আইপিওভুক্ত ইয়াকিন পলিমারের ‘আমলনামা’

0
3628
প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে ইয়াকিন পলিমার লিমিটেড ২০ কোটি টাকা সংগ্রহের অনুমোদন পেয়েছে। বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) ১৯ মে অনুমোদন প্রদান করে।

বিএসইসি জানায়, ইয়াকিন পলিমার লিমিটেড পুঁজিবাজারে ২ কোটি শেয়ার ছেড়ে ২০ কোটি টাকা সংগ্রহ করবে। কোম্পানির শেয়ারপ্রতি অভিহিত মূল্য ১০ টাকা। কোম্পানি পুঁজিবাজার থেকে উত্তোলিত টাকা দিয়ে মেশিন ক্রয়, কারখানা স্থাপন ও প্রশাসনিক ভবন নির্মাণ এবং আনুষঙ্গিক খাতে ব্যয় করবে।

৩০ জুন, ২০১৫ হিসাব বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় হয়েছে ১ টাকা ৪১ পয়সা। আর শেয়ারপ্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ১৪ টাকা ৬১ পয়সা।

Screenshot_2কোম্পানির চেয়ারম্যান হলেন মি. কাজী আনোয়ারুল হক। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তিনি হিসাব বিজ্ঞানে মাস্টার্স করেন। বর্ণাঢ্য জীবনে ব্যসায়িক পলিসিতে সমৃদ্ধি অর্জনে পরবর্তীতে তিনি বিপিজিএমইএ -এর ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত হন।

ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে আছেন মি. এম এম আক্তার কবির। তিনি Satkhira Feed Industries Ltd and Yeakin Agro Products Ltd এর পরিচালক। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে হিসাব বিজ্ঞানে মাস্টার্স এবং পরবর্তীতে সিএ সম্পন্ন করেন। আক্তার কবির দীর্ঘদিন থেকে উৎপাদন ব্যবস্থাপনা নিয়ে কাজ করছেন।

Screenshot_1একই সঙ্গে কোম্পানিতে আরো ৬ জন পরিচালক আছেন। তারা হলেন- কাজী নজিবুল হক, এস এম মনিরুজ্জামান, এস কে জামাল হোসাইন, মিসেস জুলিয়া পারভীন, মিসেস সাবরিনা সামাদ এবং ইন্ডিপেনডেন্ট পরিচালক হলেন মি. সিদ্দিকুর রহমান।

ইয়াকিন পলিমারের সাতক্ষীরা ফিড ইন্ডাস্ট্রিজ নামে একটি প্রতিষ্ঠান দক্ষিণাঞ্চলে ব্যাপক সুনাম অর্জন করেছে। এ প্রতিষ্ঠানের সাফল্যের পর ইয়াকিন পলিমার নতুন সাফল্যের সঙ্গে যুক্ত হয়। তৈরি করতে থাকে সামাজিক Screenshot_4বিভিন্ন পণ্য।

তৈরি পণ্য তালিকার মধ্যে রয়েছে- পিপি ওভেন রোল বা রেগুলার ব্যাগ, ওভেন রোল বা রেগুলার ব্যাগ, ফ্লেক্সিবল প্যাকেজিং ম্যটারিয়াল, ট্রান্সপোর্ট প্রডাক্ট, রোল স্টকসসহ প্রায় ২০ ধরণের পণ্য।

Screenshot_3প্রতিযোগতিায় টিকতে কোম্পানি আরো নতুন পণ্য উৎপাদন করতে যাচ্ছে। ইতোমধ্যে ইয়াকিন পলিমার বিদেশে পণ্য রপ্তানীর করতে ইউরোপ এবং আফ্রিকায় নতুনভাবে অর্ডার পেয়েছে বলে তাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করেছে।

কোম্পানিটি ২০০১ সালে পাবিলিক লিমিটেড কোম্পানিতে পরিণত হওয়ার পরে পণ্য আমদানী এবং রপ্তানী করতে সরকার অনমোদন দেয়। কোম্পানিটি বর্তমানে আইএসও সনদপ্রাপ্ত।

Screenshot_5কোম্পানির নিজস্ব কারখানা রয়েছে সাতক্ষীরায় লুবসায়। এখান থেকে কোম্পানির উৎপাদন করা হয়। দেশি-বিদেশি কাঁচামাল এবং স্থানীয় শ্রমিক দিয়ে উৎপাদন ব্যবস্থা সমুন্নত করা হয়।

Screenshot_6ইয়াকিন পলিমারের খুলনায় রয়েছে আঞ্চলিক কার্যালয়। পাশে মংলা নৌবন্দর দিয়ে রপ্তানী এবং ব্যবসায়িক সমৃদ্ধির জন্য আঞ্চলিক অফিস নেয়া হয়েছে। এছাড়া রাজধানীর মালিবাগে রয়েছে কোম্পানির কেন্দ্রীয় কার্যালয়। কোম্পানিটির ইস্যু ম্যানেজার হিসেবে কাজ করেছে ইম্পেরিয়াল ক্যাপিটাল লিমিটেড ও ফ্যাস ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড।

কেম্পানি আগামী সম্পর্কে ইম্পেরিয়াল ক্যাপিটাল লিমিটেডের সিইও সালহউদ্দিন শিকদার স্টক বাংলাদেশকে বলেন, কোম্পানির গ্রোথ বেশ ভালো। আশা করা যায়, এটি বেশ ভালো করবে। কারণ, কোম্পানি পরিচালনা পর্ষদ বেশ অভিজ্ঞ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here