যোগ হচ্ছে ৭টি কোম্পানির ৩৭০ কোটি টাকার বোনাস শেয়ার

0
619

সিনিয়র রিপোর্টার : নতুন বছরের প্রথম দিনে মঙ্গলবার পুঁজিবাজারে যোগ হচ্ছে তালিকাভুক্ত সাত কোম্পানির ৩৭০ কোটি ৩ লাখ ৯৭ হাজার টাকার বোনাস শেয়ার। কোম্পানিগুলোর বোনাস শেয়ার গত বৃহস্পতিবার শেয়ারহোল্ডারদের বিও হিসাবে জমা হয়েছে। ২৭ লাখ ৩৬ হাজার ৪৮০টি বোনাস শেয়ার নিয়ে শীর্ষে রয়েছে ওয়াটা ক্যামিকেলস লিমিটেড।

কোম্পানিগুলো হলো- ওয়াটা ক্যামিকেল, এমএল ডাইং, ভিএফএস ডাইং, বঙ্গজ লিমিটেড, অলিম্পিক অ্যাক্সেসরিজ, জেমিনি সী ফুড ও সাফকো স্পিনিং লিমিটেড।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ জানায়, কোম্পানিগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি টাকার বোনাস শেয়ার এসেছে ওয়াটা ক্যামিকেলের। কোম্পানিটির ৩০ শত্যাংশ বোনাস লভ্যাংশ হিসাবে এসেছে ২৭ লাখ ৩৬ হাজার ৪৮০টি বোনাস শেয়ার, যার বাজার মূল্য ১২৯ কোটি ১৬ লাখ ২০ হাজার ৪৪৮ টাকা। এর পরে রয়েছে এমএল ডাইং। কোম্পানিটির ২০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ হিসাবে এসেছে ৩ কোটি ২০ লাখ ৮২ হাজার বোনাস শেয়ার, যার বাজার মূল্য ৯৫ কোটি ২৮ লাখ ৩৫ হাজার ৪০০ টাকা।

তৃতীয় স্থানে রয়েছে ভিএফএস ডাইং। এর ১০ শতাংশ বোনাস শেয়ার হিসাবে এসেছে ৯৩ লাখ ১৮ হাজার ৬২৮ শেয়ার, যার বাজার মূল্য ৫৩ কোটি ৮৬ লাখ ১৬ হাজার ৬৯৮ টাকা। চতুর্থ স্থানে থাকা বঙ্গজের ১৫ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ হিসাবে ১০ লাখ ৮৯ হাজার ২৩৫ শেয়ার, যার বাজার মূল্য ৩৪ কোটি ১৪ লাখ ৭৫ হাজার ১৪১ টাকা। পঞ্চম স্থানে রয়েছে অলিম্পক অ্যাক্সেসরিজ। এর ১০ শতাংশ বোনাস শেয়ার হিসাবে এসেছে ১ কোটি ৬৯ লাখ ৫২ হাজার ৬৯৮ শেয়ার, যার বাজার মূল্য ২১ কোটি ৮৬ লাখ ৮৯ হাজার ৮০৪ টাকা।

ষষ্ট স্থানে থাকা জেমিনি সী ফুডের ১৫ শতাংশ বোনাস শেয়ার হিসাবে এসেছে ৬ লাখ ৪০ হাজার ৪০৬ শেয়ার, যার বাজার মূল্য ২০ কোটি ২৪ লাখ ৩২ হাজার ৩৩৬ টাকা। সপ্তম স্থানে রয়েছে সাফকো স্পিনিং। এর ৩০ শতাংশ বোনাস শেয়ার হিসাবে এসেছে ৮৯ লাখ ৯৪ হাজার ৫১৫ শেয়ার, যার বাজার মূল্য ১৫ কোটি ৮৩ লাখ ৩ হাজার ৪৬৪ টাকা।

১. ওয়াটা ক্যামিকেল :৩০ জুন ২০১৮ হিসাব বছরের জন্য ওয়াটা ক্যামিকেল ১০ শতাংশ নগদ ও ৩০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দিয়েছে। কোম্পনিটির মোট শেয়ারের পরিমাণ ৯১ লাখ ২১ হাজার ৬১৩টি। ৩০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ হিসাবে কোম্পানিটির শেয়ার এসেছে ২৭ লাখ ৩৬ হাজার ৪৮৪টি।

রেকর্ড ডেটের আগে উদ্যোক্তাদের কাছে ছিল ৩৬.৪০ শতাংশ শেয়ার এবং প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে ছিল ৩৮ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে ছিল ২৫.৬০ শতাংশ শেয়ার। সেই হিসাবে উদ্যোক্তা পরিচালকদের বিও হিসাবে বোনাস শেয়ার এসেছে ৯ লাখ ৯৬ হাজার ৮০টি। আর প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের বিও হিসাবে বোনাস শেয়ার এসেছে ১৭ লাখ ৪০ হাজার ৪০৪টি।

২. এমএল ডাইং : ৩০ জুন ২০১৮ হিসাব বছরের জন্য ডাইং ২০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দিয়েছে। কোম্পনিটির মোট শেয়ারের পরিমাণ ১৬ কোটি ৪ লাখ ১০ হাজার। ২০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ হিসাবে কোম্পানিটির শেয়ার এসেছে ৩ কোটি ২০ লাখ ৮২ হাজার।

রেকর্ড ডেটের আগে উদ্যোক্তাদের কাছেকোম্পানিটির শেয়ার ছিল ৩১.৪০ শতাংশ এবং প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে ছিল ২৪.৬৩ শতাংশ, বিদেশি বিনিয়োগকারীদের কাছে ছিল ২১.৮৯ শতাংশ এবং সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে ছিল ২২.০৮ শতাংশ। সেই হিসাবে উদ্যোক্তা পরিচালকদের বিও হিসাবে কোম্পানিটির বোনাস শেয়ার এসেছে ১ কোটি ৭৩ হাজার ৭৪৮টি। আর প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী, বিদেশি বিনিয়োগকারী ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের বিও হিসাবে বোনাস শেয়ার এসেছে ২ কোটি ২০ লাখ ৮ হাজার ২৫২টি।

৩. ভিএফএস থ্রেড ডাইং : ৩০ জুন ২০১৮ হিসাব বছরের জন্য ভিএফএস থ্রেড ডাইং ১০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দিয়েছে। কোম্পনিটির মোট শেয়ারের পরিমাণ ৯ কোটি ৩১ লাখ ৮৬ হাজার ২৮০টি। ১০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ হিসাবে কোম্পানিটির শেয়ার এসেছে ৯৩ লাখ ১৮ হাজার ৬২৮টি।

রেকর্ড ডেটের আগে উদ্যোক্তাদের কাছে শেয়ার ছিল ৩০.৮৮ শতাংশ এবং প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে ছিল ১৭.৭৪ শতাংশ, বিদেশি বিনিয়োগকারীদের কাছে ছিল ১৮.৩৩ শতাংশ এবং সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে ছিল ৩৩.০৫ শতাংশ। সেই হিসাবে উদ্যোক্তা পরিচালকদের বিও হিসাবে কোম্পানিটির বোনাস শেয়ার এসেছে ২৮ লাখ ৭৭ হাজার ৫৯২টি। আর প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী, বিদেশি বিনিয়োগকারী ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের বিও হিসাবে বোনাস শেয়ার এসেছে ৬৪ লাখ ৪১ হাজার ৩৬টি।

৪. বঙ্গজ : ৩০ জুন ২০১৮ হিসাব বছরের জন্য বঙ্গজ ১৫ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দিয়েছে। কোম্পনিটির মোট শেয়ারের পরিমাণ ৭২ লাখ ৬১ হাজার ৫৬৬টি। ১৫ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ হিসাবে কোম্পানিটির শেয়ার এসেছে ১০ লাখ ৮৯ হাজার ২৩৫টি।

রেকর্ড ডেটের আগে উদ্যোক্তাদের কাছে ছিল ৩৪.৮৫ শতাংশ শেয়ার এবং প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে ছিল ৬.০৫ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে ছিল ৫৯.১০ শতাংশ শেয়ার। সেই হিসাবে উদ্যোক্তা পরিচালকদের বিও হিসাবে বোনাস শেয়ার এসেছে ৩ লাখ ৭৯ হাজার ৫৯৮টি। আর প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের বিও হিসাবে বোনাস শেয়ার এসেছে ৭ লাখ ৯ হাজার ৬৩৭টি।

৫. অলিম্পিক অ্যাক্সেসরিজ : ৩০ জুন ২০১৮ হিসাব বছরের জন্য অলিম্পিক অ্যাক্সেসরিজ ১০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দিয়েছে। কোম্পনিটির মোট শেয়ারের পরিমাণ ১৬ কোটি ৯৫ লাখ ২৬ হাজার ৯৮২টি। ১০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ হিসাবে কোম্পানিটির শেয়ার এসেছে ১ কোটি ৬৯ লাখ ৫২ হাজার ৬৯৪টি।

রেকর্ড ডেটের আগে উদ্যোক্তাদের কাছে ছিল ২৫.৮১ শতাংশ শেয়ার এবং প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে ছিল ২০.৭৮ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে ছিল ৫৩.৪১ শতাংশ শেয়ার। সেই হিসাবে উদ্যোক্তা পরিচালকদের বিও হিসাবে বোনাস শেয়ার এসেছে ৪৩ লাখ ৭৫ হাজার ৪৯১টি। আর প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের বিও হিসাবে বোনাস শেয়ার এসেছে ১ কোটি ২৫ লাখ ৭৭ হাজার ২০৭টি।

৬. জেমিনি সী ফুড : ৩০ জুন ২০১৮ হিসাব বছরের জন্য জেমিনি সী ফুড ১৫ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দিয়েছে। কোম্পনিটির মোট শেয়ারের পরিমাণ ৪২ লাখ ৬৯ হাজার ৩৭৫টি। ১৫ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ হিসাবে কোম্পানিটির শেয়ার এসেছে ৬ লাখ ৪০ হাজার ৪০৬টি।

রেকর্ড ডেটের আগে উদ্যোক্তাদের কাছে ছিল ৩১.৬৫ শতাংশ শেয়ার এবং প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে ছিল ৪.৮৫ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে ছিল ৬৩.৫০ শতাংশ শেয়ার। সেই হিসাবে উদ্যোক্তা পরিচালকদের বিও হিসাবে বোনাস শেয়ার এসেছে ২ লাখ ১ হাজার ৮৭টি। আর প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের বিও হিসাবে বোনাস শেয়ার এসেছে ৪ লাখ ৩৯ হাজার ৩১৯টি।

৭. সাফকো স্পিনিং : ৩০ জুন ২০১৮ হিসাব বছরের জন্য সাফকো স্পিনিং ৩০ শতাংশ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দিয়েছে। কোম্পনিটির মোট শেয়ারের পরিমাণ ২ কোটি ৯৯ লাখ ৮১ হাজার ৭১৬টি। ৩০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ হিসাবে কোম্পানিটির শেয়ার এসেছে ৮৯ লাখ ৯৪ হাজার ৫১৫টি।

রেকর্ড ডেটের আগে উদ্যোক্তাদের কাছে ছিল ৩০ শতাংশ শেয়ার এবং প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে ছিল ০.১৫ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে ছিল ৬৯.৮৫ শতাংশ শেয়ার। সেই হিসাবে উদ্যোক্তা পরিচালকদের বিও হিসাবে বোনাস শেয়ার এসেছে ২৬ লাখ ৯৮ হাজার ৩৫৫টি। আর প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের বিও হিসাবে বোনাস শেয়ার এসেছে ৬২ লাখ ৯৬ হাজার ১৬০টি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here