১টি কোম্পানি ও চার ব্রোকারের দণ্ড

0
979

স্টাফ রিপোর্টার : সিকিউরিটিজ আইন অমান্য করার প্রমাণ পাওয়ায় পুঁজিবাজারের চার ব্রোকারেজ হাউজকে মোট ১৬ লাখ টাকা জরিমানার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। পাশাপাশি একটি ইস্যুয়ার কোম্পানির সব পরিচালককে ১ লাখ টাকা জরিমানা করারও ঘোষণা দিয়েছে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি। মঙ্গলবার কমিশন সভা শেষে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিএসইসি এ তথ্য দেয়।

ইন্ডিকেট সিকিউরিটিজ কনসালট্যান্টস: সমন্বিত গ্রাহক হিসাবে ঘাটতি, ঋণচুক্তি ছাড়া গ্রাহকদের মার্জিন ঋণ প্রদান, পরিচালককে মার্জিন ঋণ প্রদান, ৫ লাখ টাকার বেশি নগদে লেনদেন করায় ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ১৫৪ নম্বর সদস্যপদধারী প্রতিষ্ঠানটিকে ৩ লাখ টাকা জরিমানা করছে কমিশন।

মো. ফখরুল ইসলাম সিকিউরিটিজ: সমন্বিত গ্রাহক হিসাবে ঘাটতি, সেখান থেকে ব্যবস্থাপনা পরিচালককে ঋণ প্রদান, কর্মচারী ও তাদের আত্মীয়দের ঋণ প্রদান, নগদ বিওতে মার্জিন ঋণ প্রদান ও জেড ক্যাটাগরির শেয়ারে মার্জিন ঋণ প্রদানের কারণে ডিএসdseর ৯০ নম্বর সদস্যপদধারী প্রতিষ্ঠানটিকে ৫ লাখ টাকা জরিমানা গুনতে হবে।

আজম সিকিউরিটিজ লিমিটেড: ডিএসইর ১৯ নম্বর সদস্য প্রতিষ্ঠানটি সমন্বিত গ্রাহক হিসাবে ঘাটতির পাশাপাশি, অনুমোদিত প্রতিনিধিদের নামে বিও হিসাব খুলে আইন অমান্য করেছে। ব্রোকারেজ হাউজটির বিরুদ্ধে পরিচালক ও তাদের আত্মীয়-স্বজনকে ঋণ দেয়ার পাশাপাশি নন মার্জিনেবল বিও ও শেয়ারে ঋণ দেয়ার প্রমাণ পেয়েছে তদন্ত দল। ৫ লাখ টাকার বেশি নগদে লেনদেন করার অভিযোগও প্রমাণ হয়েছে। এসব কারণে প্রতিষ্ঠানটিকে ৫ লাখ টাকা জরিমানা করছে বিএসইসি।

সায়া সিকিউরিটিজ লিমিটেড: ডিএসইর ১০ নম্বর সদস্য কোম্পানিটির সমন্বিত গ্রাহক হিসাবে ঘাটতি পাওয়া গেছে। ২০১৫ সালের ৩১ ডিসেম্বর সমাপ্ত আর্থিক প্রতিবেদনে অসত্য তথ্য দেয় তারা। এর বাইরে নগদ বিও এবং জেড ক্যাটাগরির শেয়ারের বিপরীতে মার্জিন ঋণ দিয়েছে তারা। এসব অনিয়মের কারণে ব্রোকারেজ হাউজটিকে ৩ লাখ টাকা জরিমানা করা হবে।

ঢাকা ফিশারিজ লিমিটেড: ইস্যুয়ার কোম্পানিটি ২০১৫ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাব বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন কমিশনে জমা দেয়নি। এছাড়া ২০১৫-১৬ হিসাব বছরের প্রথম প্রান্তিকের ফলাফলও জমা দেয়নি তারা। এজন্য কোম্পানিটির প্রত্যেক পরিচালককে ১ লাখ টাকা করে জরিমানা করবে কমিশন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here