লুজারে এ্যাপোলো ও গেইনারে আলহাজ্ব টেক্সটাইল

0
568

স্টাফ রিপোর্টার : সপ্তাহজুড়ে শেয়ার দর কমেছে এ্যাপোলো ইস্পাত কমপ্লেক্সের। মুনাফা কমে যাওয়া ও ২০১২-১৩ অর্থবছরের লভ্যাংশ এবং এজিএম তালিকাভুক্তির আগেই সম্পন্ন হওয়ায় কোম্পানিটির শেয়ার দর কমেছে।

অন্যদিকে সপ্তাহশেষে শেয়ার দর বেড়েছে আলহাজ্ব টেক্সটাইলের। লেনদেন হওয়া ৫ কার্যদিবসে এ শেয়ারের দর বেড়েছে ১৮.৩৭ শতাংশ। এরই ধারাবাহিকতায় কোম্পানিটি সাপ্তাহিক দর বাড়ার শীর্ষ-১০ কোম্পানির তালিকার প্রথমস্থানে উঠে এসেছে।

এ্যাপোলো ইস্পাত কমপ্লেক্স : তালিকাভুক্তির পর কোম্পানিটি লভ্যাংশ দেবে বিনিয়োগকারীদের এমন ধারণা ভুল প্রমাণিত হওয়ায় অনেকে শেয়ারটি ছেড়ে বেরিয়ে যান। এরই ধারাবাহিকতায় সপ্তাহশেষে ১০.৯০ শতাংশ দর কমে যাওয়ায় কোম্পানিটি সাপ্তাহিক লুজার তালিকার চতুর্থস্থানে জায়গা পেয়েছে।

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্তির আগেই ২০১৩ সালের ৩০ জুন শেষ হওয়া অর্থ বছরের জন্য ‘নো ডিভিডেন্ড’ ঘোষণা ও বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) সম্পন্ন করে কোম্পানি কর্তৃপক্ষ। আর এ বিষয়ে অধিকাংশ বিনিয়োগকারী ওয়াকিবহাল ছিলেন না। পরবর্তী সময়ে বিষয়টি জানার পর অনেকে শেয়ারটি ছেড়ে বেরিয়ে যান। ফলে স্বাভাবিকভাবে এর দর কমতে থাকে।

এদিকে, পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্তির প্রথম বছরে মুনাফা কমেছে এ্যাপোলো ইস্পাতের। ২০১৩ সালের ৩১ ডিসেম্বর শেষ হওয়া অর্ধ বার্ষিক (জুলাই ’১৩-ডিসেম্বর ’১৩) আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী, এপোলো ইস্পাতের মুনাফা হয়েছে ১১ কোটি ৫১ লাখ ৭০ হাজার টাকা এবং শেয়ারপ্রতি আয় হয়েছে ০.৭৬ টাকা। যা আগের বছরের একই সময়ে ছিল যথাক্রমে ১৭ কোটি ২৭ লাখ ৬০ হাজার টাকা এবং ১.১৫ টাকা।

গত সপ্তাহের ৫ কার্যদিবসে এ কোম্পানির মোট ৫৬ কোটি ৮৩ লাখ ৩৮ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। যা গড়ে প্রতি কার্যদিবসে হয়েছে ১১ কোটি ৩৬ লাখ ৬৭ হাজার ৬০০ টাকার। বৃহস্পতিবার লেনদেন শেষে এ শেয়ারের দর ৩২.৭ টাকায় স্থির হয়।

‘এন’ ক্যাটাগরির এ্যাপোলো ইস্পাতের মোট ২৫ কোটি শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা-পরিচালকদের কাছে রয়েছে ৩০.৪৭ শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে ৩৩.৫৩ শতাংশ ও বাকি ৩৬ শতাংশ শেয়ার রয়েছে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে।

আলহাজ্ব টেক্সটাইল : আগের বছরের তুলনায় ব্যবসায়িক ফলাফল খারাপ হলেও সপ্তাহশেষে শেয়ার দর বেড়েছে আলহাজ্ব টেক্সটাইলের। লেনদেন হওয়া ৫ কার্যদিবসে এ শেয়ারের দর বেড়েছে ১৮.৩৭ শতাংশ। এরই ধারাবাহিকতায় কোম্পানিটি সাপ্তাহিক দর বাড়ার শীর্ষ-১০ কোম্পানির তালিকার প্রথমস্থানে উঠে এসেছে।

গত সপ্তাহের ৫ কার্যদিবসে এ কোম্পানির মোট ১০ কোটি ৭৪ লাখ ২৯ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। যা গড়ে প্রতি কার্যদিবসে হয়েছে ২ কোটি ১৪ লাখ ৮৫ হাজার ৮০০ টাকার। বৃহস্পতিবার লেনদেন শেষে এ শেয়ারের দর ২.৭ টাকা কমে ৮৪.৪ টাকায় অবস্থান করছে।

জুনে আর্থিক বছর শেষ হওয়া এ কোম্পানির মুনাফা আগের বছরের তুলনায় কমেছে। আগের বছর প্রথমার্ধে আলহাজ্জ টেক্সটাইলের শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) ১.২৫ টাকা হলেও চলতি বছর ১.০৩ টাকায় দাঁড়িয়েছে। এ ছাড়া গত কয়েক বছর ধরে কোম্পানিটি উল্লেখ করার মতো কোনো ফলাফল বয়ে আনতে পারেনি।

১৯৮৩ সালে তালিকাভুক্ত হওয়া আলহাজ্জ টেক্সটাইলের মোট ১ কোটি ২৬ লাখ ৯১ হাজার ৮৪৩টি শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা পরিচালকদের কাছে ২৪.০৩ শতাংশ, সরকারের কাছে ০.০৩ শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে ৪.১৯ শতাংশ ও বাকি ৭১.৭৬ শতাংশ শেয়ার রয়েছে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here