৩৩ কোম্পানির শেয়ার ঝুঁকিপূর্ণ, বিনিয়োগে সতর্ক থাকার পরামর্শ

44
84206

স্টাফ রিপোর্টার :




দেশের পুঁজিবাজার এখন বিনিয়োগ উপযোগী। কারণ বাজারের সার্বিক পিই রেশিও এখন অতীতের তুলনায় কম। তারপরও বর্তমান বাজারে ৩৩টি কোম্পানির পিই রেশিও বেশি, যে কারণে কোম্পানিগুলোর শেয়ার বিনিয়োগের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। তাই  উচ্চ পিই সম্পন্ন কোম্পানিতে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে সতর্কতা অবলম্বনের পরামর্শ দিয়েছেন বিশ্লেষকরা।

ডিএসই সূত্রে জানা গেছে, বর্তমান বাজার পরিস্থিতির প্রেক্ষিতে কোনো কোম্পানির পিই রেশিও ২০ ছাড়ালেই তা বিনিয়োগের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ। অন্যদিকে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনও (বিএসইসি) মার্জিন ঋণের যোগ্যতা হিসেবে সর্বোচ্চ  ৪০ পিই রেশিও বেঁধে দিয়েছে। এ হিসেবেও ৪০ পর্যন্ত পিইধারী শেয়ার বিনিয়োগের জন্য নিরাপদ বলে মনে করে বিএসইসি।

প্রাপ্ত তথ্যানুযায়ী, ডিএসইতে যেসব পিই রেশিও ৪০ এর ঊর্ধ্বে থাকা কোম্পানিগুলো হচ্ছে- এসিআই লিমিটেড (১১০.১৫), এমবি ফার্মা (৫৩.৭৪), আনলিমা ইয়ার্ন ডায়িং লি. (৭৪.৭২), এপেক্স স্পিনিং ও নিটিং মিলস লি. (৪৬.৩৪), বঙ্গজ (৯৮.৪১), বাংলাদেশ থাই অ্যালুমিনিয়াম লি. (৪১.১২), বিডি ওয়েল্ডিং (৪২.৭৩), বিআইএফসি (১৩২), বেক্সিমকো সিনথেটিক্স (৬০.৩৪) কোম্পানি।




তালিকায় রয়েছে- বাংলাদেশ থাই অ্যালুমিনিয়াম লি. ( ৭০), ঢাকা ইলেকট্রিক সাপ্লাই কোম্পানি লি. ( ২৫১.৬৭), দেশবন্ধু পলিমার লি. (৪০.৮৯), ইস্টার্ন লুব্রিকেন্টস লি. (৬০.৭৫), ইস্টার্ন ক্যাবলস (১২৯.৫৬), এক্সপোর্ট ইমপোর্ট ব্যাংক অব বাংলাদেশ লি. (৯৩৭.৫), হাক্কানি পাল্প ও পেপার মিলস লি. (৭৭.৭৫-৩), জেএমআই সিরিঞ্জ ও মেডিকেল ডিভাইস লি. (১০৫.৫৬), লিগ্যাসি ফুটওয়ার লি. (১১৫) কোম্পানি।

আরো রয়েছে- লিবরা ইনফিউশন (৮৫.৯২), মিরাকল ইন্ডাস্ট্রিজ লি. (১৬৬.৬), মডার্ন ডায়িং অ্যান্ড স্ক্রিন প্রিন্টিং লি. (৫৪.৮৬), মুন্নু সিরামিক ইন্ডাস্ট্রিজ লি. (৫২.১৯), মুন্নু জুট স্টাফলার লি. (৫৮.১২), ন্যাশনাল টিউব লি. (৪৮.১), ফার্মা এইডস (৪৬.৩৬), প্রিমিয়ার লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্স লি. (২৫৫), প্রাইম ব্যাংক লি. (৪২.৮৬), রহিম টেক্সটাইল মিলস লি. (১২০.৩৬), সাভার রিফ্র্যাক্টরিজ (১৫০.৭৫), সোনালী আঁশ (১৩১), স্টান্ডার্ড সিরামিক ইন্ডাস্ট্রিজ লি. (৭২.৫) ও ইউনিয়ন ক্যাপিটাল (১২০.৭১) কোম্পানি লিমিটেড।

এ প্রসঙ্গে পুঁজিবাজার বিশেষজ্ঞ অ্যাডভোকেট হাসান মাহমুদ বিপ্লব বলেন, পিই রেশিও ৪০ এর উপরে থাকা কোম্পানিগুলোতে বিনিয়োগকারীদের বিনিয়োগ করা উচিত নয়। কারণ এসব কোম্পানিতে বিনিয়োগ করা নিরাপদ নয়, এতে লোকসানের আশঙ্কা অনেক বেশি থাকে। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য যে, আমাদের দেশের অধিকাংশ বিনিয়োগকারী পিই রেশিও না দেখে বিনিয়োগ করার কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। তাই বাজারের এ অবস্থায় বিনিয়োগকারীদের সতর্কতার সঙ্গে বিনিয়োগ করা উচিত।

44 মন্তব্য

  1. Mr. Biplob is correct in some extent. As an international standard P/E ( Price to Earnings) ratio is one of the most imprtant factors that experts like Mr. Warren Buffet, Ben Graham and more gurus like them very much considered while buying or holding any stock. However, I do agree with other readers/commentators that mere P/E is not the only factor that decides the fate of the stock. But it gives you lights how far that particular stock will be risky to buy/hold. There are other factors, like volume, performace, demand/supply, earnings, dividend, pay-out ratio, dividend yields, price trends, moving average, convergent-divergent, RSI, and many more factors that general investors cannot understand so easily than proper training, need to be considered before buying any stock. So just do not go and through your hard earned money into stocks unless you get expert advices from expereinced brokers, investors, teachers, traders, etc. to make money from stocks. Ok? Hope your money is in safe hand! Wish you all good luck while trading in stocks. But don’t just listen to rumors,ok?

  2. আমি মনে করি এইসব শেয়ারে হাত না দিয়ে ১০ থেকে ১৫টাকার ভিতর গেমলিং শেয়ার কিনা ভালো কোন এক সময় গেম করলে ৭থেকে ১২টাকা পাওয়া যেতে পারে। ধন্যবাদ।।

  3. Dhaka Electric Supply (DESCO) ঢাকা ইলেক্ট্রিক সাপ্লাই-এর PE Ratio দেখানো হয়েছে ২৫১.৬৭ যা ঝুকিপূর্ণ, অথচ ডিএসই ওয়েবসাইটে দেখানো হয়েছে ১৪.৩১. This is confusing and misleading. Pl mention correct PE Ratio of this particular item .

    • ভাই আপনি যদি ৩ মাস পর এসে রিপোর্ট পরে মন্তব্য করেন তাহলে অনেক বিষয়েই মিলবে না।
      কারন এর মধ্যে কোম্পানইর EPS পরিবর্তন হয়েছে। ধন্যবাদ

  4. বাংলাদেশের শেয়ার বাজারে ইপিএস এর কোন কাজ নাই গেমলাররা যে শেয়ার সে শেয়ার বাড়বে, বাংলাদেশের শেয়ার বাজারে ফান্ডামেন্টাল দেখে কিনলে লস হওয়ার সম্ভবনা বেশৗ, তাই পিই বা ফান্ডামেন্টাল নয় গেমলারদের অনুসরন করে শেয়ার কিনুন প্রফিট পাবেন, তা না হলে লস খাবেন

  5. This is not a mandatory to look the PE Ratio high or low. Price increased by gamblers & hopefully they are related with High Official of DSE. Otherwise why Price increased so high & then DSE notice after couple od days & that time it is going down & down. Then investors become looser & some gambler again buy those in low price & again increased.

    So their should be something….that price can go upward but cannot down 9-10%. It s/b down 5% & not more than that.

    We bought Libra in 440+ then DSE given notice & now come down to 397-400. So we the general people are looser. But gainer are the gambler & DSE people who are related

  6. পুঁজিবাজার বিশেষজ্ঞ অ্যাডভোকেট হাসান মাহমুদ বিপ্লব কে বলতে চাই ২০১০ সালে ধসের আগে উনার মত অনেক বিশেষজ্ঞ এই পিই রেসিও নিয়া চিল্লাইয়া গলা ফাটাইছিল। এবং উনাদের মত বিশেষজ্ঞ দের কথা শুনে যারা শুধু পিই দেখে শেয়ারে বিনিয়োগ করেছে তারাই সবচাইতে বেশি ক্ষতির মুখোমুখি হয়েছে।
    এই রকম হাজার খানেক উদারন দেওয়া যাবে।
    কিন্তু যারা শুধু পিই না দেখে কোম্পানির অন্য অন্য গুলো দেখে বিনিয়োগ করেছিল তারা কোন ক্ষতির মুখেই পরে নাই। শুধু সময় লোস করছে, কিন্তু একটা নিদ্দিষ্ট সময় পর তারা ঠিকই তাদের শেয়ার বিক্রি করে মুলধনের পাশাপাশি লাভো নিয়ে নিয়েছে।
    এই বিশেষজ্ঞ দের ধরে পি এল দেওয়া উচিত…

  7. In Bangladesh stock market is demand driven which should have been price driven. Unless you are looking all the ratios baised on fair and correct account you can not take a right decision for big investment.
    I have seen most of tbe auditors are like sex workers .
    You pay money and get the accounts audited .
    Now a days there is a standard format you just put your desired fibure and get it audited.
    MOST UNFORTUNATE part bsec do not bother all these issues.
    Please look in to the balance sheet of Deshbandhu Polymer account for few years and find the manupulation.

LEAVE A REPLY