বাংলাদেশ বিজনেস অ্যাওয়ার্ড পুরস্কার পেয়েছে রানার গ্রুপ

0
255

স্টাফ রিপোর্টার : রাজধানীর একটি হোটেলে গত শুক্রবার ইংরেজি দৈনিক ডেইলি স্টার ও লজিস্টিক প্রতিষ্ঠান ডিএইচএল প্রবর্তিত ‘বাংলাদেশ বিজনেস অ্যাওয়ার্ড’ পুরস্কার পেয়েছে রানার গ্রুপ। বছরের সেরা ব্যবসায় উদ্যোক্তা’ হিসেবে রানার গ্রুপের চেয়ারম্যান মো: হাফিজুর রহমান খান প্রতিষ্ঠানের পক্ষে পুরস্কার গ্রহন করেন।

অ্যাওয়ার্ড প্রদান অনুষ্ঠানে অ্যাওয়ার্ডপ্রাপ্ত চারটি প্রতিষ্ঠান ও ব্যাক্তির হাতে পুরস্কার তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আর্ন্তজাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা গওহর রিজভী।

পুরস্কার পাওয়া অন্য প্রতিষ্ঠানগুলো হচ্ছে-আইপিডিসি ফাইন্যান্স (সেরা আর্থিক প্রতিষ্ঠান), অনন্ত অ্যাপারেলসের চেয়ারম্যান কামরুন্নাহার নাহার জহির (ব্যবসায় অসাধারন নারী), ইস্ট কোষ্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান আজম জে চৌধুরী (বছরের সেরা ব্যবসায়ী)।

এই সময় ডেইলি স্টারের সম্পাদক মাহফুজ আনাম ও ডিএইচএলের নির্বাহী ভাইস প্রেসিডেন্ট ইয়াসমিন খান, ইনফোসিসের প্রতিষ্ঠাতা নারায়ন মুর্তি, দেশের শীর্ষ ব্যবসায়ি, ব্যাংকার সরকারী-বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বছরের সেরা ব্যবসায় উদ্যোক্তা শ্রেনীতে পুরস্কারের জন্য নির্বাচিত হয়েছে রানার গ্রুপ। এর অঙ্গ প্রতিষ্ঠান রানার অটোমোবাইলস লিমিটেড দেশের অটোমোবাইলস্ খাতে প্রথম উৎপাদন ও রপ্তানীকারক প্রতিষ্ঠান। তারা ২০০০ সালে আমদানি শুরু করে।

২০০৭ সালে ভালুকায় নিজস্ব কারখানায় উৎপাদন শুরু করে। ২০১১ সালে প্রথমে নেপাল এবং পরবর্তীতে ২০১৮ সালে ভুটানেও মোটরসাইকেল রপ্তানি করে। এছাড়া বিশ্বের অন্যান্য সম্ভাবনাময় দেশেও রানার অটোমোবাইলস লিমিটেডের উচ্চ সিসির মোটরসাইকেল রপ্তানি প্রক্রিয়াধীন আছে।

পুঁজিবাজারে তালিকাভূক্ত রানার অটোমোবাইলস্ লিমিটেড মোটর সাইকেলের পাশাপাশি, রানার বাংলাদেশে থ্রি-হুইলার এর পরিবেশক। রানার অটোমোবাইলস্ লিঃ এর অংগ প্রতিষ্ঠান রানার মোটরস বাংলাদেশে ভলভো আইসারের বাণিজ্যিক যান ট্রাক, হালকা যানের পরিবেশক।

বাণিজ্যিক যানের বাজারে রানার মোটরস একটি শক্তিশালী প্রতিষ্ঠান এবং এখাতের বাজারের বড় অংশ এর দখলে। রানার অটোমোবাইলস্ লিঃ পরিচালিত হয় একটি প্রতিষ্ঠিত বহুজাতিক ও বৈচিত্রিক সাংকৃতিক ব্যবস্থাপনা টিম এবং একটি শক্তিশালী বৈচিত্রপূর্ণ বোর্ড কর্তৃক যেখানে ব্রামার ফ্রন্টিয়ার পিইট প্রতিনিধিত্ব রয়েছে।

রানার গ্রুপের চেয়ারম্যান মো. হাফিজুর রহমান খান বলেন, দেশে মোটরসাইকেল শিল্পের এখন যে ব্যাপক সম্প্রসারণ আমরা দেখতে পাচ্ছি তা এক সাহস নিয়ে রানার গ্রুপ সবার আগে শুরু করেছিল। দেশে মোটরসাইকেল শিল্পের বিকাশে ভেন্ডর উন্নয়নের পাশাপাশি রপ্তানি বাজারেও আমরা বাংলাদেশের লাল সবুজ পতাকা বহন করে চলেছি। এই পুরস্কার আমাদের দারুনভাবে উৎসাহ যোগাবে এবং একইসঙ্গে আমাদের ভোক্তাদের প্রতি এই অর্জন আরো দায়বদ্ধতা বাড়াবে বলে আমি মনে করি।

আমাদের প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা অনেক পরিশ্রম ও ত্যাগ স্বীকার আর প্রতিশ্রুতি রক্ষা করে প্রতিষ্ঠানটিকে এ পর্যায়ে নিয়ে এসেছে। দীর্ঘ দিন প্রতিষ্ঠানটি সুনাম ও আস্থা অর্জন করে ব্যবসা পরিচালনা করছে। আগামী দিনেও আমরা সবার অব্যাহত সহযোগিতা নিয়ে এই সুনাম আরও বৃদ্ধি করতে চাই। রানার এখন এক ধাপ এগিয়ে ’মেইড ইন বাংলাদেশ’ ট্যাগযুক্ত মোটরসাইকেল বিশ্ববাজারে ছড়িয়ে দিতে চায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here