‘সিমটেক্স ১৫০ ও ১৫ শতাংশ’ লভ্যাংশ দিয়েছে

4
10875

সিনিয়র রিপোর্টার : প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) অনুমোদন পাওয়া সিমটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজের কোন প্লেসমেন্ট শেয়ার নেই। না থাকলেও কোম্পানি দুবার বোনাস লভাংশ ঘোষণা করেছে। তা হলো- ১৫০ শতাংশ ও ১৫ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ।

কোম্পানির আইপিও সম্পর্কে সম্প্রতি সিমটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজের কোম্পানির সেক্রেটারি প্রান্তোস চন্দ্র সাহা এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন,  কোম্পানি প্রতিষ্ঠানের গুণগত মানের পণ্য সঠিক সময় গ্রাহককে প্রদান করে। অন্য কোম্পানির সঙ্গে তুলনামূলক কম দামও নির্ধারণ করা হয়েছে। যে কারণে দ্রুত কোম্পানির ব্যবসা বেড়েছে।

প্রতিষ্ঠানের আওতায় মাল্টিন্যাশনাল আরো দুটি কোম্পানি রয়েছে। তা হলো-  কোর্স বাংলাদেশ এবং এএনই। ন্যাশনাল কোম্পানির মধ্যে আমারাই প্রথম স্থানে আছি। এছাড়া আমাদের প্রতিষ্ঠানের শতাধিক শ্রমিক আছে। যারা নিয়মিত বেতন পান এবং শ্রমিকদের পাওনা বেতন নিয়ে প্রতিষ্ঠানে ক্ষোভ-বিক্ষোভ হয়নি।

তিনি বলেন, আমাদের কোম্পানি ব্যবস্থাপনা অনেক ভালো্, যে কারণে দ্রুত বর্ধনশীল হয়েছে কোম্পানিটি। রাজধানীর মিরপুরে প্রথমে কোম্পানির কারখানা ছিল, তবে এখন নেই। এরপরে সিমটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ নামে ২০০০ সালে আলাদাভাবে এটি চলতে শুরু করে। সাক্ষাতকারের সময় উপস্থিত ছিলেন কোম্পানির সিএফও আশিষ দে।

তিনি বলেন, আগে নাম ছিল সিমটেক্স বাংলাদেশ, পরে নতুন রুপে সিমটেক্স ইন্ডাস্টিজ নামে নিজস্ব জায়গায় কোম্পানি তার নিজস্ব ধারায় এই পর্যন্ত এসেছে। তবে আমাদের কোম্পানির প্লেসমেন্ট কোন শেয়ার নেই। আইপিওতে আসার আগে এ পর্যন্ত কোম্পানি দুবার অর্থাৎ ২০১২ ও ২০১৩ সালে ১৫০ শতাংশ ও ১৫ শতাংশ বোনাস শেয়ার লভ্যাংশ ঘোষণা করে।

রাজনীতিক অস্থিতিশীল ব্যবসার ক্ষেত্রে খুবই খারাপ প্রভাব ফেলে। হরতাল কিংবা আন্দোলনে কোম্পানির পণ্য পরিবহণে অনেক বাঁধার সৃষ্টি হয়। এক্ষেত্রে অনেকটা ক্ষতির মুখোমুখি হতে হয়। তবে আমরা তেমন বড় কোন ক্ষতির মুখোমুখি হইনি।

উল্লেখ্য, প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) অনুমোদন পাওয়া সিমটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজের আবেদন গ্রহণ আগামী ২৪ আগস্ট, সোমবার থেকে শুরু হয়ে শেষ হবে ১ সেপ্টেম্বর। একমূখী পথে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে দেশ-বিদেশের বিনিয়োগকারীরদের আবেদন করতে হবে।

সিমটেক্সের প্রসপেক্টাস দেখুন

4 COMMENTS

Rana. শীর্ষক প্রকাশনায় মন্তব্য করুন Cancel reply

Please enter your comment!
Please enter your name here