লেনদেনের শীর্ষে ১০ কোম্পানি

0
2300

সিনিয়র রিপোর্টার : শেয়ারবাজারে গত কয়েকদিন ধরে বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ারদরে ওঠানামায় বেশ অস্থিরতা দেখা যাচ্ছে। এর মধ্যেই কিছু শেয়ারের দর ও লেনদেন বাড়ছে তরতর করে। দর আরও বাড়বে- এমন ধারণা থেকে অনেক বিনিয়োগকারী বিপুল পরিমাণে সেগুলো কিনছেন।

এগুলোর মধ্যে আর্থিক খাতের লংকাবাংলা ও আইডিএলসি, সেন্ট্রাল ফার্মা, ইফাদ অটোস, অ্যাপোলো ইস্পাত, ইস্টার্ন হাউজিং, ফরচুন সুজ, বারাকা, জিবিবি ও ডরিন পাওয়ার উল্লেখযোগ্য।

রোববার প্রধান শেয়ারবাজার ডিএসইতে বারাকা পাওয়ার ছিল লেনদেনের শীর্ষে; কেনাবেচা হয় ৬৫ কোটি টাকার শেয়ার। গত ডিসেম্বরের শুরুতে শেয়ারটি ২৬-২৭ টাকায় কেনাবেচা হয়েছিল। সোমবার শেয়ারটি বছরের সর্বোচ্চ ৫২ টাকা ১০ পয়সায় কেনাবেচা হয়েছে। অর্থাৎ গত আড়াই মাসেই শেয়ারটির দর দ্বিগুণ হয়েছে।

এর আগের ছয় মাসে ২৫-৩০ টাকার মধ্যে ওঠানামা করেছিল। কোম্পানিটি নতুন বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের অনুমতি পেতে যাচ্ছে- এমন গুঞ্জনই শেয়ারদর ও বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ বৃদ্ধির কারণ। একই কারণে জিবিবি পাওয়ার ও ডরিন পাওয়ারের শেয়ারে একই রকম হাওয়া লাগছে।

লংকাবাংলা ও আইডিএলসি ছিল গতকালের লেনদেনে যথাক্রমে দ্বিতীয় ও ষষ্ঠ অবস্থানে। কেনাবেচা হয়েছে ৪৩ কোটি ৬৯ লাখ ও ৩১ কোটি টাকার শেয়ার। এ দুই কোম্পানির শেয়ারদর বৃদ্ধির নেপথ্যে আছে লভ্যাংশ ঘোষণা ও রাইট শেয়ার ইস্যু। এ ছাড়া শেয়ারবাজারে নতুন গতি ফেরায় উভয় কোম্পানির সহযোগী ছয়টি প্রতিষ্ঠানের মুনাফা বৃদ্ধিও শেয়ারদরে পালে বেশ হাওয়া দিচ্ছে।

অপ্রকাশিত মূল্য সংবেদনশীল তথ্যে ভর করে কিছুদিন আগ পর্যন্ত বাড়ছিল ইফাদ অটোস। সাভারে অশোক লেল্যান্ডের উৎপাদিত গাড়ি অ্যাসেম্বিলিংয়ের জন্য একটি কারখানা স্থাপনের ঘোষণা দেওয়ার পর এর শেয়ারদরে কিছুটা লাগাম পড়ে। গত ২৩ জানুয়ারি ১৩২ টাকায় ওঠার পর তা ৭ ফেব্রুয়ারি ১১৩ টাকায় নামে। গত আট কার্যদিবসে আবারও ১৩২ টাকা দর ছাড়িয়েছে শেয়ারটি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here