সুহৃদের এজিএম অবৈধ

0
981
সিনিয়র রিপোর্টার : সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজের ২০১৪ সালের বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অবৈধ। আগামী ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে কোম্পানিটিকে নতুন করে এজিএম ও বিশেষ সাধারণ সভা (ইজিএম) সম্পন্ন করতে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। বিচারপতি সৈয়দ রিফাত আহমেদ বুধবার হাইকোর্টের এনএক্স-২৬ কোম্পানি বেঞ্চে রায় প্রদান করেন।
সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজের চেয়ারম্যান আনিস আহমেদ আদালতে ইজিএম নিয়ে মামলা করলে আদালত অনুষ্ঠিত এজিএম ও ইজিএমকে অবৈধ বলে রায় দিয়েছেন।

আদালতে মামলা নিয়ে কথা হয় সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজের পরিচালক প্রকৌশলী মাহমুদুল হাছানের সঙ্গে। বিষয়টি নিশ্চিত করে বুধবার তিনি বলেন, আদালতের রায়ে চারটি আদেশ দিয়েছেন। এগুলো হল- ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে নতুন করে এজিএম ও ইজিএম সম্পন্ন করতে হবে।

তিনি বলেন, পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনকে (বিএসইসি) সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজের এজিএম নিয়ে যে বিরোধ রয়েছে তা তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া। এজিএম ও ইজিএমে সম্পন্ন করতে দুজন পর্যবেক্ষক নিয়োগ। রেজিস্ট্রেশন অব জয়েন্ট স্টক কোম্পানির (আরজেএসসি) কাছে এজিএম ও ইজিএম সম্পন্ন করে সকল তথ্য জমা দান।

উল্লেখ্য, ২০১৪ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হওয়া বছরের আর্থিক প্রতিবেদন অনুমোদন ও বিনিয়োগকারীদের লভ্যাংশ ঘোষণায় ২০১৪ সালের ২৭ অক্টোবর কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে ২০১৪ সালের বিনিয়োগকারীদের জন্য ১৫ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দেওয়ার সুপারিশ করে পরিচালনা পর্ষদ।

এ ছাড়া কোম্পানির অনুমোদিত মূলধন ৫০ কোটি টাকা থেকে বাড়িয়ে ১০০ কোটি টাকায় উন্নীত করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয় বৈঠকে। এ জন্য ২০১৪ সালের ২০ ডিসেম্বর গাজীপুরে অবস্থিত কোম্পানির ফ্যাক্টরি প্রাঙ্গনে বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) ও বিশেষ সাধারণ সভা (ইজিএম) অনুষ্ঠিত হবে ঘোষণা দেয়া হয়।

তবে ২১ ডিসেম্বর ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ওয়েবসাইটে সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজের চেয়ারম্যান আনিস আহমেদের বরাত দিয়ে প্রকাশিত সংবাদে বলা হয়, অনিবার্য কারণবশত ২০ ডিসেম্বর কোম্পানির এজিএম ও ইজিএম স্থগিত করা হয়েছে। পরবর্তীতে এজিএম ও ইজিএমের তারিখ জানোনো হবে।

কিন্তু কোম্পানির একজন স্টেকহোল্ডার ও পরিচালক ইঞ্জিনিয়ার মাহমুমুদ হাসান দাবি করেন, ২০ ডিসেম্বর কোম্পানির এজিএম ও ইজিএম পূর্ব নির্ধারিত সময় অনুযায়ী অনুষ্ঠিত হয়েছে। ওয়েবসাইটে দুই পক্ষের বক্তব্য প্রকাশ করে ডিএসইর পক্ষ থেকে বলা হয়, আমরা কোম্পানির এজিএম ও ইজিএম অনুষ্ঠিত হওয়া বা স্থগিত হওয়ার বিষয়টি পরীক্ষা করে দেখছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here