মোটরসাইকেলের যন্ত্রাংশ বাজারজাত করবে রানার

0
194

স্টাফ রিপোর্টার : বাংলাদেশে এখন থেকে বাজাজ মোটরসাইকেলের যন্ত্রাংশ বাজারজাত করবে রানার অটোমোবাইলসের সহযোগী প্রতিষ্ঠান রানার ট্রেডপার্ক। মোটরসাইকেলের পাশাপাশি এলপিজি ও ডিজেল চালিত থ্রি হুইলারের যন্ত্রাংশও বাংলাদেশে বাজারজাত করবে প্রতিষ্ঠানটি।

রানার অটোমোবাইলসের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে মঙ্গলবার জানানো হয়েছে, চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে দুই প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক চুক্তি হয়েছে। চুক্তির আওতায় রানার ট্রেড পার্ক লিমিটেডের মাধ্যমে সারা দেশে যন্ত্রাংশ বাজারজাত করা হবে।

রানার গ্রপ অফ কোম্পানিজের চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান খান এ বিষয়ে বলেন, ভারতের শীর্ষ অটোমেটিভ ব্র্যান্ড বাজাজের সঙ্গে বাংলাদেশের শীর্ষ অটোমোবাইল ম্যানুফ্যাকচারিং ব্র্যান্ডের সম্পর্ক দুই প্রতিষ্ঠানের ব্যবসায়িক প্রবৃদ্ধি ও বাজার সম্প্রসারণে ভূমিকা রাখবে। বাংলাদেশে প্রায় ১০ লাখ মোটরসাইকেল ও থ্রি হুইলার চলাচল করে। এসব বাহনের জন্য উন্নতমানের যন্ত্রাংশের প্রচুর চাহিদা রয়েছে। রানার ট্রেড পার্ক লিমিটেড সেই চাহিদা পূরণে চেষ্টা করবে।

রানার ট্রেড পার্ক লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মুকেশ শর্মা বলেন, আগামী ৫ থেকে ৬ মাসের মধ্যে রানার গ্রুপ বাজাজ মোটরসাইকেলের ‘জেনুইন পার্টস’ পৌঁছে দেবে। এক্ষেত্রে রানার নানা উদ্ভাবনী পদ্ধতি অবলম্বন করবে। ডিস্ট্রিবিউশন চ্যানেল ছাড়াও এসব পার্টস গ্রাহকরাও মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে কিনতে পারবেন। পার্টের ডেলিভারি সর্বোচ্চ ২৪ ঘণ্টার মধ্যে দেয়া হবে।

বাজাজের তিন চাকার মালামাল পরিবহন যান ও চার চাকার যাত্রী পরিবহন গাড়ি ‘কিউট’ বাজারে আনে রানার অটোমোবাইলস। বাজাজের নতুন এসব যানবাহনে জ্বালানি হিসেবে ব্যবহার করা যাবে তরলীকৃত পেট্রোলিয়াম গ্যাস (এলপিজি) ও ডিজেল।

উল্লেখ্য, রানার অটোমোবাইল লিমিটেড ১০০ কোটি টাকা পুঁজিবাজার থেকে উত্তোলনে প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) প্রাথমিক অনুমোদন পেয়েছে। বুক বিডিং পদ্ধতিতে কোম্পানিকে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে শেয়ার বিক্রির (বিডিং বা নিলাম) অনুমোদন দিয়েছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here