‘শেয়ার কনটেস্টের মাধ্যমে নিজেকে আত্মবিশ্বাসী করা যায়’

2
2943

পুঁজিবাজারের শেয়ার লেনদেন নিয়ে  ‘কনটেস্ট’ প্রতিযোগীতায় আগস্ট মাসে বিজয়ী হয়েছেন মেহেদী আরাফাত। গত মাসে ৪৯ জন অনলাইন কনটেস্ট প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহণ করলেও তাদরে মধ্যে মেহেদী প্রথম হয়েছেন। অনুষ্টানের আয়োজক স্টক বাংলাদেশ- এর মূল অফিসে তার সঙ্গে আলাপ চারিতায় উঠে আসে নানা প্রসঙ্গ। তুলে ধরা হলো সেসব চুম্বক অংশ। সাক্ষাতকার গ্রহণ করেছেন- শাহীনুর ইসলাম

স্টক : আপনাকে স্বাগত জানাই, আমাদের শেয়ার কনটেস্ট খেলার প্রথম বিজয়ী হিসেবে। অনেক খেলার মধ্যে এই বুদ্ধিবৃত্তিক চর্চার খেলায় কেন এলেন?

মেহেদী আরাফাত : আপনাকেও স্বাগত জানাই। আপনাদের এই বুদ্ধিবুত্তিক চর্চার খেলায় নিজেকে সম্পৃক্ত করতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করছি। আমি অনেক সময় অনেক রকম সিদ্ধান্ত নেই। সেসব সিদ্ধান্ত কতোটা সঠিক না ভুল; আমার এটা প্রমাণের নির্দিষ্ট স্থান নাই। যদি এসব অভিজ্ঞতা অন্য কোথাও শেয়ার করি তাহলে আর্থিক ক্ষতির আশঙ্কা থাকে। কিন্তু যদি আমি এটা স্টক বাংলাদেশ-এর শেয়ার কনটেস্টের মধ্যেমে নিজেকে গড়ি, সে আশঙ্কা থাকে না। তাই বুদ্ধিবৃত্তিক চর্চার জন্য এটা দারুণ একটি খেলা।

তবে অনেক কাছে তা ভিন্ন রকম হতে পারে। তবে আমার ক্ষেত্রে এটা সঠিক। কারণ, আমি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০০৭ সালে ফিন্যান্সের ছাত্র ছিলাম। এখানে বলা প্রয়োজন- পুঁজিবাজারে আমি শেয়ার ব্যবসা করবো- তা টাকা দিয়ে। ব্যবসায় কখনো আমার ডিসিশন সঠিক আবার ভুলও হতে পারে। তবে এখানে (খেলায়) আমার ডিসিশনটা ঠিক হয়কি না, তা পরীক্ষা করা যায়। এবং নিজেকে আত্মবিশ্বাসী হিসেবে গড়ে তোলা যায়।

স্টক : বাসযোগ্য পৃথিবীর মধ্যে আপনার নিবাস

মেহেদী আরাফাত : (হেসে বললেন) ঢাকার নাখাল পাড়ায় বাবার নিজস্ব বাড়ি আছে। গ্রামের বাড়ি কুমিল্লা জেলার রেসকোর্সে। এখনও বাবা-মার সঙ্গে থাকি। সঙ্গে আছেন আমার সহধর্মিনী।

স্টক : ব্যক্তিগতভাবে কিছু করছেন?

মেহেদী আরাফাত : না, এখন কিছু  করছি না। তবে আগে চাকরি করতাম। তারও আগে ২০০৬ সাল থেকে আমি ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। তবে আগে শেয়ার ব্যবসা নিয়েই এনালাইসিস করতাম এবং এখনো লেগে আছি।

স্টক : এ ব্যবসায় আপনার আগামী কি এবং আপনি কতোটা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন?

মেহেদী আরাফাত : হেসে বললেন, ধসের ব্যবসা সবার জন্য নয়। (বিনিয়োগের গুরু ওয়ারেন বাফেটের একটি প্রতিবেদন দেখিয়ে) ২০১১ সালে আমার কোন ক্ষতি হয়নি। বরং আমি লাভবান হয়েছি। পুঁজিবাজারে যে সুনামি হয়েছে- তা কিছু মানুষের ভুলের কারণে হয়েছে। তার বোঝার মধ্যে অনেক ভুল ছিল। সুনামি হচ্ছে সে ভুলের সংশোধন।

আমি জানতাম মার্কেট পড়বে। কারণ :  পুরো মার্কেট তখন হাই, তবে মিউচ্যুয়াল ফান্ডের দর ছিল কম। যে কারণে সার্কুলার ফ্লো বন্ধ ছিল। একমূখী প্রবণতা বেশিদিন স্থির হয়না। তাৎক্ষণিক আমার সমস্ত বিনিয়োগ তুলে নিলাম। আর কোথাও বিনিয়োগ করিনি। এর কিছুদিন পরেই শুরু হলো ধস। তবে এ ধসের মধ্যে সবচে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন- যারা ঋণ নিয়ে ব্যবসা করেছেন। এমনকি সে সময় যারা আত্মহত্যা করেছেন তারাই ছিলেন মার্জিন ঋণ গৃহীতা। কারণ সেল প্রেসার। প্রতিদিন কমছে টাকা।  অন্যদিকে হাউসের সেল প্রেসার…।

এখানে দেখুন ওয়ারেন বাফেট; তার মোট সম্পদ ৬ হাজার ৩৩০ কোটি মার্কিন ডলার। এর আগে তিনি ২ হাজার মার্কিন ডলার দান করেছেন। বাফেটের মাত্র ১ ঘন্টায় আয় করেন- যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে ব্যয়বহুল নিউইয়র্ক ইউনিভার্সিটির ৬ জন ছাত্রের চার বছরের বেতনের সমান। তার এসব সম্পদ এসেছে ৫০ তম জন্মদিনের পর থেকে।

তবে সবচে বড় কথা হলো, আপনি আয় করবেন ভালো কথা। আয়ের সব অর্থ জমিয়ে না রেখে কিছু অংশ দান করে দিন। কেননা জমিনের সবকিছু ফয়সালা হয় আসমানে। আমাদের দান করতে হবে।

পুঁজিবাজার বিষয়ে আবার আসি- এটি মস্তিস্কের ব্যবসা। বুঝে বিনিয়োগ করতে হবে। তবে আমি ঋণ নিতাম না। আপানদেরও ঋণ না নেয়ার অনুরোধ করি। কেননা, সেল প্রেসারের চাপে সুস্থ চিন্তার মানুষও অস্থির হয়ে ওঠে।

স্টক : শেয়ার কনটেস্ট নিয়ে কিছু বলুন:

মেহেদী আরাফাত : এই খেলা খুব ভালো। ব্যবসা শুরুর আগে একজন মানুষ ডিসিশন মেকিং করতে পারবেন। তিনি কতোটা আত্মবিশ্বাসী এটা হচ্ছে তার প্রথম পরীক্ষা। এবং এটা পরীক্ষার আগে পরীক্ষা।

স্টক : সময় দেয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।

মেহেদী আরাফাত : আপনাকেও। স্টক বাংলাদেশ -এর সকল পাঠক ও শুভাকাঙ্খির কাছে আমার সালাম ও শুভেচ্ছা রইল।

পেছনের খবর : শেয়ার ‘কনটেস্ট’ প্রতিযোগীতায় বিজয়ী মেহেদী আরাফাত

2 COMMENTS

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here