লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে ২১৬টি কোম্পানি, দেয়নি ২২টি

0
987

স্টাফ রিপোর্টার : পুঁজিবাজারের কোম্পানি ও ফান্ডগুলোর আর্থিক বছর ৩০ জুন শেষ হয়েছে। এর মাধ্যমে কোম্পানি ও ফান্ডগুলো তাদের অনীরিক্ষীত বার্ষিক আর্থিক হিসাব প্রকাশসহ শেয়ারহোল্ডারদের জন্য লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। কিছু প্রতিষ্ঠান খুব ভালো মানের লভ্যাংশ দিয়েছে, আবার কিছু প্রতিষ্ঠান কোনো লভ্যাংশই দেয়নি।

জুন মাসে বছর শেষ হওয়া ২১৬টি কোম্পানি ও ফান্ড লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে।

ডিএসই সূত্রে জানা যায়, আলোচিত অর্থবছরে (২০১৮-১৯) ২১৬টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ১৯৪টি বা ৯০ শতাংশ কোম্পানি ও ফান্ড শেয়ারহোল্ডারদের জন্য লভ্যাংশ দিয়েছে। আর বাকি ২২টি ১০ শতাংশ প্রতিষ্ঠান কোনো লভ্যাংশ দেয়নি। এরমধ্যে কিছু প্রতিষ্ঠান শুধু নগদ লভ্যাংশ দিয়েছে, আর কিছু প্রতিষ্ঠান নগদ ও বোনাস লভ্যাংশ দুটোই দিয়েছে। আবার কিছু প্রতিষ্ঠান শুধু বোনাস লভ্যাংশ দিয়েছে।

এদের মধ্যে শুধু নগদ লভ্যাংশ দিয়েছে ১২৫টি বা ৫৮ শতাংশ প্রথিষ্ঠান। আর নগদ ও বোনাস লভ্যাংশ দুটোই দিয়েছে ৪৬ টি বা ২১ শতাংশ প্রতিষ্ঠান। এবং শুধু বোনাস লভ্যাংশ দিয়েছে ২২টি বা ১০ শতাংশ প্রতিষ্ঠান।

তথ মতে, প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি লভ্যাংশ দিয়েছে মেঘনা পেট্রোলিয়াম। কোম্পানিটি ১৫০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এরপরে রয়েছে ইউনাইটেড পাওয়ার ১৪০ শতাংশ (১৩০ শতাংশ নগদ, ১০ শতাংশ বোনাস), পদ্মা অয়েল ও যমুনা অয়েল ১৩০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে।

এরপরে রয়েছে এসিআই লিমিটেড ১১৫ শতাংশ (১০০ শতাংশ নগদ, ১৫ শতাংশ বোনাস), রেনাটা ১১০ শতাংশ (১০০ শতাংশ নগদ, ১০ শতাংশ বোনাস)। এছাড়া নর্দার্ন জুট ও ইস্টার্ন লুব্রিকেন্টস ১০০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করছে। আর বাকিগুলোর মধ্যে ৫ শতাংশ থেকে শুরু করে সর্বেোচ্চ ৫৫ শতাংশ পর্যন্ত লভ্যাংশও ঘোষণা করেছে।

প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে কোনো কোম্পানি আবার ৫ শতাংশের নিচেও লভ্যাংশ দিয়েছে। এদের মধ্যে ১ শতাংশ লভ্যাংশ দিয়েছে ৫টি কোম্পানি। কোম্পানিগুলো হচ্ছে- তসরিফা ইন্ডাস্ট্রিজ, খুলনা প্রিন্টিং এবং প্যাকেজিং, সেন্ট্রাল ফার্মাসিউটিক্যালস, ন্যাশনাল ফিড ও ফু ওয়াং সিরামিক।

২ থেকে ৪ দশমিক ৫০ শতাংশ লভ্যাংশ দিয়েছে ৩১ টি কোম্পানি। এগুলোর মধ্যে ৩ শতাংশ ও ২ শতাংশ লভ্যাংশ ঘোষণা করা কোম্পানির সংখ্যা বেশি।

অপরদিকে লভ্যাংশ ঘোষণা করেনি ২২টি কোম্পানি। যেগুলো নিয়ম অনুসারে লভ্যাংশ না দেয়ার কারণে ‘জেড’ ক্যাটাগরিতে লেনদেন করবে। আগের বছর লভ্যাংশ দিলেও ২০১৮-১৯ অর্থবছরের লভ্যাংশ না দেওয়ার সিদ্ধান্তে সর্বনিম্ন ‘জেড’ ক্যাটাগরিতে লেনদেন করবে। তবে ২২টির মধ্যে ১৩টি কোম্পানি আগে থেকেই জেড ক্যাটাগরিতে লেনদেন করছে, বাকি ৯টি নতুন যুক্ত হয়েছে।

কোম্পানিগুলো মধ্যে আগে থেকেই জেড ক্যাটাগরিতে রয়েছে- শ্যামপুর সুগার মিল, অলটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ, দুলামিয়া কটন, জিল বাংলা সুগার মিল, বেক্সিমকো সিনথেটিক্স, শাইন পুকুর সিরামিক, আরামিট সিমেন্ট, গোল্ডেন সন, মেঘনা পিইটি, মেঘনা কনডেন্সড মিল্ক, ইমাম বাটন, জুট স্পিানার্স ও সাভার রিফ্র্যাক্টরিজ

নতুন যুক্ত হয়েছে- উসমানিয়া গ্লাস, ইনটেক লিমিটেড, জাহিনটেক্স, আর এন স্পিনিং, খান ব্রাদার্স পিপি ওভেন, সালভো কেমিক্যাল, বিডি থাই, রেনউইক যজ্ঞেশর, জেনারেশন নেক্সট। কোম্পানিগুলো পরবর্তীতে কোনো লভ্যাংশ না দেয়া পর্যন্ত এই ক্যাটাগরিতে লেনদেন করবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here