ডেস্ক রিপোর্ট : বৈশ্বিক তুলার বাজারে চলতি বছর দীর্ঘমেয়াদে ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা বজায় থাকবে। চলতি বছর তুলার বৈশ্বিক চাহিদা হবে এর সরবরাহের তুলনায় বেশি। ফলে ২০১৪ থেকে গত বছর পর্যন্ত দুই বছরের মূল্যস্তরের বেশ ওপরেই থাকতে যাচ্ছে পণ্যটির দাম।

অস্ট্রেলিয়ান ব্যুরো অব এগ্রিকালচারাল অ্যান্ড রিসোর্স ইকোনমিকস অ্যান্ড সায়েন্স (এবিএআরইএস) প্রতিষ্ঠানটি সাম্প্রতিক এক প্রতিবেদনে তথ্যটি প্রকাশ করেছে।

প্রতিষ্ঠানটির প্রতিবেদনে পূর্বাভাস দেয়া হয়, কয়েক বছরের মধ্যে বৈশ্বিক তুলার মজুদ হ্রাস পাবে উল্লেখযোগ্য হারে। দুই বছর আগে বৈশ্বিক তুলার মজুদ বেড়ে দাঁড়িয়েছিল রেকর্ড ২ কোটি ৪৩ লাখ টনে। সেখান থেকে ২০২১-২২ সালের মধ্যে তা কমে দাঁড়াবে ১ কোটি ৬০ লাখ টনে।

এবিআরইএসের ভাষ্য অনুযায়ী, অব্যাহত দরবৃদ্ধির সুযোগ নিতে গিয়ে উৎপাদনকারী দেশগুলোর কৃষকরা পণ্যটির আবাদ বাড়িয়ে তুলবেন। অন্যদিকে বাজারের চাঙ্গাভাবের কারণে বিকল্প পণ্যগুলোর তুলনায় তুলা হয়ে উঠবে বেশি লাভজনক।

ফলে আগামী কয়েক বছর পণ্যটির বৈশ্বিক উৎপাদন বৃদ্ধির হার স্থিতিশীল থাকবে বার্ষিক ২ শতাংশ হারে। এর বিপরীতে এ সময়ের মধ্যে বিশ্বব্যাপী ভুট্টার উৎপাদন বাড়লেও, এ প্রবৃদ্ধির হার হবে তুলনামূলক শ্লথ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here