শ্যামল রায়ঃ পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত আর্থিক খাতের কোম্পানী লঙ্কাবাংলা ফাইনান্স ২০১৬ সমাপ্ত অর্থবছরের বার্ষিক সাধারণ সভা সমাপ্ত করেছে। ৩০ মার্চ সকাল ১১টায় ২৭ ধানমন্ডির মাইডাস ভবনের ১২ তলায় আর্থিক খাতের কোম্পানী তাদের বার্ষিক সাধারন সভা সম্পন্ন করেছে। কোম্পানির ২০১৬ অর্থবছরের তাদের শেয়ার হোল্ডারদের জন্য ঘোষিত ১৫ শতাংশ ক্যাশ ও ১৫ শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ট ২০তম বার্ষিক সাধারন সভায় সর্বসম্মতিক্রমে পাশ হয়েছে।

আর্থিক খাতের কোম্পানী লঙ্কাবাংলা ফাইনান্স লিমিটেড এর চেয়ারম্যান জনাব মোহাম্মদ এ মইন সাধারন সভায় এজেন্ডাসমূহ একে একে তুলে ধরেন এবং সাধারন বিনিয়োগকারীগনের সম্মতিক্রমে তা গৃহিত হয়।

সভায় আসা বিনিয়োগকারী বদরুল মিল্লাত বলেন, কোম্পানী এ বছর ১৫ শতাংশ ক্যাশ এবং ১৫ শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ট ঘোষনা দিয়েছে। আমরা যারা এ কোম্পানীর শেয়ার হোল্ড করেছি তারা সবাই খুশি। কোম্পানীর সুনাম অক্ষুন্ন রেখে আগামী বছর ভালো ডিভিডেন্ট দিবে এ প্রত্যাশা করছি।

আর এ কোম্পানীর সচিব মহোদয় অত্যন্ত ভাল মানুষ। আমরা সাধারন বিনিয়োগকারীরা কারনে অকারনে যখনি তার নিকট গিয়েছি তার ভাল ব্যবহার আমরা পেয়েছি। এ জন্য এ কোম্পানীর সুনাম সবার মুখেমুখে । আর এ কোম্পানীর শেয়ার কিনে কেউ প্রতারিত হয়না। তাদের বার্ষিক প্রতিবেদনে কোন ভুল তথ্য তুলে ধরা হয়নি।

এজিএম এ আগত আরেকজন বিনিয়োগকারী সেলিম রেজা বলেন, এ কোম্পানীর ম্যানেজমেন্ট অত্যন্ত ভাল। যার কারনে কোম্পানি উত্তরোত্তর ভাল করছে। আর পিছনে যারা নেতৃত্ব দিচ্ছেন তারা অত্যন্ত পরিশ্রমী ব্যক্তি। আমরা আশা করছি আগামী বছর লঙ্কাবাংলা ফাইনান্স সেক্টরে সব চেয়ে ভাল কোম্পানী হিসেবে এর অস্তিত্ব জানান দিবে।

পরিশেষে লঙ্কাবাংলা ফাইনান্স লিমিটেড এর চেয়ারম্যান জনাব মোহাম্মদ এ মইন বলেন, লঙ্কাবাংলা তার পরিকল্পনা নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। আমরা আশা করছি বিনিয়োগকারীদের প্রত্যাশা পূরণ করতে পারব। আমরা আন্তরিক ভাবে সে চেষ্টাই করে যাচ্ছি। আর বিনিয়োগকারীদের সহযোগিতাই আমাদের কাম্য।

উল্লেখ্য যে, সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন, ব্যবস্থপনা পরিচালক মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন চৌধুরী, পরিচালক মাহবুবুল আনাম, পরিচালক এম ফখরুল আলম, সতন্ত্র পরিচালক জাইতুন সাইফ, সতন্ত্র পরিচালক সানাউল হক, পরিচালক আই ডব্লিউ সেনানায়েক, সমস্ত পরিচালকগণ ও সাধারন বিনিয়োগকারীগণ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here