`স্থিতিশীলতা ফেরাতে সক্রিয়তা বাড়াবে আইসিবি’

0
408

স্টাফ রিপোর্টার : বাজারে স্থিতিশীলতা ফেরাতে সক্রিয়তা বাড়াবে ইনভেস্টমেন্ট করপোরেশন অব বাংলাদেশ (আইসিবি)। রাষ্ট্রায়ত্ত এই বিনিয়োগ প্রতিষ্ঠানটি আগামী সপ্তাহ থেকে নিয়মিত বিনিয়োগে থাকবে। পুঁজিবাজার পরিস্থিতি নিয়ে বৈঠক শেষে মঙ্গলবার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মোঃ সাইফুর রহমান এই তথ্য জানিয়েছেন।

পুঁজিবাজারে টানা দরপতনের প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার আইসিবির সম্মেলন কক্ষে নিয়ন্ত্রক সংস্থাসহ স্টেকহোল্ডারদের অংশগ্রহণে বৈঠক করা হয়। বেশ কিছুদিন ধরেই বাজার বেশ অস্থির। প্রায় প্রতিদিনই কমছে মূল্যসূচক। লেনদেনও অনেক কমেছে।

বৈঠকে বাজার পরিস্থিতি মনিটরিং করতে আইসিবির ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী ছানাউল হককে প্রধান করে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

বৈঠক শেষে বিএসইসির মুখপাত্র মো. সাইফুর রহমান বলেন, বাজারের তারল্য সংকট উত্তরণে আইসিবিকে ২ হাজার কোটি টাকার ফান্ড দেওয়া হয়েছে। ফান্ডের অর্থ আগামী সপ্তাহে পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ হবে।

একইসঙ্গে বাজার পরিস্থিতি মনিটংয়ের জন্য আজ আইসিবি’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী ছানাউল হককে আহবায়ক করে একটি কমিটি করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। আগামী কমিশন সভায় এই কমিটির বিষয়টি উত্থাপন করা হবে। এই কমিটি যাতে বাজারে পলিসি লেভেলের কাজ করতে পারে সে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তিনি বলেন, আগামী সপ্তাহে চীনা কনসোর্টিয়ামের সাড়ে ৯শ কোটি টাকার ১০ শতাংশ গেইন ট্যাক্স ছাড়ের সার্কুলার দেয়া হবে। ফলে আইসিবির বিনিয়োগের পাশাপাশি এই অর্থও বাজারে আসবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

বৈঠকে ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ, বাংলাদেশ মার্চেন্ট ব্যাংকার্স অ্যাসোসিয়েশেন (বিএমবিএ), ডিএসই ব্রোকার্স অ্যাসোসিয়েশন (ডিবিএ), শীর্ষ ৩০ ব্রোকরেজ হাউজসহ সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

আইসিবির এমডি কাজী ছানাউল হক বলেন, বন্ডের মাধ্যমে ২ হাজার কোটি টাকা সংগ্রহের সব প্রক্রিয়া শেষ হযেছে। আশা করছি আগামী সপ্তাহেই বিনিয়োগ করতে পারবো। এর  ৭৫ শতাংশের পুরো টাকাই বিনিয়োগ করবো।

তিনি বলেন, মার্কেট খারাপ হওয়ার তেমন কোনো কারণ দেখছি না। তারপরও খারাপ হয়েছে। তা থেকে উত্তরণে সবাই মিলে উদ্যোগ নেবো।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) এমডি কেএএম মাজেদুর রহমান বলেন, আসন্ন নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিনিয়োগকারীদের মধ্যে কিছুটা আতঙ্ক রয়েছে, বিদেশি বিনিয়োগও কমেছে।

তিনি বলেন, যে কোনো দেশের নির্বাচনের আগে কিছু কিছু বিনিয়োগকারী সর্তকতা অবলম্বন করে। এ কারণে আমাদের বাজারে বিদেশি বিনিয়োগ এখন কম, শুধু আমাদের দেশেই নয়, ভারত, চীন, শ্রীলংকাসহ প্রায় সব দেশেই হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here