শ্যামল রায়: সাধারণ বিনিয়গকারী মোঃ জয়নাল আবেদিণ ট্রেড করেন খুলনার রয়েল ক্যাপিটাল লিমিটেডে। শেয়ার মার্কেটে তার প্রথম বিনিয়গ ২০১০ সালে। এখন পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে বিনিয়োগ করেই চলছেন। সম্প্রতি স্টক বাংলাদেশের কার্যালয়ে শেয়ার বাজারের বর্তমান অবস্থা এবং তার মতামত তুলে ধরলেন স্টক বাংলাদেশের বিনিয়োগকারীর সাক্ষাৎকার বিভাগে।

এই মুহুর্তে আমার পোর্টফোলিওর অবস্থা মোটামুটি ভাল। আমার ট্রেডিং পলিসিতে ব্যাংক সেক্টর রাখি না। কাজেই এই ব্যাংকের বাড়তির বাজারে আমাকে চেয়ে চেয়ে দেখতে হচ্ছে। অবশ্য এতে আমার কোন আফসোস নাই।  এখন মার্কেটের ট্রেন্ডটা একটু বোধ হয় চেঞ্জ হয়েছে। সেক্টর ওয়াইজ বাড়ে কমে। এতে ভাল মন্দ দুটো দিকই আছে।

যারা চালাক, ট্রেন্ডটাকে ধরতে পারে তারা প্রচুর প্রফিট টেক করতে পারে। অন্যদিকে যারা এটাকে বুঝতে পারে না, তারা লসে পড়ে যায়। আমি নিজে অবশ্য আগে অ্যানালাইসিস না করেই বাই সেল করতাম। কাজেই লসের সম্ভাবনা থেকেই যেত ।

বিনিয়োগের আগে অনেক গুলো বিষয় অ্যানালিসিস করে বেচা কেনা করি। এক্ষেত্রে টেকনিক্যাল আন্যালাইসিস প্রচুর কাজ দেয়। এক্ষেত্রে আমার তো মনে হয় টেকনিক্যাল আন্যালাইসিস ৭০%  কাজ দেয় ।

মাঝে মাঝে বিসেক বিএসই সিএসসি ভূল ইন্ডিকেশন দেয় এতে বিনিয়োগকারীরা অনেক ক্ষতির সম্মুক্ষিন হন। কারণ কোম্পানি এবং ডিএসইর ওয়েব সাইটে যে সমস্ত তথ্য ডিসক্লোজ করা থাকে ভরসা বলতে তো ঐ টুকুই। তাও আবার যদি ভূল থাকে তাহলে আমরা বিনিয়োগকারীরা নিশ্চিত হবো কি করে কোনটা সঠিক আর কোনটা বেঠিক। এজন্য কর্তৃপক্ষকে বিনীয়োগকারীদের অবস্থা ভাবতে হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here