আগামী বছরে ‘লেনদেন হবে ১৫শ কোটি’ টাকা: রশিদ লালী

0
3783

রাহেল আহমেদ শানু : আগামি বছরের জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারি মাসে লেনদেন আরো বাড়বে। লেনদেন ১২শ থেকে ১৫শ কোটি টাকা হবে। এমনটাই আশা করছি আমরা, অর্থনীতির সব ইন্ডিগেটরও তাই বলছে। লেনদেন হাজার কোটি ছাড়াবে -ইনশাআল্লাহ।

প্রত্যাশার এমন কথা বলেন ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ব্রোকার্স এ্যাসোসিয়েশনের (ডিবিএ) প্রেসিডেন্ট আহমেদ রশিদ লালী। আস্থার পুঁজিবাজার গঠনে সরকার এবং নিয়ন্ত্রক সংস্থা ইতোমধ্যে যে বিশাল সংস্কার করেছে তারই ফসল আগামী বছরে ঘরে উঠেবে বলেন তিনি।

সম্ভাবনার গল্পে বুধবার ডিবিএ প্রেসিডেন্ট বলেন, সরকার এবং নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি পুঁজিবাজারের জন্য যেসব কাজ করেছে তার সুফল পাওয়া যাবে আগামীতে। ইতোমধ্যে অনেক বিনিয়োগকারী তা পাচ্চেন।

‘আস্থা অর্জনের’ কথায় তিনি বলেন, আমাদের বাজার দেশ-বিদেশের ইনভেস্টরদের এখন আস্থাভাজন। প্রতিদিনই নতুন বিনিয়োগ বাজারে আসছে। আমরা তাদের আস্থার সেই স্থল তৈরি করে দিয়েছি, যে কারণে তারা বিনিয়োগ করছেন। তারা আরো বিনিয়োগে আসবেন, আমরা সে পরিবেশ তৈরি করেছি এবং এখনো করছি। যে কারণে আমরা আরো আশাবাদী।

অতীতকে তুলে দরে তিনি বলেন, অনেক আগেই বলেছি ২০১৬ সালে বাজার উত্থানে যাবে। এখন আবার বলছি, ২০১৭ সাল হবে পূর্ণাঙ্গ স্থিতিশীল একটি বাজার; যা আমরা প্রত্যাশা করি। সরকার এবং নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসির অনেক সংস্কার কাজের মাধ্যমে সেই পরিবেশ আসছে এবং আমরা সেই সম্ভাবনার পথেই এখন হাঁটছি।

পুঁজিবাজার নিয়ে ‘তিন যুগের অভিজ্ঞতার’ কথা উল্লেখ করে রশিদ লালী বলেন, বাজার উত্থানের সব প্যারামিটার এ মুহূর্তে উর্ধমুখী। সব ইন্ডিগেটর জানান দিচ্ছে, স্বয়ংক্রিয়ভাবেই সামনে অগ্রসর হবে বাজার। তাছাড়া উন্নয়ন এবং অর্থনীতির সব প্যারামিটার এখন স্বাভাবিক এবং ভালো অবস্থানে রয়েছে।

আলোচনার শেষেও তিনি আবারো স্টক বাংলাদেশ বলেন, জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারি মাসে ডিএসইর লেনদেন ১২’শ থেকে ১৫’শ কোটি টাকা হবে। কোন বিকল্প নেই। অর্থনীতির সব ইন্ডিগেটরও তাই বলছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here