`ভবিষ্যতে বিনিয়োগকারি পাওয়া যাবে না’

5
3024

মোহাম্মদ তারেকুজ্জামান : কমতে শুরু করেছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ(ডিএসই) এর প্রধান মূল্য সূচক। সোমবার (২৮ মার্চ) ডিএসইতে প্রধান মূল্য সূচক দিনশেষে ৫৩ পয়েন্ট কমে অবস্থান নেয় ৪ হাজার ৩০২ পয়েন্টে। যা গত ১০ মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন অবস্থান। তবে মঙ্গলবার লেনদেনের শুরুতে সূচক সোমবারের তুলনায় ১৬ পয়েন্ট বেড়ে ৪ হাজার ৩১৮ পয়েন্টে অবস্থান নিলেও বেলা বাড়ার সাথে সাথে তা আবার কমতে শুরু করেছে। মঙ্গলবার বেলা সোয়া ১টায় প্রধান মূল্য সূচক অবস্থান করছে ৪ হাজার ৩১০ পয়েন্টে। দিন শেষে সূচক আরও কমতে পারে বলে মনে করেন একাধিক বিনিয়োগকারী।

মঙ্গলবার সোয়া ১টা পর্যন্ত ডিএসইতে ১৭৪ কোটি ৪৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।  ২৯৭টি কোম্পানি ও মিউচ্যুাল ফান্ড অংশ নেয়। যার মধ্যে দর বেড়েছে ১৬৬টির, কমেছে ৭১টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৬০টির শেয়ারের দর।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক বিনিয়োগকারী ডেইলি স্টক বাংলাদেশকে বলেন, দীর্ঘদিন ধরেই পুঁজিবাজার বিনিয়োগকারীরা ক্ষতির মধ্যে রয়েছে। যে কারণেই ক্যাপিটাল মার্কেটের উপর দিন দিন তারা আস্থা হারিয়ে ফেলছে। লসে শেয়ার বিক্রি করে শেয়ারবাজার থেকে বেড়িয়ে যাচ্ছে।

তারা আরও বলেন, শেয়ারবাজারের অবস্থা খুবই খারাপ। বিনিয়োগকারীদের আকৃষ্ট করতে ধুম্রজাল সৃষ্টি করে সরকার বিভিন্ন সময় বিভিন্ন লোভনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করে। লোভনীয় পদক্ষেপে যারাই ইতোমধ্যে পা দিয়েছে তারাই ধ্বংস হয়ে গেছে। বিনিয়োগকারীরা এখন বুঝতে পেরেছে শেয়ারবাজার আর কখনই ভালো হবে না। যে কারণে লসে শেয়ার বিক্রি করছে। এতে করে লেনদেন বাড়ছে। এই লেনদেনের মধ্যে অধিকাংশই বিনিয়োগকারীই সেলার।

তারা শেয়ারবাজারের উপর হতাশা প্রকাশ করে বলেন, নতুন করে তেমন কেউ এখন পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ করতে আসছে না। যার প্রভাব পড়ছে ক্যাপিটাল মার্কেটের উপর। সামনে শেয়ারবাজারের পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ। এভাবে চলতে থাকলে ভবিষ্যতে একটা সময় আসবে যখন পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ করার মতো কোন মানুষ খুঁজে পাওয়া যাবে না।

5 COMMENTS

  1. কেউ তো আমাদের কে এখানে আসতে বলেনাই, আমরা এসেছি নিজের লাভের আশায় , ক্ষতি হলেও নিজেকে বহন করতে হবে, খেলা র রেফারি যদি একপক্ষকে
    সুযোগ দেয় অন্যপক্ষকে ধরাশায়ী করে রাখে, তাহলে কি ফেয়ার প্লে হল??????

  2. অনেক বছর অনেক মাস অনেক দিন অপেক্খা করে ৫০% লসে শেয়ার সেল দিয়েছি। বািকগুলো ৬০% /৫৫% লস এ সেল দিয়ে শেয়ার বাজার থেকে টা – টা ছাড়া উপায় নাই।

  3. অাশা জেেগছিল কেয়া দিয়ে ২২টাকায় কেনা ডিভিডেন্ট দিয়ে গড় দাম হলো ২০টাকা এসে ঠেকল ১৪/১৫ টাকায়। ওয়েষ্টন মেরিন ৬০টাকা গড় করলাম ৫০টাকা এখন দাম তার ২৩টাকা। অবাক হওয়ার মত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here