১৫টি কোম্পানি নিয়ে সতর্কবার্তা

1
2297

স্টাফ রিপোর্টার : যেসব কোম্পানির অস্তিত্ব বর্তমানে কেবল কাগজে কলমে রয়েছে, লভ্যাংশ ও লিস্টিং ফি দিচ্ছে না, সেগুলোর বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে রয়েছে স্টক এক্সচেঞ্জ কর্তৃপক্ষ। মূল মার্কেট থেকে একেবারে তালিকাচ্যুত করে শেয়ারবাজারকে জঞ্জালমুক্ত করার উদ্দেশ্যে কাজ করছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই)।

তাইতো ১৫টি কোম্পানির তালিকা তৈরি করে বিনিয়োগকারীদের সতর্ক এবং এগুলো থেকে বের হওয়ার জন্য প্রতিদিনই ডিএসই’র নিউজ স্ক্রলে দেখানো হচ্ছে। এছাড়া ৪ কোম্পানিকে উল্লেখ করে তালিকাচ্যুতির সিদ্ধান্তের কথা সাফ জানিয়ে দিয়েছে স্টক এক্সচেঞ্জ কর্তৃপক্ষ।

তবে বিনিয়োগকারীরা যেন তালিকাচ্যুতির আগে এসব কোম্পানির শেয়ার থেকে বের হতে পারেন সেই সুযোগ দেওয়ার জন্যই তালিকাচ্যুত করতে দেরি করা হচ্ছে।

ডিএসই’র তালিকাচ্যুতির সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর কিছুদিন ঐসব শেয়ারে কারেকশন হলেও আবার মাথাচাড়া দিয়ে উঠছে। কারা কিনছে এসব শেয়ার? তাদেরকে শেয়ার কেনার জন্য কারাই’বা প্রভাবিত করছে?

লাল তালিকায় থাকা ১৫ কোম্পানি এবং নিয়মিত লোকসান দেখানো কোম্পানিগুলোর শেয়ার কেনা-বেচার আগে অবশ্যই রহিমা ফুড ও মডার্ন ডাইংয়ের কথা স্মরণ করুন। কোম্পানির মালিকানা চেঞ্জ হওয়ার খবর পেলেই সেটিতে ঝাঁপ দিয়ে বোকামির পরিচয় দেওয়া ঠিক হবে না। মালিকানা পরিবর্তন আদৌ কি সম্ভব, মালিকানা পরিবর্তন হলেই নতুন পর্ষদ কি এমন আলাদ্দিনের চেরাগ পাবে যা আগের পর্ষদ পায়নি সে বিষয়ে চিন্তা করা জরুরি।

মালিকানা পরিবর্তনের গুজব ছড়িয়ে এমারেল্ড অয়েলের শেয়ার দর আকাশচুম্বী করে তোলা হয়েছে। মাত্র দেড় মাসের ব্যবধানে কোম্পানিটির শেয়ার দর প্রায় তিনগুণ বৃদ্ধি করা হয়েছে। নিয়ন্ত্রক সংস্থা বা স্টক এক্সচেঞ্জ কর্তৃপক্ষের এ বিষয়ে তদন্ত করার দরকার থাকলেও তাদের দৃশ্যত কোনো পদক্ষেপ লক্ষ্য করা যায়নি।

এমারেল্ড অয়েল কোম্পানির পরিচালকদের মোট ৫ কোটি ৯৭ লাখ ১৩ হাজার ৫০০ শেয়ারের মধ্যে ২৮.৪২ শতাংশ অর্থাৎ ১ কোটি ৬৯ লাখ ৫৮ হাজার ৬৩৪টি শেয়ার রয়েছে। ১০ টাকা অর্থাৎ ফেসভ্যালু হিসেবে যার মূল্য আসে প্রায় ১৭ কোটি টাকা।

অন্যদিকে কোম্পানির দায় প্রায় ১৫০ কোটি টাকা। অর্থাৎ ১৭ কোটি টাকার শেয়ার কিনে কেউ ১৫০ কোটি টাকার দায় নিতে চাইবে না। তাই মালিকানা পরিবর্তনের গুজব ছড়িয়ে এক শ্রেণীর বিনিয়োগকারী ফাঁকা মাঠে গোল দিতে চাইছে। তাদের জালে আটকে পড়লে আর বের হতে পারবেন না।

এদিকে যে ১৫ কোম্পানি তালিকাচ্যুতির তালিকায় রয়েছে, এগুলোকে তালিকাচ্যুত করা হবে না বলে মার্কেটে গুজব ছড়ানো হয়েছে। আর এই গুজবে বড় ধরণের গেম করা হচ্ছে।

যদিও টাকা আপনার সিদ্ধান্ত আপনার, আপনি আপনার টাকা জলে ভাসিয়ে দিলেও কেউ বাধা দেবে না। কিন্তু স্মার্ট বিনিয়োগকারী হতে হলে আপনাকে অবশ্যই চোখ-কান আর মাথা খোলা রেখে বিনিয়োগে অংশগ্রহণ করতে হবে। তালিকাচ্যুত করার পর হায় হায় করার চেয়ে আগেই সিদ্ধান্ত নিন।

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here