সরকারি আমানতের ৫০শতাংশ পাচ্ছে পুঁজিবাজারের ১৪ প্রতিষ্ঠান

0
1899

সিনিয়র রিপোর্টার : ব্যাংকারদের জন্য অর্থমন্ত্রীর দেওয়া প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী সরকারি আমানতের ৫০ শতাংশ বেসরকারি ব্যাংকে রাখার পথ তৈরি করেছে সরকার। চলতি বছরের ২৬ এপ্রিল কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি বিভাগ থেকে পাঠানো সার্কুলার ৩১মার্চ থেকে কার্যকর করতে সব ব্যাংকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাদের কাছে পাঠানো হয়।

সেই নির্দেশনা অনুযায়ী সরকারি আমানতের ৫০শতাংশ পাচ্ছে বেসরকারি ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো। অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ বৃহস্পতিবার এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে সরকারের এ সিদ্ধান্ত জানায়।

নির্দেশনা অনুসারে, সরকারি সংস্থাগুলো তাদের তহবিলের ৭৫ শতাংশ রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকে এবং বাকি ২৫ শতাংশ বেসরকারি ব্যাংকে রাখত। সরকার ঠিক করেছে, এখন থেকে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকে ৫০ শতাংশ রাখা হলে বাকি ৫০ শতাংশ রাখা হবে বেসরকারি ব্যাংকে। বর্তমানে দেশে ৩৪টি এনবিএফআই রয়েছে।

সার্কুলারে বলা হয়, ‘স্বায়ত্তশাসিত ও আধা-স্বায়ত্তশাসিত সংস্থার প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির (এডিপি) আওতায় সরকারের কাছ থেকে পাওয়া তহবিল এবং সরকারি, আধা-সরকারি প্রতিষ্ঠান, স্বায়ত্তশাসিত ও আধা-স্বায়ত্তশাসিত সংস্থার মোট নিজস্ব তহবিলের অর্থের ৫০ শতাংশ পর্যন্ত বেসরকারি ব্যাংকে রাখতে পারবে।

“কোনো প্রতিষ্ঠান চাইলে এই অর্থ বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনা অনুযায়ী কিছু অ-ব্যাংক আর্থিক প্রতিষ্ঠানে (এনবিএফআই) অথবা উভয় প্রতিষ্ঠানে আমানত রাখতে পারবে।”

এপ্রিলের শুরুতে জনতা ব্যাংকের বার্ষিক সম্মেলনে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, সরকারি আমানতের ৫০ শতাংশ বেসরকারি ব্যাংকে রাখার সিদ্ধান্ত ‘অতি দ্রুত’ কার্যকর করা হবে।

“সরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানকে বাধ্যতামূলকভাবে তাদের পয়সার ২৫ শতাংশ বেসরকারি ব্যাংকে রাখতে হত, সেটি আমরা বাড়ানোর চিন্তা করেছি। কালকে সিদ্ধান্ত দিয়েছি এবং সেটি অতিদ্রুত কার্যকর হচ্ছে যে বেসরকারি ব্যাংকে সরকারি প্রতিষ্ঠানের এই বাধ্যবাধকতা ৫০ শতাংশ করা হবে।“

সে নির্দেশনা অনুসারে সরকারি আমানতের ৫০ শতাংশ বেসরকারি ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে রাখা হবে। সিদ্ধান্ত অনুসারে পুঁজিবাজারের ১৪টি এনবিএফআইয়ে সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান আমানত রাখতে পারবে। সেগুলো হলো- ডিবিএইচ, আইডিএলসি, ইসলামিক ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড, জিএসপি ফাইন্যান্স, আইআইডিএফসি, আইপিডিসি, লংকাবাংলা, মাইডাস, ন্যাশনাল হাউজিং ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট, ফিনিক্স ফাইন্যান্স, প্রিমিয়ার লিজিং, ইউনাইটেড ফাইন্যান্স, উত্তরা ফাইন্যান্স ও মেরিডিয়েন ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here