মোহাম্মদ তারেকুজ্জামান :  প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর থেকেই ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্সের দৃঢ় অবস্থানে পৌঁছাতে অনেক বাধা বিপত্তির সম্মুখিন হতে হয়েছে। এখনও নানা প্রতিকূল পরিবেশের সম্মুখিন হতে হচ্ছে। তবে সব প্রতিকূলতার মাঝেও ২০১৫ সালে কোম্পানি ভালো ব্যবসা করেছে। সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানির ব্যবসার পরিমাণ ছিল ৭ হাজার ৮শ’ ১৫ দশমিক ৮৯ মিলিয়ন টাকা। যা বাংলাদেশের জীবন বীমা কোম্পানিগুলোর মধ্যে অন্যতম।

সোমবার রাজধানীর কারওয়ানবাজারে এনএলআই টাওয়ার অডিটরিয়ামে ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্সের ৩১ তম বার্ষিক সাধারণ সভায় (এজিএম) প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান মোরশেদ আলম এমপি এসব কথা বলেন।

মোরশেদ আলম বলেন, ২০১৫ সালে পলিসি গ্রাহকদের পরিশোধিত অর্থের পরিমাণ ছিল ৬ হাজার ৫শ’ ১৮ দশমিক ৯১ মিলিয়ন টাকা। যা ২০১৪ সালের তুলনায় ৪০ দশমিক ২৪ শতাংশ বেশি। কোম্পানিকে অতিরিক্ত মৃত্যুজনিত দাবী পরিশোধ করার কারণেই এই অর্থের পরিমাণ বৃদ্ধি পেয়েছে।DSC03968

তিনি আরও বলেন, ২০১৫ সালে কোম্পানির মোট আয় ছিল ১০ হাজার ৭শ’ ৯১ দশমিক ১৯ মিলিয়ন টাকা। পূর্ববর্তী বছরে যা ছিল ১০ হাজার ৫শ’ ২৮ দশমিক ৭৬ মিলিয়ন টাকা। তবে কোম্পানির আয় বৃদ্ধির সাথে সাথে ব্যবস্থাপনা ব্যয় কিছুটা বৃদ্ধি পেয়েছে। ২০১৫ সালে ব্যবস্থাপনা ব্যয় ছিল ২ হাজার ৪শ’ ৩ দশমিক ৯৬ মিলিয়ন টাকা। আর ২০১৪ সালে যা ছিল ২ হাজার ৩শ’ ১০ দশমিক ২৩ মিলিয়ন টাকা।

DSC03973
ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্সের ৩১ তম বার্ষিক সাধারণ সভায় উপস্থিত শেয়ারহোল্ডাররা

মোরশেদ আলম শেয়ারহোল্ডারসহ কোম্পানি সংশ্লিষ্ট সকলের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনাদের সহযোগিতা পেলে ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্সের উন্নয়ন ও অগ্রগতির প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে।

সভায় উপস্থিত শেয়ারহোল্ডারদের সম্মতিক্রমে তিনি বেশ কিছু এজেন্ডা পাশ করেন। এজেন্ডাগুলোর মধ্যে ৩১ ডিসেম্বর,২০১৫ তারিখে সমাপ্ত বছরের কোম্পানির ডাইরেক্টর্স অ্যান্ড অডিটরস রিপোর্ট ও অডিটেড একাউন্টস গ্রহণ ও বিবেচনা করা। এছাড়াও সমাপ্ত হিসাব বছরের বোর্ড কর্তৃক সুপারিশকৃত ৪০ শতাংশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা।

DSC03975মোরশেদ আলমের সভাপতিত্বে এজিএমে উপস্থিত ছিলেন, কোম্পানির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল মোনেম, পরিচালকবৃন্দ মাহমুদুল হক তাহের, তোফাজ্জল হোসেন, কে এম হাবীব জামান ও সাধারণ শেয়ারহোল্ডাররা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here