শিল্পঋণে ৯ শতাংশ সুদহার সোমবার থেকে কার্যকর

0
295

সিনিয়র রিপোর্টার : ব্যাংক হলিডের কারণে রবিবার লেনদেন বন্ধ থাকায় ঋণ ও আমানতে ব্যাংকগুলো সোমবার থেকে নতুন সুদহার কার্যকর করবে। প্রথম পর্যায়ে ব্যাংকগুলো শুধু শিল্প ঋণে ৯ শতাংশ হারে সুদ নেবে। আর তিন মাস মেয়াদি আমানতে সুদ দেবে সর্বোচ্চ ৬ শতাংশ। পর্যায়ক্রমে অন্য সব ক্ষেত্রে সুদহার কমানো হবে। সংশ্লিষ্টরা এ তথ্য জানিয়েছেন।

এদিকে, (আজ) সোমবার গভর্নর ফজলে কবিরের সঙ্গে ব্যাংকগুলোর এমডিদের একটি পূর্বনির্ধারিত বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে। বৈঠক থেকে ব্যাংকগুলোর এমডিদের বিএবির ঘোষণার আলোকে সুদহার কার্যকরের বিষয়ে দিকনির্দেশনা দেয়া হবে।

দীর্ঘদিন ধরে শিল্পোদ্যোক্তা ও ব্যবসায়ীরা ঋণের সুদহার এক অঙ্কে নামিয়ে আনার দাবি জানিয়ে আসছেন।

সরকারও চায় ঋণের সুদহার এক অঙ্কে নামুক। এমন দাবির পরিপ্রেক্ষিতে গত ২০ জুন এক বৈঠক থেকে ঋণের সুদহার সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে আনার ঘোষণা দেয় বেসরকারি ব্যাংকের উদ্যোক্তাদের সংগঠন বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব ব্যাংকস (বিএবি)। একইদিন অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে সরকারি ব্যাংকগুলোর এক বৈঠকেও একই রকম সিদ্ধান্ত হয়।

বিএবির পক্ষ থেকে জানানো হয়, বিনিয়োগ বাড়াতে আগামী ১ জুলাই থেকে সর্বোচ্চ ৯ শতাংশ সুদে ঋণ বিতরণ এবং ৬ শতাংশ সুদে তিন মাস মেয়াদি আমানত নেয়া হবে। তবে সব ঋণে সুদহার সিঙ্গেল ডিজিটে নামবে কিনা বিএবির বৈঠকে সে বিষয়ে কিছু বলা হয়নি। এরপর গত ২৭ জুন এমডিদের মধ্যে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে আলোচনার পর সিদ্ধান্ত হয়- এখনই সব ঋণের সুদহার সিঙ্গেল ডিজিটে নামবে না।

আবার শুধু তিন মাস মেয়াদি নয়, সব ধরনের আমানতে সর্বোচ্চ ৬ শতাংশ সুদ নির্ধারণ না করলে আমানত সংগ্রহে অসম প্রতিযোগিতা দেখা দিতে পারে। এতে সুদহার কমানোর মূল উদ্দেশ্য বাস্তবায়ন হবে না। তবে এসব সিদ্ধান্ত হবে ব্যাংকগুলোর নিজ পর্ষদে।

ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালকরা (এমডি) বলছেন, ১ জুলাই থেকে শুধু শিল্প ঋণের সুদহার সিঙ্গেল ডিজিটে নামানো সম্ভব হবে। কম সুদে আমানত পেলে পর্যায়ক্রমে অন্য ক্ষেত্রেও সুদহার কমে আসবে। তবে আগামী কয়েক মাসেও সব ঋণে সুদ সিঙ্গেল ডিজিটে আনা সম্ভব হবে না।

এ প্রসঙ্গে এসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশের (এবিবি) চেয়ারম্যান ও ঢাকা ব্যাংকের এমডি সৈয়দ মাহবুবুর রহমান বলেন, বিএবির ঘোষণা অনুযায়ী সুদহার সিঙ্গেল ডিজিটে আনতে হলে সব ব্যাংকের বোর্ডে সিদ্ধান্ত হতে হবে। কারণ প্রত্যেকটা ব্যাংকের বোর্ড আলাদা।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. সালেহউদ্দিন আহমেদ বলেন, সুদহার এক অঙ্কে নামিয়ে আনার উদ্দেশ্য সৎ হলেও সময় বেঁধে ঘোষণা দেয়া ঠিক না। হঠাৎ করে এক অঙ্কে ঋণের সুদ নামিয়ে আনা সম্ভব নয়। ব্যাংকাররা ঋণের সুদহার কমাতে স্বল্প সুদে সরকারি আমানত চেয়েছেন। তাই ব্যাংকগুলোর কম সুদে নতুন আমানত সংগ্রহ করাই এখন বড় চ্যালেঞ্জ। তা না হলে ঋণ-আমানতের ভারসাম্যহীনতা সৃষ্টি হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here