বিডিকমের কম লভ্যাংশ প্রদানে ক্ষুব্ধ বিনিয়োগকারী

0
1010

মোহাম্মদ তারেকুজ্জামান : বিডিকম অনলাইন লিমিটেডের গত বছরের তুলনায় চলতি (৩০ জুন ২০১৬ সমাপ্ত) অর্থবছরে প্রফিট বেশ ভালো করেছে। তবে আশানুরুপ লভ্যাংশ পায়নি সাধারণ বিনিয়োগকারীরা। ফলে কোম্পানিটিতে অনেক বিনিয়োগকারী ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারী কাজল আহমেদ স্টক বাংলাদেশকে বলেন, গত বছর বিডিকম অনলাইন লিমিটেড প্রায় ৬ কোটি টাকা প্রফিট করেছিল। চলতি বছরে তা সামান্য বেড়ে ৬ কোটি ৭০ লাখ টাকা প্রফিট করে। অথচ গত বছর শেয়ারহোল্ডারদের বোনাস ও ক্যাশসহ ১৫ শতাংশ লভ্যাংশ দেয়া হলেও সমাপ্ত বছরে বোনাস ও ক্যাশ মিলে দেয়া হয়েছে ১২ শতাংশ ডিভিডেন্ড। যা তুলনামূলক অনেক কম।

তিনি বিডিকম অনলাইনের শেয়ার ধারণ নিয়েও মন্তব্য করেন। লভ্যাংশ কমে আসায় শেয়ার দরে সেই প্রভাব পড়ে বলে জানান কাজল।

দেশের অনেক আইটি কোম্পানি প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে ব্যবসা সম্প্রসারণ এবং নতুন পলিসি গ্রহণ করছে। কিন্তু বিডিকম অনলাইন তাদের বিপরীত, নতুন ব্যবসা বৃদ্ধি নিয়ে কিছু করছে না। ব্যবসা সম্প্রসারণ বৃদ্ধি না করে এবং অন্য কোম্পানিগুলোর সঙ্গে প্রতিযোগিতায় টিকতে পারছে না। ফলে কোম্পানি তার বাজার হারিয়ে ফেলছে। যে কারণে শেয়ারহোল্ডারদেরও আশানুরুপ লভ্যাংশ দিতে পারছে না কোম্পানিটি।

আরেক বিনিয়োগকারী মোহাম্মদ শামীম স্টক বাংলাদেশকে বলেন, বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এন্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)’র রুলস রয়েছে- পুঁজিবাজারের তালিকাভূক্ত কোম্পানিগুলোর স্পন্সর ডাইরেক্টরদের সর্বনিম্ন ৩০ শতাংশ শেয়ার থাকতে হবে। কিন্তু বিডিকম অনলাইন লিমিটেডের স্পন্সর ডাইরেক্টরদের রয়েছে মাত্র ২৩ শতাংশ। কোম্পানির উদ্যোক্তাদের বিভিন্ন সুবিধার জন্য আরো শেয়ার ধারণ করা দরকার মনে করেন শামীম।

একই সঙ্গে কমিশনের নীতিমালা অনুযায়ী উদ্যোক্তাদের শেয়ার ধারণ নিয়েও প্রশ্ন তোলেন তিনি।

উদ্যোক্তাদের শেয়ার ধারণ নিয়ে বিডিকম অনলাইন লিমিটেডের কোম্পানি সচিব স্টক বাংলাদেশকে বলেন, বিএসইসি’র রুলস রয়েছে- যেসব কোম্পানির স্পন্সর-ডাইরেক্টরদের ৩০ শতাংশ শেয়ার নেই, তারা রাইট ও পাবলিক অফারসহ অন্যান্য সুবিধা পাবে না। আমরা রাইট বা পাবলিক অফারের কোন আবেদন করিনি। যে কারণে আমরা কমিশনের রুলস লঙ্ঘন করিনি।

এদিকে রোববার, ২৫ ডিসেম্বর রাজধানীর ধানমন্ডিতে বার্ষিক সাধারণ সভায় কোম্পানির চেয়ারম্যান ওয়াহিদুল হক সিদ্দিক বলেন, গত বছরের তুলনায় ব্যয় প্রচুর বেড়েছে। যে কারণে ৩০ জুন ২০১৬ সমাপ্ত অর্থবছরে শেয়ারহোল্ডারদের গত বছরের তুলনায় কম লভ্যাংশ দেয়া হয়েছে।

তবে আগামীতে বাড়বে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here