সামনের সপ্তাহে কেমন যাবে পুজিবাজার ?

1
7256

মেহেদী আরাফাত : টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিস বুধবার ঢাকা শেয়ার বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়- ডিএসইএক্স ইনডেক্স লেনদেনের শুরু থেকেই বৃদ্ধি পেতে থাকে। বেলা বাড়ার সাথে সাথে ডিএসই এক্স ইনডেক্স এবং লেনদেন উভয়ই বাড়তে থাকে এবং দিন শেষে ডিএসইএক্স ইনডেক্স বুলিশ ক্যান্ডেলস্টিক তৈরি  করে। আজকের বুলিশ ক্যান্ডেলস্টিক বাজারের ক্রয় চাপ এর ব্যাপারটি নিশ্চিত করে। ডিএসই এক্স ইনডেক্স ২০.৭০ পয়েন্ট বৃদ্ধি পেয়ে ৪৫২৭.৪১ পয়েন্টে অবস্থান করছে, যা আগের দিনের তুলনায় ০.৪৫% বৃদ্ধি পেয়েছে।

বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা যায়, ডিএসইর ইনডেক্স ও লেনদেন তিন দিন ধরে ধারাবাহিক ভাবে বাড়ছে। আজ আবার শুরু হয়েছে তস্রিফার লেনদেন। বিনিয়োগকারীরা ভয়ের মধ্যে ছিল নতুন শেয়ারের লেনদেন এর কারণে ইনডেক্স নেগেটিভে হয়ে যায়ে কিনা। কিন্তু সেরকম কিছু হয় নাই। TA বিশ্লেষকদের মতে আগামীকালের লেনদেন এজন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আগামীকাল যদি ইনডেক্স ও লেনদেন বাড়ে তাহলে এর ভাল প্রভাব পরবে সামনের সপ্তাহে। আর যেসব বিনিয়োগকারী এই ধারনার উপর সাইড লাইনে আছে যে, রোজার কারণে মার্কেট স্লো থাকতে পারে, উনারা সক্রিয় হলে সামনের সপ্তাহে বাজার ভাল হওয়ার সম্বভনা বেশী। রোজার কারণে লেনদেন ৩ ঘণ্টা হওয়ার ফলে যেসব শেয়ারের লেনদেন বেশী হচ্ছে সেসব শেয়ারের বিনিয়োগকারীরা বেশী লাভবান হতে পারে। যেমন UNITEDAIR, BEXIMCO, FAMILYTEX, APOLOISPAT ও KEYAKOSMET। কারন এসব শেয়ারের বিক্রির চাপ আসতে আসতে লেনদেন শেষ হয়ে যাবে।

বর্তমানে ডিএসই এক্স ইনডেক্স এর পরবর্তী সাপোর্ট ৪৪৪০ পয়েন্টে এবং রেজিটেন্স ৪৮০০ পয়েন্টে অবস্থান করছে। আজ বাজারে এম.এফ.আই এর মান ছিল ৪৬.১৩ এবং আল্টিমেট অক্সিলেটরের মান ছিল ৩৮.২১। এম.এফ.আই কিছুটা উদ্ধমুখি অবস্থান করছে এবং আল্টিমেট অক্সিলেটর কিছুটা উদ্ধমুখি অবস্থান করছে।Screenshot_2

ডিএসইতে ১১ কোটি ২২ লাখ ২৭ হাজার ১৫৬ টি শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড লেনদেন হয়, যার মূল্য ছিল ৪৪৭.১৫ কোটি টাকা। ডিএসইতে লেনদেন বেড়েছে ৩৬ কোটি টাকা। ঢাকা শেয়ারবাজারে ৩১৬ টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের লেনদেন হয়েছে, যার মধ্যে দাম বেড়েছে ২০০ টির, কমেছে ৮৫ টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ৩১ টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম।

পরিশোধিত মূলধনের দিক থেকে দেখা যায়, বাজারে চাহিদা বেশী ছিল ৫০-১০০ কোটি টাকার পরিশোধিত মূলধনী প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের যা আগেরদিনের তুলনায় ৪৮.৫% বেড়েছে। অন্যদিকে কমেছে ৩০০ কোটি টাকার উপরে পরিশোধিত মূলধনী প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের যা আগেরদিনের তুলনায় ১২.৭৮% কম। অন্যদিকে ০-২০ এবং ২০-৫০ কোটি টাকার পরিশোধিত মুলধনী প্রতিষ্ঠানের লেনদেনের পরিমান গতকালের তুলনায় ১৯.৮% এবং ১৩.৪০% বেড়েছে।

পিই রেশিও ৪০ এর উপরে থাকা শেয়ারের লেনদেন আগের দিনের তুলনায় ১৬.৬২% বেড়েছে। অন্যদিকে পিই রেশিও ২০-৪০ এর মধ্যে থাকা শেয়ারের লেনদেন আগের দিনের তুলনায় ৯.৯৮% বেড়েছে।

ক্যাটাগরির দিক থেকে এগিয়ে ছিল ‘এন’ ক্যাটাগরির শেয়ারের লেনদেন যা আগেরদিনের তুলনায় ১৬৬.০৬% বেশী ছিল। বেড়েছে ‘জেড’  ক্যাটাগরির শেয়ারের লেনদেন যা আগেরদিনের তুলনায় ১৮.০৬% বেশী ছিল।

1 COMMENT

Shahadat শীর্ষক প্রকাশনায় মন্তব্য করুন Cancel reply

Please enter your comment!
Please enter your name here