হিসাব বছরে খুলনা পাওয়ারের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৯ টাকা ৮২ পয়সা। ৩০ জুন শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদমূল্য (এনএভিপিএস) দাঁড়ায় ২৪ টাকা ৬৩ পয়সা।

এদিকে চলতি হিসাব বছরের প্রথমার্ধে (জুলাই-ডিসেম্বর) প্রতিষ্ঠানটির ইপিএস হয়েছে ২ টাকা ৫২ পয়সা, আগের বছর একই সময়ে যা ছিল ২ টাকা ৮০ পয়সা। ৩১ ডিসেম্বর প্রতিষ্ঠানটির এনএভিপিএস দাঁড়ায় ২৭ টাকা ১৫ পয়সা।

ডিএসইতে সোমবার সর্বশেষ ৬৩ টাকা ৩০ পয়সায় খুলনা পাওয়ারের শেয়ার হাতবদল হয়। সমাপনী দরও ছিল ৬৩ টাকা ৩০ পয়সা, আগের কার্যদিবসে যা ছিল ৬৩ টাকা ২০ পয়সা। দিনভর দর ৬৩ টাকা ১০ পয়সা থেকে ৬৩ টাকা ৭০ পয়সার মধ্যে ওঠানামা করে। গত এক বছরে শেয়ারটির সর্বোচ্চ দর ছিল ৭৫ টাকা ২০ পয়সা ও সর্বনিম্ন ৬০ টাকা ৫০ পয়সা।

খুলনা পাওয়ার শেয়ারবাজারে আসে ২০১০ সালে। বর্তমানে কোম্পানিটির পরিশোধিত মূলধন ৩৬১ কোটি ২৮ লাখ ৫০ হাজার, অনুমোদিত মূলধন ৭০০ কোটি ও রিজার্ভ ৫২৮ কোটি ৫৪ লাখ টাকা। মোট শেয়ারের ৭০ দশমিক ৫৯ শতাংশ কোম্পানির উদ্যোক্তা-পরিচালকদের কাছে, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী ১৫ দশমিক ৪২, বিদেশী বিনিয়োগকারী ১ দশমিক শূন্য ১ ও বাকি ১২ দশমিক ৯৮ শতাংশ শেয়ার রয়েছে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের হাতে।