সরকার ৭৩ হাজার বৈদ্যুতিক খুঁটি কিনছে

0
412

স্টাফ রিপোর্টার : প্রত্যন্ত অঞ্চলে বিদ্যুৎ পৌঁছে দিতে প্রায় ১২৩৪ কোটি টাকার খুঁটি কেনার জন্য বেশ কয়েকটি প্রকল্প প্রস্তাবে সায় দিয়েছে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি।

সচিবালয়ে বুধবার অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের সভাপতিত্বে বৈঠকে এই অনুমোদনের সুপারিশ করা হয়।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোস্তাফিজুর রহমান পরে এ বিষয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন।

তিনি জানান, মোট ১২৩৪ কোটি ৯ লাখ ৪২ হাজার টাকা ব্যয়ে ছয় লাখ ১৯ হাজার ২১১টি বৈদ্যুতিক খুঁটি স্থাপন করা হবে।

এর মধ্যে ১১৬১ কোটি ২৩ লাখ ৫৪ হাজার টাকায় ৫ লাখ ৮১ হাজার ৪৯৪টি এসপিসি খুঁটি কেনা হবে এবং ৭২ কোটি ৮৫ লাখ ৯২ হাজার টাকায় কাঠের খুঁটি কেনা হবে ৩৭ হাজার ৭১৭টি।

বিভিন্ন প্রকল্পের মধ্যে পল্লী বিদ্যুতায়ন সম্প্রসারণ চট্টগ্রাম-সিলেট বিভাগীয় কার্যক্রম-২ প্রকল্পের আওতায় ৫৫ হাজার ৪৬৪টি এসপিসি খুঁটি কেনার কাজ পেয়েছে কনফিডেন্স পাওয়ার লিমিটেড। এতে ব্যয় হবে ১১১ কোটি ৫২ লাখ ৫৩ হাজার টাকা।

‘পল্লী বিদ্যুতায়ন সম্প্রসারণ ঢাকা বিভাগীয় কার্যক্রম-২’ প্রকল্পের আওতায় ৫২ হাজার ৮৪৬টি খুঁটি কিনবে মেসার্স দাদা ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি লিমিটেড; যাতে ব্যয় ধরা হয়েছে ১০৫ কোটি ২০ লাখ ৩২ হাজার টাকা।

পল্লী বিদ্যুতায়ন সম্প্রসারণ খুলনা বিভাগীয় কার্যক্রম-২ প্রকল্পের আওতায় ৩১ হাজার ৪২০টি এসপিসি খুঁটি কেনার কাজ পেয়েছে মেসার্স পোলস অ্যান্ড কনক্রিট লিমিটেড। এই কাজে ব্যয় হবে ৬৩ কোটি ৮৬ লাখ টাকা।

পল্লী বিদ্যুতায়ন সম্প্রসারণ বরিশাল বিভাগীয় কার্যক্রম-২ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় এসপিসি খুঁটি ক্রয়ের অনুমোদন পেয়েছে মেসার্স চরকা এসপিসি পোলস লিমিটেড। ২৬ হাজার ৫২৪টি খুঁটি কিনতে ব্যয় হবে ৫৩ কোটি ২০ লাখ ৯৪ হাজার কোটি টাকা।

পল্লী বিদ্যুতায়ন সম্প্রসারণের মাধ্যমে ১৫ লাখ গ্রাহক সংযোগ প্রকল্পের আওতায় ২ লাখ ৩৭ হাজার ৬৪০টি খুঁটি সংগ্রহ করা হবে। ৪৭৬ কোটি ৭৯ লাখ ৩৯ হাজার টাকার এই কাজ করবে একাধিক ঠিকাদার।

একই প্রকল্পের আওতায় মেসার্স নরডিক উডস লিমিটেডের মাধ্যমে ৭২ কোটি ৮৫ লক্ষ ৯২ হাজার টাকায় ৩৭ হাজার ৭১৭টি কাঠের খুঁটি সংগ্রহ করা হবে।

পল্লী বিদ্যুতায়ন সম্প্রসারণ রাজশাহী-রংপুর বিভাগীয় কার্যক্রম-২ প্রকল্পের আওতায় এসপিসি খুঁটি কেনার একটি দর প্রস্তাবে সম্মতি দিয়েছে কমিটি।

এখানে সর্বনিম্ন দরদাতা হিসেবে জেমকন লিমিটেড কাজটি পেয়েছে। প্রতিষ্ঠানটি ৪৪ হাজার ৮৫২টি খুঁটি স্থাপনে ব্যয় করবে ৮৯ কোটি ২৮ লাখ টাকা।

আর পল্লী বিদ্যুতায়ন সম্প্রসারণের মাধ্যমে ১৮ লাখ গ্রাহক সংযোগ প্রকল্পের আওতায় ১ লাখ ৪২ হাজার ৭৪৮টি খুঁটি কেনার কাজ পেয়েছে চার প্রতিষ্ঠান।

এগুলো হচ্ছে, কনফিডেন্স পাওয়ার লিমিটেড, মেসার্স টিএসসিও পাওয়ার লিমিটেড, মেসার্স রয়াল গ্রিন প্রোডাক্টস লিমিটেড, মেসার্স কনট্রে কন্সট্রাকশন লিমিটেড। এসব কিনতে ব্যয় হবে ২৮৫ কোটি ৩৫ লাখ ৫৮ হাজার টাকা।

পল্লী বিদ্যুতায়ন সম্প্রসারণ রাজশাহী-রংপুর বিভাগীয় কার্যক্রম-২ প্রকল্পের আওতায় ডিস্ট্রিবিউশন ট্রান্সফরমার ক্রয়ের প্রস্তাব অনুমোদনের সুপারিশ করা হয় বৈঠকে।

টিএস ট্রান্সফর্মার লিমিটেড এই কাজ পেয়েছে। ৭৭ কোটি ৮ লাখ ৫ হাজার টাকায় ১০ হাজার ৩৬৮টি ট্রান্সফর্মার ক্রয় করা হবে।

একই প্রতিষ্ঠান সিলেট বিভাগের জন্যও এই পণ্য সরবরাহের কাজ পেয়েছে। ১২ হাজার ৭শ ট্রান্সফর্মার ৯৩ কোটি ৩৬ লাখ ৩৫ হাজার টাকায় তারা সরবরাহ করবে।

এর বাইরে বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের আওতাধীন বড়পুকুরিয়ায় কয়লাভিত্তিক ২৫০ মেগাওয়াটের দুই ইউনিটের ওভারহেলিং কাজের জন্য ক্রয় প্রস্তাবে অনুমোদনের সুপারিশ করেছে কমিটি।

বড় পুকুরিয়ার কাজের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সিএমসি অ্যান্ড এসইসির  মাধ্যমে ১৯১ কোটি ৭ হাজার ৭৪৮ টাকায় এই কাজ করা হবে।

পল্লী বিদ্যুতায়ন সম্প্রসারণ ঢাকা বিভাগীয় কার্যক্রম-২ এর আওতায় টেকনো ভেনসার লিমিটেডের মাধ্যমে ১২ হাজার ৫৩টি ডিস্ট্রিবিউশন ট্রান্সফর্মার সংগ্রহের সিদ্ধান্ত হয়েছে, যার মূল্য ৮৬ কোটি ৫৭ লাখ ১ হাজার টাকা।

পল্লী বিদ্যুতায়ন সম্প্রসারণ চট্টগ্রাম-সিলেট বিভাগীয় কার্যক্রম-২ এর আওতায় কনডাকটর, এসিএসআর এবং বেয়ার ক্রয়ের কাজ পেয়েছে পলি কেবল লিমিটেড। যার পরিমাণ ৮ হাজার ৫৪০ কিলোমিটার। দাম পড়বে ৫৩ কোটি ৩৫ লাখ ৫৫ হাজার টাকা।

পল্লী বিদ্যুতায়ন সম্প্রসারণের মাধ্যমে ১৫ লাখ গ্রাহক সংযোগ প্রকল্পের আওতায় লাইন হার্ডওয়ার ক্রয়ের প্রস্তাবে সর্বনিম্ন দরদাতা হিসেবে কাজটি পেয়েছে পাশা ইলেকট্রনিক্স লিমিটেড।

বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের অধীনে চট্টগ্রাম জোনের বিদ্যুৎ বিতরণ সিস্টেম উন্নয়ন প্রকল্পের অধীনে চট্টগ্রাম ও সন্দ্বীপের মধ্যে সাবমেরিন কেবল ও সাব স্টেশন স্থাপনের কাজ পেয়েছে মেসার্স জেটিটি-এসবিএসএ-সিসিএ কনসোর্টিয়াম চায়না। ১৪৪ কোটি ৫০ লাখ টাকা ব্যয় হবে এই প্রকল্পে। প্রকল্পের আওতায় ট্রান্সফর্মার ও এক্সেসোরিজও কেনা হবে।

এছাড়াও ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৮৫ মেগাওয়াট গ্যাসভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের মেয়াদ বৃদ্ধি ও বর্ধিত মেয়াদের জন্য ট্যারিফ অনুমোদন করেছে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here