ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টায় স্ট্যান্ডার্ড সিরামিকস

0
270

মোহাম্মদ তারেকুজ্জামান : স্ট্যান্ডার্ড সিরামিক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড। ১৯৯৬ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভূক্ত হওয়া কোম্পানিটি ঘুরে দাঁড়াতে পারছে না, তবে কোম্পানির কর্তৃপক্ষ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। ২০১৫ ও ১৬ সালে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের ১০ শতাংশ করে নগদ দিলেও গত সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানিটির কর্তৃপক্ষ লভ্যাংশ দেয়নি।

কোম্পানিটি বর্তমানে সর্বনিম্ন স্তর ‘জেট’ ক্যাটাগরিতে অবস্থান করছে। পুঁজিবাজারে পুরাতন তালিকাভূক্ত কোম্পানিটির এই দুরাবস্থা হওয়ায় সাধারণ বিনিয়োগকারীদের মনে হতাশা ও ক্ষোভ বিরাজ করছে।

কোম্পানি সচিব জামাল উদ্দিন ভূঁইয়া স্টক বাংলাদেশকে বলেন, গত বছর আমরা সাধারণ বিনিয়োগকারীদের ডিভিডেন্ড দিতে পারিনি। ২০১৮ সমাপ্ত অর্থবছরে ডিভিডেন্ড দিতে পারবো কিনা তা এই মূহুর্তে বলতে পারবো না।

কোম্পানির ওয়েবসাইট সূত্রে জানা যায়, ২০১৫ ও ২০১৬ সালে কোম্পানিটি মুনাফা করলেও ২০১৭ সমাপ্ত অর্থবছরে কোন মুনাফা করতে পারেনি। বরং কোম্পানিটি গত সমাপ্ত অর্থবছরে লোকসান করেছে। ২০১৫ ও ১৬ সমাপ্ত অর্থবছরে কোম্পানিটির মুনাফা হয়েছে যথাক্রমে ৯৬ লাখ ও ৬৮ লাখ টাকা। আর ২০১৭ সমাপ্ত অর্থবছরে লোকসান করেছে ২৫ লাখ টাকা।

কোম্পানির ওয়েবসাইট সূত্রে আরও জানা যায়, অনুমোদিত মূলধন মাত্র ১০ কোটি টাকা এবং পরিশোধিত মূলধন ৬ কোটি ৪৬ লাখ টাকা। ১০ টাকা ফেসভ্যালুর কোম্পানিটির শেয়ার রয়েছে ৬৪ লাখ ৬০ হাজার ৬৫০টি। এরমধ্যে স্পন্সর ডিরেক্টরদের শেয়ার রয়েছে মাত্র ২৮ দশমিক ৫০ শতাংশ। এবং সাধারণ বিনিয়োগকারীদের শেয়ার রয়েছে ৬৭ দশমিক ৬৫ শতাংশ। আর প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী ও বিদেশী বিনিয়োগ রয়েছে যথাক্রমে ৩ দশমিক ৮৩ শতাংশ ও ০ দশমিক ০২ শতাংশ।

সূত্র মতে, প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছে ০ দশমিক ৪০০ টাকা। এবং দ্বিতীয় ও তৃতীয় প্রান্তিকে আয় করেছে যথাক্রম ০ দশমিক ১৬০ টাকা ও ০ দশমিক ৭৮০ টাকা। অর্থাৎ গত তিন প্রান্তিক মিলে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি মোট আয় হয়েছে ০ দশমিক ৫৪০ টাকা। গত ৫২ সপ্তাহে কোম্পানির শেয়ার দর ৬৫ দশমিক ৪০ টাকা থেকে ১৮৪ দশমিক ৯০ টাকা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here