স্টাফ রিপোর্টারঃ শেয়ার কেনার চেয়ে বিক্রির পরিমাণ বেশি থাকায় সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবস সোমবার দেশের দুই শেয়ারবাজারে দরপতন হয়েছে। একইসঙ্গে উভয় বাজারে লেনদেনের পরিমাণও কমেছে। সোমবার ডিএসইতে ৪৫৬ কোটি ৭১ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে; যা আগের দিনের তুলনায় ২৭ কোটি ১১ লাখ টাকা কম লেনদেন। গতকাল ডিএসইতে ৪৮৩ কোটি ৮৩ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছিল।

Screenshot_3

দিনভর সূচকের ওঠানামার পর সোমবার ঢাকার বাজারে সূচক কমেছে ১৬.৬৭ পয়েন্ট। এ পতনের ফলে ডিএসই সূচক ফের ৪ হাজার ৬৯২ পয়েন্টে নেমে গেছে। দিনশেষে সূচক গিয়ে দাঁড়িয়েছে ৪৬৯২.৯৪ পয়েন্টে। অপরদিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সিএসই সার্বিক সূচক ৯৫ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১৪ হাজার ৩৯১ পয়েন্টে।

Screenshot_2

এদিকে সোমবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ এর – ডিএসইএক্স ইনডেক্স দিনের প্রথম ভাগে ক্রয়চাপের ফলে বেশ কিছুটা ঊর্ধ্বমুখী প্রবনতা দেখা গেলেও দিনভর সেল প্রবনতাই লক্ষ্য করা যায় এবং দিনের শেষ ভাগে কিছুটা ক্রয়চাপ হলেও নিন্মমুখির কারনে বেয়ারিশে লেনদেন শেষ হয় । আর আর ফলে ডি.এস.ই এক্স ইনডেক্সে আজ বেয়ারিশ ক্যান্ডেলস্টিক দেখা যায়।

বর্তমানে ডিএসই এক্স ইনডেক্স এর পরবর্তী সাপোর্ট ৪৬৫৫ পয়েন্টে এবং রেজিটেন্স ৪৭১৩ পয়েন্টে অবস্থান করছে।  আজ বাজারে আরএসএই ( RSI) এর মান ছিল ৬১.৩২।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়, আজ ডিএসইতে মোট লেনদেনে অংশ নেয় ৩২২টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৯৩টির, কমেছে ১৭৩টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৫৬টির শেয়ার দর।

chart (1)

এদিকে ডিএসইএক্স বা প্রধান মূল্য সূচক ১৬ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ৪ হাজার ৬৯২ পয়েন্টে। ডিএসইএস বা শরীয়াহ সূচক ৭ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে এক হাজার ১১৬ পয়েন্টে। আর ডিএস৩০ সূচক ১০ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে এক হাজার ৭৫৪ পয়েন্টে।

অন্যদিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও (সিএসই) সূচকের পতনে লেনদেন শেষ হয়েছে। আজ সিএসইতে ২৮ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। সিএসই সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৯৫ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৪ হাজার ৩৯১ পয়েন্টে। সিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ২৪৭টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৭৪টির, কমেছে ১৪৩টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩০টির।