৫ কোটির নিচে মূলধন ১৮টি কোম্পানির, লাফিয়ে বাড়ছে দর!

0
8743

সিনিয়র রিপোর্টার : ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ লেনদেন এবং সূচক বেশ সন্তোজনক। হতাশার চেয়ে অনেক আশাবাদী বাজার সংশ্লিষ্টরা। তবে মৌলভিত্তিক কোম্পানিগুলোর শেয়ার দরে বড় কোনো পরিবর্তন দেখা যায়নি। কিন্তু স্বল্প মূলধনী ১৮ টি কোম্পানি বা উৎপাদন বন্ধ এমন কোম্পানির শেয়ারে ঊর্ধগতির প্রভাব বেশি। লাফিয়ে বাড়ছে শেয়ারের দর।

স্বল্প মূলধনী কোম্পানিগুলো হলো- অ্যাম্বি ফার্মা (২ কোটি ৪০ লাখ টাকা), দেশ গার্মেন্টস (৩ কোটি ৩৭ লাখ টাকা), ইস্টার্ন লুব্রিকেন্টস (১ কোটি টাকা), লিবরা ইনফিউশন (১ কোটি ২৫ লাখ টাকা), মুন্নু জুট স্ট্যাফলার্স (৪ কোটি টাকা), নর্দার্ন জুট (১ কোটি ৭৯ লাখ টাকা), ফার্মা এইড (৩ কোটি ১২ লাখ টাকা), রহিম টেক্সটাইল (২ কোটি ৪৭ লাখ টাকা), রেকিট বেনকিজার (৪ কোটি ৭৩ লাখ টাকা)।

স্বল্প মূলধনী কোম্পানির তালিকায় রয়েছে- রেনউইক যজ্ঞেশ্বর (২ কোটি টাকা), সোনালি আঁশ (২ কোটি ৭১ লাখ টাকা), স্টাইল ক্র্যাফট (৬০ লাখ টাকা), মডার্ন ডায়িং (১ কোটি ৩৭ লাখ টাকা), সাভার রিফ্র্যাক্টরিজ (১ কোটি ৪০ লাখ টাকা), জুট স্পিনার্স (১ কোটি ৭০ লাখ টাকা), জেমিনি সি ফুড (১ কোটি ১০ লাখ টাকা), কে অ্যান্ড কিউ (৪ কোটি ৯০ লাখ টাকা), বিডি অটোকারস (৩ কোটি ৬০ লাখ টাকা) ও আজিজ পাইপস (৪ কোটি ৯০ লাখ টাকা)।

অ্যাম্বি ফার্মা : ২ কোটি ৪০ লাখ টাকা পরিশোধিত মূলধনী কোম্পানি অ্যাম্বি ফার্মার শেয়ার দর বিগত এক বছরের ব্যবধানে সর্বোচ্চ ১২৫.৭০ শতাংশ বা ৩৩২.৫০ টাকা বেড়েছে। চলতি বছরে কোম্পানিটির সর্বনিম্ন শেয়ার দর ছিল ২৬৪.৫০ টাকা, যা সেপ্টেম্বরে সর্বোচ্চ ৫৯৭ টাকায় লেনদেন হতে দেখা যায়।

দেশ গার্মেন্টস : ৩ কোটি ৩৭ লাখ টাকা পরিশোধিত মূলধনী কোম্পানি দেশ গার্মেন্টসের শেয়ার দর বিগত এক বছরের ব্যবধানে সর্বোচ্চ ১৪২.২৯ শতাংশ বা ২১৯ টাকা বেড়েছে। চলতি বছরে কোম্পানিটির সর্বনিম্ন শেয়ার দর ছিল ১৫৫ টাকা, যা নভেম্বরে সর্বোচ্চ ৩৭৪ টাকায় লেনদেন হতে দেখা যায়।

ইস্টার্ন লুব্রিকেন্টস : ৯৯ লাখ ৪০ হাজার টাকা পরিশোধিত মূলধনী কোম্পানি ইস্টার্ন লুব্রিকেন্টের শেয়ার দর বিগত এক বছরের ব্যবধানে সর্বোচ্চ ৩৯৯.৩৩ শতাংশ বা ১১৯৮ টাকা বেড়েছে। চলতি বছরে কোম্পানিটির সর্বনিম্ন শেয়ার দর ছিল ৩০০ টাকা, যা মে মাসে সর্বোচ্চ ১৪৯৮ টাকায় লেনদেন হতে দেখা যায়।

লিবরা ইনফিউশন : ১ কোটি ২৫ লাখ টাকা পরিশোধিত মূলধনী কোম্পানি লিবরা ইনফিউশনের শেয়ার দর বিগত এক বছরের ব্যবধানে সর্বোচ্চ ১৯২.২৫ শতাংশ বা ৫৪৫.৯ টাকা বেড়েছে। চলতি বছরে কোম্পানিটির সর্বনিম্ন শেয়ার দর ছিল ২৮৪.১ টাকা, যা আগস্ট মাসে সর্বোচ্চ ৮৩০ টাকায় লেনদেন হতে দেখা যায়।

মুন্নু জুট স্ট্যাফলার্স : ৪০ লাখ টাকা পরিশোধিত মূলধনী কোম্পানি মুন্নু জুট স্ট্যাফলার্সের শেয়ার দর বিগত এক বছরের ব্যবধানে সর্বোচ্চ ১৪০.১৯ শতাংশ বা ৩৭৮.৮ টাকা বেড়েছে। চলতি বছরে কোম্পানিটির সর্বনিম্ন শেয়ার দর ছিল ২৭০.২০ টাকা, যা মে মাসে সর্বোচ্চ ৬৪৯ টাকায় লেনদেন হতে দেখা যায়।

নর্দার্ন জুট : ১ কোটি ৭৯ লাখ টাকা পরিশোধিত মূলধনী কোম্পানি নর্দার্ন জুট স্পিনার্সের শেয়ার দর বিগত এক বছরের ব্যবধানে সর্বোচ্চ ৯২.৩৫ শতাংশ বা ১৮০ টাকা বেড়েছে। চলতি বছরে কোম্পানিটির সর্বনিম্ন শেয়ার দর ছিল ১৯৪.৯০ টাকা, যা সেপ্টেম্বর মাসে সর্বোচ্চ ৩৭৪.৯০ টাকায় লেনদেন হতে দেখা যায়।

রহিম টেক্সটাইল : ২ কোটি ৪৭ লাখ টাকা পরিশোধিত মূলধনী কোম্পানি রহিম টেক্সটাইলের শেয়ার দর বিগত এক বছরের ব্যবধানে সর্বোচ্চ ১০৫ শতাংশ বা ২১০ টাকা বেড়েছে। চলতি বছরে কোম্পানিটির সর্বনিম্ন শেয়ার দর ছিল ২০০ টাকা, যা আগস্ট মাসে সর্বোচ্চ ৪১০ টাকায় লেনদেন হতে দেখা যায়।

জেমিনি সি ফুড : ১ কোটি ১০ লাখ টাকা পরিশোধিত মূলধনী কোম্পানি জেমিনি সি ফুডের শেয়ার দর বিগত এক বছরের ব্যবধানে সর্বোচ্চ ৪০৬.৬৬ শতাংশ বা ১২২০ টাকা বেড়েছে। চলতি বছরে কোম্পানিটির সর্বনিম্ন শেয়ার দর ছিল ৩০০ টাকা, যা আগস্ট মাসে সর্বোচ্চ ১৫২০ টাকায় লেনদেন হতে দেখা যায়।

এছাড়া কে অ্যান্ড কিউ’র ১১৮.২৩ শতাংশ, রেনউইক যজ্ঞেশ্বরের ২৬৬.৭২ শতাংশ, স্টাইল ক্র্যাফটের ১১৬.০২ শতাংশ, মডার্ন ডায়িংয়ের ৩৭১.২৩ শতাংশ, বিডি অটোকারসের ১৭৫.৬৯ শতাংশ ও আজিজ পাইপসের ১৪৪.৯৬ শতাংশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here