শ্যামল রায়: বিনিয়োগপাড়া মতিঝিলের ডিএসই ভবনের ৬ষ্ঠ তলায় হাজী মোহাম্মদ আলী সিকিউরিটিজ বিনিয়োগকারীদের সেবা প্রদান করে যাচ্ছে। এই মুহুর্ত্যে তাদের টোটাল বিনিয়োগকারীর সংখ্যা প্রায় সাড়ে তিন হাজারের মত। গ্রাহক সেবার মান অত্যন্ত ভাল হবার কারণে প্রতিনিয়তই এখানে গ্রাহক সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে।

গ্রাহকসেবার কথা বলতে গিয়ে হাজী মোহাম্মদ আলী সিকিউরিটিজের ব্যবস্থাপক জনাব আর.এম. খন্দকার আনোয়ার জানালেন আমাদের হাউজ বিনিয়োগের একটি নির্ভরযোগ্য এবং বিশ্বস্ত প্রতিষ্ঠান হিসেবে ইতিমধ্যে বিনিয়োগকারীদের কাছে আস্থা অর্জন করেছে। এজন্য প্রতিনিয়তই আমাদের গ্রাহক সংখ্যা বাড়ছে। এখানে কোন বিনিয়োগকারী যাতে কোন ধরনের সমস্যার মধ্য দিয়ে না যায় তার সবটুকু চেষ্টা করে থাকি আমরা। এজন্য আমরা বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে কোন ধরনের সার্ভিস চার্জ নেই না । আমাদের হাউজে শেয়ার রাখার ব্যপারে সবসময় স্বচ্ছতা বজায় রেখে চলে।

আফটার ট্রেড ইমেইলে পোর্টফোলিও পাঠানোর সুব্যবস্থা আছে আমাদের। টাকা তোলার ব্যাপারেও আমরা অত্যন্ত যত্নবান। বি এফ টি এন পদ্ধত্তির মাধ্যমে গ্রাহকরা অতি দ্রুত টাকা তুলতে পারেন। ঢাকার বাইরে কিংবা প্রবাসী গ্রাহকরা ফোনে কিম্বা ই-মেইলের মাধ্যমেও সব ধরনের সুবিধা গ্রহন করতে পারেন আমাদের হাউজ থেকে। আমাদের কমিশন রেট অত্যন্ত ভালো। ভি আই পি ক্লাইন্ট হলে স্পেশাল সার্ভিস প্রোভাইড করে থাকি আমরা। সেক্ষেত্রে আলাদা রুম, আলাদা মনিটর সহ সব ধরনের সুবিধা প্রদান করি আমরা।

এছাড়া বিনিয়োগকারীদের সচেতন করার জন্য বিভিন্ন সময়ে ট্রেনিং এবং ট্রেডের সময়ে বিভিন্ন ধরনের তথ্য দিয়ে বিনিয়োগকারীদের আপডেট রাখার চেষ্টা করি আমরা। আমাদের আইটি সিস্টেম অত্যন্ত ভালো। এখানে WIFI এর ব্যবস্থা আছে। এছাড়া ট্রেডের মাঝখানে রিফ্রেশমেন্টের ব্যবস্থা করি আমরা।

এই মুহুর্তের বাজার পরিস্থিতি নিয়ে এই হাউজের ব্যবস্থাপক জানালেন এই মুহুর্তে মার্কেট আসলে সুইটেবল না। প্রতিনিয়তই ট্রেড ভলিয়ম কমছে। বিনিয়োগকারীদের মধ্যে শঙ্কা তৈরী হচ্ছে। এক এক সময় এক এক ধরনের নিউজ এসে বিনিয়োগকারীদের পেনিক তৈরী করছে। এই জন্য উচ্চ মহলের কোন খবরদারী নাই। মার্কেট যদি ব্যবসা বান্ধব না হয় বিভিন্ন ধরনের বিধি নিষেধ দিয়ে আটকে রাখা হয় তাহলে ভলিউম বারবে কি করে। আমরা বিনিয়োগকারীরা এর একটা সুষ্ঠ সমাধান চাই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here