৮ কোম্পানির মধ্যে ৪টির ইপিএস বৃদ্ধি

0
5259

স্টাফ রিপোর্টার : পুঁজিবাজারের তালিকাভূক্ত ৮টি কোম্পানির মধ্যে ৪ কোম্পানির ইপিএস কমেছে এবং ৪টি কোম্পানির বেড়েছে। যে সব কোম্পানির ইপিএস কমেছে সেগুলো হচ্ছে- পেনিনসুলা চিটাগং লিমিটেড, ইনভেস্টমেন্ট কোর্পোরেশন অব বাংলাদেশ (আইসিবি), সায়হাম টেক্সটাইল মিলস লিমিটেড ও যমুনা অয়েল কোম্পানি।

পাশাপাশি যেসব কোম্পানির ইপিএস বেড়েছে সেগুলো হলো- আল হাজ্ব টেক্সটাইল মিলস লিমিটেড, বেঙ্গল ইউন্ডোসার থার্মোপ্লাস্টিক লিমিটেড, আনোয়ার গ্যালভানাইজিং লিমিটেড ও বারাকা পাওয়ার লিমিটেড। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের ওয়েবসাইট সূত্রে এসব তথ্য জানা যায়।

পেনিনসুলা চিটাগং লিমিটেডের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩৪ পয়সা। আগের বছর একই সময় কোম্পানিটির ইপিএস ছিল ৩৫ পয়সা। সে হিসেবে কোম্পানিটির ইপিএস কমেছে ২ দশমিক ৮৬ শতাংশ। কোম্পানিটির দ্বিতীয় প্রান্তিকের (অক্টোবর, ১৫-ডিসেম্বর, ১৫) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদনে এ তথ্য বেরিয়ে আসে।

উল্লেখ্য, গত ৬ মাসে (জুলাই,১৫ – ডিসেম্বর,১৫) কোম্পানিটি শেয়ার প্রতি আয় করেছে ৭২ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস ছিল ৭০ পয়সা।

আইসিবি প্রথম ৬ মাসে শেয়ার প্রতি কনসোলিডেটেড আয় (ইপিএস) করেছে ১ টাকা ৫২ পয়সা। আগের বছর একই সময় কোম্পানিটির কনসোলিডেটেড ইপিএস ছিল ২ টাকা ০২ পয়সা। এ হিসাবে কোম্পানির ইপিএস কমেছে ২৪ দশমিক ৭৫ শতাংশ। কোম্পানিটির অর্ধবার্ষিকী প্রান্তিকের (জুলাই, ১৫- ডিসেম্বর, ১৫) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদনে এ তথ্য বেরিয়ে আসে।

সায়হাম টেক্সটাইল মিলস লিমিটেডের প্রথম ৬ মাসে শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) করেছে ৪৩ পয়সা। আগের বছর একই সময় কোম্পানিটির ইপিএস ছিল ১ টাকা ২১ পয়সা। এ হিসাবে কোম্পানির ইপিএস কমেছে ৬৪ দশমিক ৪৬ শতাংশ। কোম্পানিটির অর্ধবার্ষিকী প্রান্তিকের (জুলাই, ১৫- ডিসেম্বর, ১৫) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদনে এ তথ্য বেরিয়ে আসে।

যমুনা অয়েল কোম্পানি লিমিটেডের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩ টাকা ০৯ পয়সা। আগের বছর একই সময় কোম্পানিটির ইপিএস ছিল ৪ টাকা ১৫ পয়সা। সে হিসেবে কোম্পানিটির আয় কমেছে ২৫ দশমিক ৫৪ শতাংশ। কোম্পানিটির দ্বিতীয় প্রান্তিকের (অক্টোবর, ১৫-ডিসেম্বর, ১৫) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদনে এ তথ্য বেরিয়ে আসে।

উল্লেখ্য, গত ৬ মাসে (জুলাই,১৫-ডিসেম্বর,১৫) কোম্পানিটি শেয়ার প্রতি আয় করেছে ৮ টাকা ৩৯ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস ছিল ১০ টাকা ৫৯ পয়সা।

আল-হাজ্ব টেক্সটাইল মিলস লিমিটেডের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৪৬ পয়সা। আগের বছর একই সময় কোম্পানিটির ইপিএস ছিল ২১ পয়সা। সে হিসেবে কোম্পানিটির আয় বেড়েছে ১১৯ শতাংশ। কোম্পানিটির দ্বিতীয় প্রান্তিকের (অক্টোবর, ১৫-ডিসেম্বর, ১৫) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদনে এ তথ্য বেরিয়ে আসে।

উল্লেখ্য, গত ৬ মাসে (জুলাই,১৫- ডিসেম্বর,১৫) কোম্পানিটি শেয়ার প্রতি আয় করেছে ৭২ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস ছিল ৪৫ পয়সা।

আনোয়ার গ্যালভানাইজিং লিমিটেডের শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১৭ পয়সা। আগের বছর একই সময় কোম্পানিটির ইপিএস ছিল ১১ পয়সা। সে হিসেবে কোম্পানিটির আয় বেড়েছে ৫৪ দশমিক ৫৫ শতাংশ। কোম্পানিটির দ্বিতীয় প্রান্তিকের (অক্টোবর, ১৫-ডিসেম্বর, ১৫) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদনে এ তথ্য বেরিয়ে আসে।

উল্লেখ্য, গত ৬ মাসে (জুলাই, ১৫- ডিসেম্বর,১৫) কোম্পানিটি শেয়ার প্রতি আয় করেছে ৩৫ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস ছিল ৩১ পয়সা।

বেঙ্গল উইন্ডসোর থার্মোপ্লাস্টিক লিমিটেডের শেয়ার প্রতি কনসোলিডেটেড আয় (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ২৭ পয়সা। আগের বছর একই সময় কোম্পানিটির ইপিএস ছিল ১ টাকা ০১ পয়সা। সে হিসেবে ইপিএস বেড়েছে ২৫ দশমিক ৭৪ শতাংশ। কোম্পানিটির দ্বিতীয় প্রান্তিকের (অক্টোবর, ১৫-ডিসেম্বর, ১৫) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদনে এ তথ্য বেরিয়ে আসে।

উল্লেখ্য, গত ৬ মাসে (জুলাই,১৫-ডিসেম্বর,১৫) কোম্পানিটি শেয়ার প্রতি কনসোলিডেটেড আয় করেছে ১ টাকা ৭৬ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস ছিল ২ টাকা ০৫ পয়সা।

বারাকা পাওয়ার লিমিটেডের প্রথম ৬ মাসে শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) করেছে ১ টাকা ৬১ পয়সা। আগের বছর একই সময় কোম্পানিটির কনসোলিডেটেড ইপিএস ছিল ১ টাকা ৪১ পয়সা। এ হিসাবে কোম্পানির ইপিএস বেড়েছে ১৪ দশমিক ১৮ শতাংশ। কোম্পানিটির অর্ধবার্ষিকী প্রান্তিকের (জুলাই, ১৫- ডিসেম্বর, ১৫) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদনে এ তথ্য বেরিয়ে আসে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here