সিনিয়র রিপোর্টার : চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর ২০১৭) ১৪টি কোম্পানি মুনাফায় বড় চমক দেখিয়েছে। কোম্পানিগুলোর  আর্থিক প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ওয়েবসাইটে প্রকাশিত তথ্য অনুসারে, কোম্পানিগুলোর মধ্যে বেশিরভাগ কোম্পানির আয় খুব বেশি না হলেও কোম্পানিগুলোর প্রবৃদ্ধি চোখে পড়ার মতো। বিস্তারিত নিচে প্রকাশ হলো-

মুন্নু সিরামিক: চলতি অর্থবছরের ১ম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর ২০১৭) মুন্নু সিরামিকের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) বেড়েছে ৩০০ শতাংশ। এ সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ২০ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৫ পয়সা। ইপিএস বেড়েছে ১৫ পয়সা বা ৩০০ শতাংশ।

ফুওয়াং ফুড: চলতি অর্থবছরের ১ম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর ২০১৭) ফুওয়াং ফুডের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) বেড়েছে ২২০ শতাংশ। এ সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১০ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৫ পয়সা। ইপিএস বেড়েছে ৫ পয়সা বা ২২০ শতাংশ।

আরএন স্পিনিং: চলতি অর্থবছরের ১ম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর ২০১৭) আরএন স্পিনিংয়ের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) বেড়েছে ১৯৩ শতাংশ। এ সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ২৬ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে এর লোকসান ছিল ২৮ পয়সা। সেই হিসাবে ইপিএস বেড়েছে ৫৪ পয়সা বা ১৯৩ শতাংশ।

জেনারেশন নেক্সট: চলতি অর্থবছরের ১ম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর ২০১৭) জেনারেশননেক্সটের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) বেড়েছে ১৬৪ শতাংশ। এ সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ২৯ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ১১ পয়সা। এতে কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ১৮ পয়সা বা ১৬৪ শতাংশ।

জিকিউ বলপেন: চলতি অর্থবছরের ১ম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর ২০১৭) জিকিউ বলপেনের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) বেড়েছে ১৪১ শতাংশ। এ সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১৫ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে লোকসান ছিল ৩৭ পয়সা। সেই হিসাবে ইপিএস বেড়েছে ৫২ পয়সা বা ১৪১ শতাংশ।

বিবিএস কেবলস: চলতি অর্থবছরের ১ম প্রান্তিকে বা ৩ মাসে (জুলাই-সেপ্টেম্বর ২০১৭) বিবিএস কেবলসের শেয়ারপ্রতি মুনাফা (ইপিএস) বেড়েছে ১৩৮ শতাংশ। এ সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ৫৭ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৬৬ পয়সা। ইপিএস বেড়েছে ৯১ পয়সা বা ১৩৮ শতাংশ।

মুন্নু জুট স্ট্যাফলার: চলতি অর্থবছরের ১ম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর ২০১৭) মুন্নু জুট স্টাফলারের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) বেড়েছে ১১২ শতাংশ। এ সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৫৩ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ২৫ পয়সা। ইপিএস বেড়েছে ২৮ পয়সা বা ১১২ শতাংশ।

আমরা নেটওয়ার্কস: চলতি অর্থবছরের ১ম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর ২০১৭) আমরা নেটওয়ার্কসের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) বেড়েছে ১০৩ শতাংশ। এ সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ১৮ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ছিল ৫৮ পয়সা। এতে কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ৬০ পয়সা বা ১০৩ শতাংশ।

বিকন ফার্মা: চলতি অর্থবছরের ১ম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর ২০১৭) বিকন ফার্মার শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) বেড়েছে ১০০ শতাংশ। এ সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১০ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ছিল ৫ পয়সা। ইপিএস বেড়েছে৫ পয়সা বা বা ১০০ শতাংশ।

আইসিবি: চলতি অর্থবছরের ১ম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর ২০১৭) আইসিবির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) বেড়েছে ৯৬ শতাংশ। এ সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ৯৬ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ছিল ১ টাকা। এতে কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ৯৬ পয়সা বা ৯৬ শতাংশ।

আরএসআরএম: আরএসআরএম স্টিলের চলতি অর্থবছরের ১ম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর ২০১৭) আরএসআারএমের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) বেড়েছে ৯৩ শতাংশ। এ সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ৮৩ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ৯৫ পয়সা। ইপিএস বেড়েছে ৮৮ পয়সা বা ৯৩ শতাংশ।

ইউনিক হোটেল: চলতি অর্থবছরের ১ম প্রান্তিকে বা ৩ মাসে (জুলাই-সেপ্টেম্বর ২০১৭) ইউনিক হোটেলেল শেয়ারপ্রতি মুনাফা (ইপিএস) বেড়েছে ৯২ শতাংশ। এ সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৫০ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ২৬ পয়সা। এ হিসাবে ইপিএস বেড়েছে ২৪ পয়সা বা ৯২ শতাংশ।

ফার্মা এইড: চলতি অর্থবছরের ১ম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর ২০১৭) ফার্মা এইডের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) বেড়েছে ৯০ শতাংশ। এ সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৩ টাকা ৮০ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ২ টাকা। ইপিএস বেড়েছে ১ টাকা ৮০ পয়সা বা ৯০ শতাংশ।

হামিদ ফেব্রিক্স: চলতি অর্থবছরের ১ম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর ২০১৭) হামিদ ফেব্রিক্সের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) বেড়েছে ৮১ শতাংশ। এ সময়ে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৪৭ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে ছিল ২৬ পয়সা। এতে কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ২১ পয়সা বা ৮১ শতাংশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here